ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টে বৃটেনে ৪ মৃত্যু, বিশেষজ্ঞদের সতর্কতা

0 ৬৪

নতুন ভারতীয় করোনা ভাইরাস ভ্যারিয়েন্টে বৃটেনে চারজন মারা গেছেন। এর প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ওপর তীব্র চাপ সৃষ্টি হয়েছে। কারণ, দীর্ঘপ্রতীক্ষিত লকডাউন প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয়ার কথা আজ। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন যাতে তা না করেন এ জন্য তার ওপর চাপ বৃদ্ধি পেয়েছে। আগামী সোমবার থেকে বৃটেনে লকডাউন শিথিল করার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, যেহেতু উচ্চ মাত্রার করোনার স্ট্রেইন বা ভ্যারিয়েন্ট সংক্রমণ দ্বিগুন হয়েছে তাই লকডাউন শিথিলকরণ স্থগিত করা উচিত। সোমবার থেকে লকডাউন শিথিল করা হলে জনসাধারণ পাব-এর ভিতর জমায়েত হতে পারবে। ঘনিষ্ঠ বন্ধু এবং পরিবারের সদস্যদের আলিঙ্গন করতে পারবে।

এর ফলে নতুন এসব ভ্যারিয়েন্ট সংক্রমণ আরো দ্রুত হবে বলে পূর্বাভাস দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। আজ শুক্রবার পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড জানিয়েছে, ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টে ৫ই মে থেকে ১২ই মে পর্যন্ত আরো চারজন সেখানে মারা গেছেন। এ সময়ে ইংল্যান্ডে মোট মারা গেছেন ৯৭ জন। তার মধ্যে ওই চারজন মারা গেছেন ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টে। বিজ্ঞানীরা মনে করেন, ইংল্যান্ডের কেন্টে পাওয়া ভয়াবহ ভ্যারিয়েন্টের চেয়ে ভারতীয় এই ভ্যারিয়েন্ট অধিক মাত্রায় সংক্রামক। তবে এই ভ্যারিয়েন্টগুলো এখনও টিকার বিরুদ্ধে অধিক মাত্রায় ভয়াবহ অথবা টিকার বিরুদ্ধে প্রতিরোধক এমন কোনো লক্ষণ দেখা যায়নি। উল্লেখ্য, ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট বি.১.৬১৭.২ গত সপ্তাহে বৃটেনে দ্বিগুণের বেশি সংক্রামক রূপ ধারণ করে। ১২ই মে পর্যন্ত সেখানে কমপক্ষে ১৩১৩ জনের শরীরে এই ভাইরাস শনাক্ত করা হয়েছে। আগের সপ্তাহে এই সংখ্যা ছিল ৫২০। এই ভাইরাসের সার্জ পরীক্ষা এরই মধ্যে বল্টন এবং ফর্মবি সহ ১৫টি শহরে শুরু হয়েছে। এ অবস্থায় সরকারের এসএজিই এবং নার্ভট্যাগ বৈজ্ঞানিক কমিটি আজ বৈঠকে বসার কথা রয়েছে। স্থানীয় সময় বিকাল ৫টায় করোনা মহামারি নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখার কথা প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের।
mzamin
Comments
Loading...