রাস্তায় সন্তান প্রসবের ঘটনার প্রতিবেদনে হাইকোর্টের অসন্তোষ

তিন হাসপাতালে ঘুরে রাস্তায় সন্তান প্রসব করার ঘটনায় রাষ্ট্রপক্ষের প্রতিবেদনে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট।

সোমবার বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ দাখিল করা ওই প্রতিবেদনের ব্যপারে অসন্তোষ জানান।

এ সময় আদালত বলেছেন, এ প্রতিবেদন সম্পর্কে যথেষ্ট সন্দেহ আছে এবং প্রতিবেদনের তথ্য পরস্পরবিরোধী।

আদালত এ মামলার পরবর্তী শুনানির জন্য ২৭ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন।

আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস। এছাড়া আইন ও সালিশ কেন্দ্রের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট সেগুফতা তাবাসসুম আহমেদ ও অ্যাডভোকেট আনিসুল হাসান।

গত ১৭ অক্টোবর আজিমপুর মাতৃসদন ও শিশু স্বাস্থ্য প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান আজিমপুর ম্যাটারনিটির সামনে খোলা জায়গায় সন্তান প্রসব করেন পারভীন আক্তার (২৬)।

তার স্বজনদের অভিযোগ ছিল, টাকা দিতে না পারায় শুধু আজিমপুর ম্যাটারনিটি নয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকেও ফেরত আসতে হয়েছে পারভীন আক্তারকে।

পরে ম্যাটারনিটি হাসপাতাল থেকেও তাকে বের করে দেয়া হলে প্রসব বেদনায় রাস্তার ওপর বসে পড়েন পারভীন। সেখানেই সন্তান প্রসব করেন তিনি। প্রথমে নড়াচড়া করলেও কিছুক্ষণের মধ্যেই নবজাতক নিস্তেজ হয়ে পড়ে।

এ ঘটনায় গত ১৯ অক্টোবর স্বপ্রণোদিত হয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

এ ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেয়া হবে না এবং প্রসূতিকে কেন ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে না- তা রুলে জানতে চাওয়া হয়েছে।

এছাড়া ঘটনা তদন্ত করে ১৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলেন আদালত।

print

LEAVE A REPLY