ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কী ঘটেছিলো?

0 ১০৩

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কী ঘটেছিলো?

প্রায় সকল মিডিয়া লিখছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সাম্প্রতিক ধ্বংসযজ্ঞের দিন (রোববার) সকাল থেকেই বিজিবি ও পুলিশের শক্ত অবস্থান ছিলো। কিন্তু তারপরে কী হলো? দেখুন বাংলাদেশ প্রতিদিন কী লিখছে।
“পরদিন হরতাল চলাকালে সকাল থেকে পুলিশ ও বিজিবি শহরের মোড়ে মোড়ে অবস্থান নিলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে হেফাজত কর্মীদের শহরে প্রবেশ। অদৃশ্য হয়ে যান শহরে অবস্থানকারী আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা”…..
সমকাল লিখছে, “শহরের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় বিজিবিসহ অতিরিক্ত ফোর্স মোতায়েন করা হলেও হিংসাত্মক কার্যক্রম চলাকালে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের দেখা যায়নি।” …
এমনকি পুলিশ বিজিবি বাহিনীর বিরুদ্ধে “নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তোলেন জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সংসদ সদস্য আ ম উবায়দুল মুক্তাদির চৌধুরী”। তিনি বলেছেন এটার সাথে আছে এক “তৃতীয় পক্ষ”। ওবায়দুল মুক্তাদির সাক্ষ্য দিচ্ছেন এই তথাকথিত তাণ্ডব হেফাজত করেনি। তাহলে এই তৃতীয় পক্ষ কে?
সেখানকার ভুমি অফিসে আগুন দেয়া হয় বেলা ১২ ১০ মিনিটে। কেউ আগুন নেভাতে আসেনি। আগুন দেয়ার প্রায় দেড় ঘন্টা পরে যখন ডেইলি স্টারে এনিয়ে সংবাদ ছাপা হচ্ছে তখন লেখা হচ্ছে, “এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ভবন দুটিতে আগুন জ্বলছিল। আগুন নেভাতে কাউকে এগিয়ে আসতে দেখা যায়নি।” কেন? ওই শহরে দমকল নাই?
বাংলাদেশ প্রতিদিন রিপোর্টে বলছে, “ব্রাহ্মণবাড়িয়া তান্ডবের ঘটনা অনেকটাই পরিকল্পিত বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।”
এই পরিকল্পনা কার?
ঘটনার সুত্রপাত হয়েছে আওয়ামী লীগের মিছিল থেকে জামেয়া ছাত্রাবাসে হামলা চালানোতে। এবিষয়ে বাংলাদেশ প্রতিদিন বলেছে, “সরকারি নির্দেশনা না মেনে মিছিল করায় পরবর্তী পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে বলে একজন পদস্থ সরকারি কর্মকর্তা জানান।”
ডেইলি স্টার রিপোর্ট করছে হরতাল সমর্থকদের মধ্যে থাকা “একদল বহিরারাগত” এই ঘটনাগুলো ঘটিয়েছে। হেফাজতের একজন নেতা প্রথম আলোকে বলেছেন, বিক্ষোভকারীদের নিয়ন্ত্রন করা যায়নি। কেন এটা হলো? মাদ্রাসার ছাত্ররা শিক্ষকদের তাদের “ওস্তাদের” কথা শুনবে না এটা অবিশ্বাস্য। এই বহিরাগতরা তো মাদ্রাসা ছাত্র না তাহলে।
এই বহিরাগত কারা? এই পরিকল্পনা কার? এই বহিরাগতরা নিরাপদে বাধাহীন ভাবে যেন কাজ চালাতে পারে সেইজন্যই কী আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী অদৃশ্য হয়ে গিয়েছিলো? আগুনটা যেন ভালোভাবে সবকিছু পুড়িয়ে দিতে পারে সেইজন্যই কী দমকল আসেনি? মাদ্রাসা ছাত্ররা যেন রাস্তায় নেমে আসে সেইজন্যই কী আগের রাতে জামেয়া ছাত্রাবাসে হামলা চালানো হয়েছিলো?
আর এসবকিছু মঞ্চস্থ করে বাম স্যেকুলারদের ভয় দেখিয়ে অনুগত রেখে আর পৃথিবীকে ইসলামী জঙ্গিদের উত্থান দেখানোর পরিকল্পনা ছিল কারো?
প্রশ্ন হচ্ছে এই পরিকল্পনাটা কার?
(উপরের তথ্য ও প্রশ্নগুলো পুরোটাই পিনাকী ভট্টাচার্যের একটি পোস্ট থেকে নেয়া)

ডঃ আসিফ নজরুলের ফেসবুক থেকে

Comments
Loading...