আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা ও নিপীড়ন আইনের শাসন বিরোধী: জার্মানী

‘কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের’ ওপর গত কয়েক দিন ধরে ঘটে যাওয়া হামলার ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছে ঢাকার জার্মান দূতাবাস। দূতাবাসের ফেসবুক পাতায় দেওয়া এক পোস্টে কোটা সংস্কার আন্দোলনের উল্লেখ না করে বিগত কয়েকদিনে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকারীদের ওপর হামলায় উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

বুধবার জার্মান দুতাবাসের ফেসবুক পাতায় লেখা হয়েছে, বাক ও মতের স্বাধীনতা এদেশের সাংবিধানিক অধিকার। এসব অধিকার ক্ষুণ্ণ করতে চালানো হামলা ও নিপীড়ন আইনের শাসনের বিরোধী আর বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মূলনীতিকে এড়িয়ে পেছন দিকে হাঁটার শামিল।

উল্লেখ্য, সরকারিতে চাকরিতে প্রচলিত কোটা পদ্ধতি সংস্কারের ঘোষণা সম্বলিত প্রজ্ঞাপন জারির দাবিতে রাজপথে আন্দোলনে নেমেছে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় গত কয়েকদিনে ঢাকা এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত ছাত্রদের ওপরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, সরকার সমর্থিত ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এই হামলা চালিয়েছে। এমনকি হামলার পর কিছু ছাত্রকে থানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হলে তাদের বিভিন্ন পুরনো মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এসব হামলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অভিভাবক সমাবেশ ও মানববন্ধন করতে গিয়ে পুলিশের হাতে আটক হন এক অধ্যাপকসহ এক সাবেক ছাত্রনেতা। এসময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষককেও লাঞ্ছিত করে পুলিশ। পরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

print

LEAVE A REPLY