লাগামহীন খেলাপি ঋণ, তিন মাসে বাড়ল ৬ হাজার ৮০২ কোটি টাকা

0 ৭৪

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে ঋণ বা ঋণের কিস্তি পরিশোধে বিশেষ ছাড় দিয়েও খেলাপি ঋণের ঊর্ধ্বগতির লাগাম টানা যাচ্ছে না। গত ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত- এই তিন মাসে ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণের অঙ্ক বেড়েছে ৬ হাজার ৮০২ কোটি টাকা। ওই সময় পর্যন্ত খেলাপি ঋণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৫ হাজার ৮৫ কোটি টাকা। যা বিতরণ করা মোট ঋণের ৮ দশমিক ০৭ শতাংশ। গত ডিসেম্বর পর্যন্ত এটি ছিল ৮৮ হাজার ২৮৩ কোটি টাকা।

গত মার্চ পর্যন্ত তৈরি করা বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। প্রতিবেদনটি মঙ্গলবার বিকালে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির অনুমোদন করেছেন।

প্রতিবেদন থেকে পাওয়া তথ্যে দেখা যায়, গত মার্চ পর্যন্ত ব্যাংকিং খাতের বিতরণ করা মোট ঋণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১ লাখ ৭৭ হাজার ৬৫৮ কোটি টাকা। এর মধ্যে খেলাপি হয়েছে ৯৫ হাজার ৮৫ কোটি টাকা। তিন মাস আগে গত ডিসেম্বরে খেলাপি ঋণ ছিল ৮৮ হাজার ২৮৩ কোটি টাকা। সে হিসাবে গত তিন মাসে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৬ হাজার ৮০২ কোটি টাকা। গত বছরের মার্চে খেলাপি ঋণ ছিল ৯২ হাজার ৫১০ কোটি টাকা। মার্চের তুলনায় খেলাপির অঙ্ক বেড়েছে ২ হাজার ৫৭৪ কোটি টাকা।

করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় ঋণগ্রহীতাদের বড় ছাড় দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গত বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ঋণ ও ঋণের কিস্তি পরিশোধে বড় ছাড় দেওয়া হয়েছে। এগুলো পরিশোধে ব্যর্থ হলেও কোনো ঋণকে খেলাপি করা হয়নি। বর্তমানেও অনেক ঋণের বিপরীতে কিস্তি পরিশোধে ছাড় বহাল রয়েছে। কিস্তি পরিশোধে ব্যর্থতার কারণে খেলাপি করার ক্ষেত্রেও অনেক ঋণে ছাড় বহাল রয়েছে। তবে কিছু খাতে গত ১ জানুয়ারি থেকে কিস্তি পরিশোধ না করলে খেলাপি করা হচ্ছে। এ কারণে গত তিন মাসেই খেলাপি ঋণের পরিমাণ বেড়ে গেছে।

উৎসঃ   banglatribune
Comments
Loading...