‘ধীরে ধীরে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে’

0 ৮৮

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘আল্লাহর অশেষ মেহেরবানিতে ম্যাডামের করোনা নেগেটিভ এসেছে। তাঁর যে শারীরিক সমস্যাগুলো ছিল সেগুলো ক্রমান্বয়ে উন্নতি হচ্ছে। আজও একটু আগে চিকিৎসকদের সঙ্গে আমার কথা হয়। তারা জানিয়েছেন, ম্যাডামের শারীরিক অবস্থা ধীরে ধীরে উন্নতি হচ্ছে।’

আজ রোববার দুপুরে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন বিএনপির মহাসচিব।

এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘করোনা এমন একটি রোগ, যেটি একজন বয়স্ক মানুষের জন্য অত্যন্ত উদ্‌বেগের কারণ। যাদের ডায়াবেটিস, কিডনি জটিলতা, উচ্চরক্তচাপ আছে তাদের জন্য উদ্‌বেগের কারণ হয়ে ওঠে। খালেদা জিয়া করোনায় আক্রান্ত হওয়ার আজ এতদিন পরও আতঙ্কের বাইরে নয়। সেজন্য চিকিৎসকেরা উদ্‌বেগের সঙ্গে তাঁর চিকিৎসা করছেন।’

খালেদা জিয়াকে কোন দেশে নেওয়া হবে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এটি নির্ভর করবে সরকারের সিদ্ধান্তের ওপর। উনাকে কোথায় নেওয়া হবে, কোন দেশে নেওয়া হবে- সরকারের সিদ্ধান্ত আসার পর পরবর্তী ব্যবস্থা।’

এ ছাড়া সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে হওয়া সিদ্ধান্তগুলো তুলে ধরেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে সরকার দুর্নীতির স্বার্থে বিকল্প ব্যবস্থা না রেখে নিজেদের পছন্দের প্রতিষ্ঠানকে টিকা আমদানির অনুমতি দিয়েছে। যদিও এখন কোনো উপায় না পেয়ে চীন ও রাশিয়ার সঙ্গে টিকা আমদানির চুক্তি করছে।’

সংবাদ সম্মেলনে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভার নির্বাচনে বিজয়ী তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিএনপির পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানান তিনি।

ঈদকে সামনে রেখে গণপরিবহণ বন্ধ থাকায় ঘরমুখী মানুষের ভোগান্তির বিষয় তুলে ধরে মির্জা ফখরুল ইসলমা আলমগীর বলেন, ‘সরকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়ে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। তারা জনগণকে স্বাস্থবিধি মানাতে পারেনি। সবচেয়ে আশঙ্কাজনক হচ্ছে ভারতীয় করোনার ধরন বাংলাদেশে পাওয়া গেছে।’

প্রবাসী শ্রমিকদের কথা উল্লেখ করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘যারা দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে তাদের বিষয়ে সরকারের কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নেই।’

এ ছাড়া সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের ১৫০ জনের নিয়োগের সমালোচনা করেন।

খালেদা জিয়ার বিষয়ে সরকারের কয়েকজন মন্ত্রীর বক্তব্যের সমালেচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘জনগণের ভোটে তিনবার নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীর সম্পর্কে যখন কথা বলবেন তখন রাজনৈতিক শিষ্টাচার বজায় রেখে কথা বলবেন। যদিও এগুলো আপনাদের ডিকশনারিতে নেই। মনে রাখবেন, আজকের দিনটিই শেষ দিন নয়।’

Comments
Loading...