থানা থেকে ছিনিয়ে নিয়ে দুই ধর্ষককে পিটিয়ে হত্যা

0

শিশুকে ধর্ষণের পর গলা কেটে হত্যার ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। খবর পেয়ে উত্তেজিত জনতা থানা ভেঙে অভিযুক্তদের বের করে এনে নগ্ন করে শহর ঘোরায়। এরপর শহরের প্রাণকেন্দ্রে এনে পিটিয়ে দুই ধর্ষককে হত্যা করে ফেলে রাখা হয়। এঘটনা ঘটে ভারতের অরুণাচলের লোহিত জেলার ওয়াক্রো এলাকায়।

পুলিশ সূত্র সংবাদ মাধ্যমকে জানায়, নামগো মিসিং গ্রামের ৫ বছরের এক কন্যাশিশু গত ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে নিখোঁজ ছিল। ১৭ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় চা বাগানের কাছে ঝোঁপের মধ্যে শিশুটির গলাকাটা, লাশ দেখতে পায় পুলিশ।

এ ঘটনায় গত রোববার টেঙাপানি গ্রাম থেকে সঞ্জয় সুবুর (৩০) ও জগদীশ লোহার (২৫) নামে দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়। তারা দোষ স্বীকার করে জানায়, ধর্ষণ করার সময় মেয়েটি চিৎকার করছিল, তাই তার মাথা কেটে দেয়া হয়েছিল।

স্থানীয় অধিবাসীদের দাবি ছিল, জঘন্য অপরাধে অভিযুক্তদের জনতার হাতে তুলে দিতে হবে। কিন্তু পুলিশ তাদের ফাঁড়ি থেকে তেজু থানায় নিয়ে আসে। ভোরের দিকে সশস্ত্র অধিবাসীরা থানায় আক্রমণ চালায়। দরজা ভেঙে সুবুর ও লোহারকে ছিনিয়ে নেয় তারা। নগ্ন করে শহর ঘুরানো হয়। একসময় শহরের প্রাণকেন্দ্রে এনে পিটিয়ে হত্যা করা হয় তাদের। পরে পুলিশ গিয়ে লাশ দুটি উদ্ধার করে।

এর আগেও ২০১৫ সালে ডিমাপুর জেল ভেঙে ধর্ষণে অভিযুক্ত এক যুবককে বের করে এনে উত্তেজিত জনতা একই কায়দায় নগ্ন করে শহর ঘোরায়। পরে ক্লক টাওয়ারে তাকে ফাঁসিতে ঝোলানো হয়েছিল।

Comments
Loading...