বলটি বৈধ হলে ১ রানে জিতত বাংলাদেশ

0 ১১

নিশ্চিত হেরে যাওয়া ম্যাচেও শেষ ওভারে জয়ের সুযোগ তৈরি করেছিলেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। শেষ ওভারে জয়ের জন্য পাকিস্তানের প্রয়োজন ছিল মাত্র ৮ রান।

শেষ বলে পাকিস্তানের প্রয়োজন ছিল ২ রান। নতুন ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ নওয়াজ শেষ বলটি মোকাবেলার জন্য প্রস্তুত ছিলেন। বল যখন প্রায় পিচ করছে, তখনও ব্যাটসম্যান স্টান্সেই। বল পিচ করার সঙ্গে সঙ্গেই নওয়াজ সরে যান। বল লাগে স্টাম্পে। আম্পায়ার ডেড বলের কল করেন।

নিয়ম অনুযায়ী সামনে দিয়ে কোনো পোকা বা পাখি গেলে, সাইটস্ক্রিনের সামনে বা ওপরে কেউ-কিছু নড়াচড়া করল বা মাঠেই কোনো অস্বস্তি, এরকম নানা কিছুর কারণে ব্যাটসম্যান স্টান্স থেকে সরে যেতে পারে। কিন্তু তখন এমন কিছু হয়নি।

বারবার রিপ্লে দেখে বুঝ যায়, নওয়াজ সরে গেছেন স্রেফ বল তার জোনে ছিল না বলেই। পরিস্থিতির বিবেচনায় স্টাম্পের পেছন থেকে দারুণ বুদ্ধিদীপ্ত কৌশলে বল করেন মাহমুদউল্লাহ। তার সেই কৌশলে বিভ্রান্ত হয়ে স্টান্স থেকে সরে দাঁড়ান নওয়াজ। নিশ্চিতভাবেই এটা অসততা।

এসব ক্ষেত্রে, সিদ্ধান্ত আম্পায়ারের ওপর। তিনিই ঠিক করবেন, ব্যাটসম্যন প্রস্তুত ছিল কী না। আম্পায়ার মনে করেছেন, এটা ডেড বল। মাহমুদউল্লাহও মেনে নিয়েছেন। ম্যাচ শেষে বলেছেন, আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত।

তবে আাম্পায়ার তানভীর আহমেদ যদি সেটি ডেড বল না দিয়ে আউটের সিদ্ধান্ত দিতেন তাহলে বাংলাদেশ ১ রানে জয় পেত। কিন্তু ডেড বল ডাকায় পরের বলে চার মেরে ৫ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে পাকিস্তান।

jugantor

Comments
Loading...