‘জিয়ার লাশ বহনকারীকে নিয়ে দলের এমন উদাসীনতা মেনে নেয়া যায় না’

ঢাকা: বিএনপির স্থায়ী কমিটির প্রয়াত সদস্য হান্নান শাহর মৃত্যুবার্ষিকীতে কেন্দ্রীয়ভাবে কোনো কর্মসূচি পালন না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দলটি স্থায়ী কমিটির অপর সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ স্মৃতি সংসদ আয়োজিত এক স্মরণসভায় তিনি এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, এখানে যারা উপস্থিত আছেন, তাদের ১০ শতাংশও ওয়ান ইলেভেনের দুঃসময়ে জিয়া পরিবারের পাশে ছিলেন না। কিন্তু হান্নান শাহ সেই সময় সবার আগে এগিয়ে এসেছিলেন। এখন তার স্মরণসভা কেন্দ্রীয়ভাবে করা হয় না- এটি খুবই দুঃখজনক।

তিনি বলেন, একদিন আমরাও থাকব না, তখন কেউ আমাদের স্মরণ করবে না। আজ তো গাজিপুরের নেতাকর্মীরা তাকে স্মরণ করছে, কিন্তু আমাদের তাও করা হবে না।

বিএনপির এ নেতা আরো বলেন, গুণীজন বা সিনিয়র নেতাদের সম্মান না দিলে নিজেদেরও কেউ সম্মান দেবে না- এটি পাওয়া যাবে না।

হান্নান শাহর অবদানের কথা স্মরণ করে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, দেশ ও দলের প্রয়োজনে তিনি রাজনীতিতে এগিয়ে এসেছিলেন। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের লাশ তিনিই নিয়ে এসেছিলেন। আর আজ তাকে নিয়েই দলের এমন উদাসীনতা মেনে নেয়া যায় না।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লেফটেন্যান্ট জেনারেল মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে এতে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, বিএনপি চেয়াপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, হাবিব উন নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এ বি এম মোশাররফ হোসেন, নির্বাহী কমিটির সদস্য মেজর অব. মিজানুর রহমান, গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি সাইয়্যেদুল ইসলাম বাবুল, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল অব. সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম, হান্নান শাহ’র কনিষ্ঠ ছেলে শাহ রিয়াজুল হান্নান প্রমুখ।

print

LEAVE A REPLY