রাজশাহীতে জামায়াতের ১২ নারী কর্মী আটক

রাজশাহী: রাজশাহীতে গোপন বৈঠক করার সময় জামায়াত ইসলামীর ১২ নারী কর্মীকে আটক করেছে মতিহার থানা পুলিশ। এসময় জিহাদি বইপত্রসহ উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সন্ধ্যা ৭টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মতিহারের বেলঘরিয়া এলাকার একটি বাড়ি থেকে তাদের আটক করা হয়।

মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী হাসান বলেন, গোপনে তারা খবর পান মতিহারের বেলঘরিয়া এলাকার মীর হোসেনের বাড়িতে কিছু সংখ্যক নারী গোপন বৈঠক করছেন। এমন সংবাদের ভিত্তিতে তারা ওই বাড়িতে সন্ধ্যায় অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় জামায়াতের নগর শাখার ১২ নারী কর্মীকে আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে ফাঁসি কার্যকর হওয়া জামায়াতের সাবেক আমীর গোলাম আজম ও দণ্ড পাওয়া নায়েবে আমীর দেলোয়ার হোসেন সাঈদীসহ তাদের সংগঠনের বিভিন্ন লেখকের জিহাদী বইপত্র ও লিফলেট জব্দ করা হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। শেষ হলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের আদালতে পাঠানো হবে বলে জানান ওসি মেহেদী হাসান।

এদিকে রাজশাহীতে মেডিকেল ছাত্রীদের উপর ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রাজশাহী ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল টেকনোলজি (আইএইচটি) কলেজে আন্দোলনরত ছাত্রীদের উপর হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। এ ঘটনার পরই ছাত্রীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ছাত্রীরা অভিযোগ করেন, বুধবার সকালে ছাত্রীদের গালিগালাজ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে অধ্যক্ষের রুমের সামনে বিক্ষোভ করতে থাকে ছাত্রীরা। অধ্যক্ষের কক্ষ থেকে বের হলে ছাত্রীদের উপর হামলা করে ছাত্রলীগ।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বহিরাগতসহ ছাত্রলীগের নেতাদের উৎপাত ও নিরাপত্তরার দাবিতে আইএইচটির ছাত্রীরা বুধবার সকালে সাড়ে ১০টার দিকে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষকে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ করে। এতে নেতৃত্ব দেন ছাত্রলীগের নারী কর্মীরা। আন্দোলনে সমর্থন দিয়ে ছাত্রলীগের একটি অংশ তাদের পাশে ছিল। পরে পুলিশ গিয়ে আন্দোলনরত ছাত্রীদের অধ্যক্ষের কক্ষ থেকে বের করে দেয়। ছাত্রীরা অধ্যক্ষের কক্ষ থেকে বের হয়ে হলের সামনে অবস্থান নেয়।

এরপরেই ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক তুহিনের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল বের করে ছাত্রীদের বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়। এক পর্যায়ে পুলিশি ব্যারিকেট ভেঙে আন্দোলনরত ছাত্রীদের মারপিট করে। এসময় ছাত্রদের পাশে থাকা ছাত্রলীগের এক কর্মীকেও মারপিট করে তারা।

হামলায় মিম, জ্যোতি, মোহনা ও নাদিরাসহ পাঁচজন আহত হন। এদের মধ্যে জ্যোতি, মোহনা ও নাদিরাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

নারী ছাত্রলীগ কর্মী নাদিরা জানান, দীঘদিন যাবৎ ছাত্রলীগ সভাপতি জাহিদ ও সাধারণ সম্পাদক তুহিনসহ তার অনুসারীরা ছাত্রীদের বিভিন্নভাবে নির্যাতন করে আসছে।

তাদের এমন আচরণের কারণে গত ৩ নভেম্বর ছাত্রলীগের নারী কর্মীরা তাদের কর্মসূচিতে উপস্থিত হয়নি। জাহিদ ও তুহিন নগর ছাত্রলীগের কর্মসূচিতে অংশগ্রহণে বাধা দিতে হলের গেটে তালা দেয়।

এসময় তারা দুই নারী ছাত্রলীগ কর্মীকে চড়থাপ্পড় মারে। এরপর থেকে তাদের হলের সাধারণ ছাত্রীসহ নারী ছাত্রলীগ কর্মীদের উপর নির্যাতন বেড়ে যায়। এর প্রতিবাদে তারা অধ্যক্ষের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করে।

নাদিরা আরও জানান, কয়েকমাস আগে জাহিদ ও তুহিনের ছাত্রত্ব শেষ হয়ে গেছে। এরপরও ছাত্রলীগের নেতৃত্ব থেকে বিভিন্নভাবে ছাত্রীদের নির্যাতন করে আসছে।

রাজপাড়া থানার ওসি হাফিজুর রহমান হাফিজ জানান, আন্দোলনরত ছাত্রীদের উপর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালানোর চেষ্টা করে। এসময় পুলিশ গিয়ে তাদের প্রতিহত করে। ক্যাম্পাসে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

অধ্যক্ষ ডা. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘বিভিন্ন দাবি নিয়ে ছাত্রীরা আমার কাছে এসেছিলো। দাবি মানার আশ্বাস দিয়ে ছাত্রীদের হলে পাঠানো হয়। কিন্তু হলের সামনে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে।

print

LEAVE A REPLY