৩০ বছরের পরে, বয়সের ছাপকে বলুন টা টা!

বয়স ৩০ বা তার কাছাকাছি হলে সবাই তাদের ত্বক নিয়ে ভিষণ চিন্তায় পড়ে যায়। তখন ত্বকে বয়সের ছাপ পড়ে ও ত্বক কুচকে যায়।কিন্তু আমি বলবো এ সময় আপনি আপনার ত্বক নিয়ে চিন্তা করবেন না। আজ আমি আপনাদের এই বিষয়ে বলতে আগ্রহী যে,কিভাবে ৩০ এর পর ত্বককে বয়সের ছাপ পড়া থেকে রক্ষা করবেন। এই ক্ষেত্রে সব উপকরণ আপনি আপনার হাতের কাছে পাবেন,তাই উপকরন খুঁজতে কোন কষ্ট হবে না। চলুন তবে শুরু করা যাক।

১।ডিমের প্যাক: যা যা লাগবে:১ টেবিল চামচ ডিমের সাদা অংশ,১/২ টেবিল চামচ মালাই,১/২ টেবিল চামচ লেবুর রস।

প্রণালী:১ টি বাটিতে ডিমের সাদা অংশ ফেটিয়ে নিন।এর মধ্যে লেবুর রস ও মালাই দিয়ে মিশিয়ে নিন।ত্বকে লাগিয়ে ৫ মিনিট অপেক্ষা করুন।ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

২।গাজরের প্যাক: যা যা লাগবে:২ সে:মি: গাজরের টুকরা,১/২ আলু,১ চিমটে বেকিং সোডা,১ চিমটে হলুদ গুড়ো।

প্রণালী:গাজর ও আলু কেটে ভাল করে ধুয়ে নিন।একটি পাত্রে পানি দিয়ে গরম করুন।পানি ফুটে উঠলে এর মধ্যে গাজর ও আলু দিয়ে সিদ্ধ করে নিন।পানি সম্পূর্ণ শুকিয়ে ফেলবেন।এবার এই সিদ্ধ গাজর ও আলু ভাল করে পেস্ট করে নিন।এর মধ্যে বেকিং সোডা ও হলুদ মিশিয়ে নিন।ত্বকে লাগিয়ে ২ মিনিট রাখুন।কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।এটি ত্বক কুচকে যেতে দেবে না ও ত্বক নরম করবে।

৩।গোলাপ জলের প্যাক: যা যা লাগবে:২ টেবিল চামচ গোলাপ জল,১ ফোঁটা গ্লিসারিন,২ ফোঁটা লেবুর রস।

প্রণালী:সব উপকরণ মিশিয়ে নিন।রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ত্বকে লাগান।সাথে পায়ের গোড়ালীতেও লাগান।তাহলে পা ফাঁটবে না।সারা রাত এভাবে রেখে সকালে ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বকে মস্চারাইজারের কাজ করবে।ত্বক নরম ও টানটান করবে।

৪।নারিকেল দুধের প্যাক:পরিমান মতো নারিকেলের দুধ নিয়ে মুখে লাগান। ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন।ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৫।কলার প্যাক: যা যা লাগবে:১ টা পাকা কলা,১/২ টেবিল চামচ দুধ।

প্রণালী: কলা ভাল করে চটকে নিন।এর মধ্যে কাঁচা দুধ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। ত্বকে লাগিয়ে ২০-২৫ মিনিট অপেক্ষা করুন।শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বকের দাগ দূর করবে,ত্বক নরম করবে,ত্বক উজ্জল করবে,ত্বকের বয়সের ছাপ দূর করবে।

print

LEAVE A REPLY