তাজমহলের রং বদল নিয়ে উদ্বিগ্ন ভারত

সাদা মার্বেল পাথরে তৈরি তাজমহল দেখতে প্রতিদিন ভিড় জমান অন্তত ৭০ হাজার পর্যটক। সেই তাজমহলের রং বদলের খবরে উদ্বেগ পৌঁছেছে ভারতীয় সুপ্রিমকোর্টেও।

সুপ্রিমকোর্ট এবার সরকারকে নির্দেশনা দিয়ে বলেছেন, দরকার হলে সমস্যা সমাধানে বিদেশিদের সহায়তা নিতে।

কোর্ট সরকারকে বলেছে, নিজেদের বিশেষজ্ঞ থাকলেও তার ব্যবহার আপনারা করছেন না অথবা বিষয়টিকে আপনারা গুরুত্বই দিচ্ছেন না।

একই সঙ্গে তাজমহলের রং বদলকে কোর্টের তরফ থেকে উদ্বেগজনক পরিবর্তন হিসেবেও আখ্যা দেয়া হয়েছে।

সপ্তদশ শতকে সাদা মার্বেল পাথরে তৈরি এই অসাধারণ স্থাপনা ইতোমধ্যেই হলুদ আকার ধারণ করেছে এবং সেটি এখন বাদামি ও সবুজ হয়ে যাচ্ছে বলে বলছেন আদালত।

দূষণ, নির্মাণকাজ ও কীটপতঙ্গের মল তাজমহলের এ অবস্থার জন্য দায়ী বলে মনে করা হয়।

পরিবেশবাদীদের জমা দেয়া ছবি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে আদালত সরকারকে ভারত কিংবা প্রয়োজনে দেশের বাইরে থেকে বিশেষজ্ঞদের এনে পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন।

এর আগে ভারত সরকার তাজমহলের আশপাশের অনেক কলকারখানা বন্ধ করে দিয়েছিল। কারণ অনেক দিন ধরেই তাজমহলের রং বদলের খবরে উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়ছিল।

তাজমহল যে যমুনা নদীর তীরে সেই নদীর অবস্থা শোচনীয়। সেখানকার কীটপতঙ্গের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তাজমহলের দেয়াল। মুঘল সম্রাট শাহজাহানের সময়ে আগ্রা শহরে তৈরি হয়েছিল তাজমহল, যা দেখতে প্রতিদিন প্রায় ৭০ হাজার মানুষ ভিড় করেন সেখানে।

নোংরা হওয়ার সমস্যা তাজমহলের জন্য নতুন নয়, এমনকি গত দুই দশকে পরিষ্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে অনেক বার। কিন্তু সমস্যাটি আসলে দিন দিন প্রকটই হচ্ছে।

গত জানুয়ারিতেও একবার কাদামাটি পরিষ্কার করা হয়েছে এবং বছরের শেষ দিকে আবারও পরিচ্ছন্নতা অভিযানের কথা রয়েছে।

এর মধ্যেই প্রয়োজনে বিদেশ থেকে বিশেষজ্ঞ আনার নির্দেশনা দিয়েছেন সুপ্রিমকোর্ট। আগামী ৯ মে তাজমহল বিষয়ে আবার শুনানি হবে আদালতে।

print

LEAVE A REPLY