ফেসবুকে কমেন্ট নিয়ে বরগুনায় দফায় দফায় সংঘর্ষ

0

বরগুনার বামনা উপজেলায় ফেসবুক পোস্টে কমেন্ট করাকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত সাতজন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে তিনজন গুরুতর হওয়ায় তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বামনার ডৌয়াতলা ইউনিয়নের ডৌয়াতলা বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

আহত আসিফ ও রিন্টু ডৌয়াতলা ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ও স্থানীয় বিএনপি নেতা মো: শফিকুল ইসলাম রাজার ছেলে। আহত অপরজন হলেন ওই এলাকার মৃত বেলায়েত হোসেন খানের ছেলে ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন খান।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন প্রতক্ষ্যদর্শী জানান, বামনা উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক সাদিকুর রহমান সাদেকের একটি পোস্টে কমেন্ট করেন ডৌয়াতলা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন খান। জসিম উদ্দিনের সেই কমেন্টকরাকে কেন্দ্র করে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আহত আসিফের বড় বোন ও সাদেকের স্ত্রী তানিয়া ডৌয়াতলা বাজারস্থ ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম রাজার বাসার সামনে জসিম উদ্দিনের গতিরোধ করে তাকে জুতা দিয়ে পেটান। এ সময় জসিম উদ্দিন তানিয়াকে একটি থাপ্পর দিলে তানিয়ার মা নাসিমা বেগম দৌড়ে এসে জসিমকে মারধর শুরু করেন।

এ সময় নাসিমা বেগমের চিৎকারে ঘরে থাকা আসিফও দৌড়ে এসে জসিমকে মারধর শুরু করলে জসিম উদ্দিন দৌড়ে গিয়ে সবুজের দোকানে আশ্রয় নেন। খবর শুনে আহত আসিফের বাবা শফিকুল ইসলাম রাজা ঘটনাস্থলে এসে ইউনিয়ন পরিষদে সালিশ মীমাংসার কথা বলে জসিমকে তার বাড়িতে পাঠান।

কিন্তু বাড়িতে যাওয়ার সময় বামনা উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক, তানিয়ার স্বামী সাদিকুর রহমান সাদেক জসিম উদ্দিনকে লাঠি নিয়ে ধাওয়া করলে জসিম উদ্দিন দৌড়ে জনৈক কালামের হার্ডওয়ার দোকানে আশ্রয় নেন। এ সময় বাগ্বিতণ্ডার একপর্যায়ে জসিম দোকানে থাকা টিউবওয়েলের হাতল ছুড়ে মারলে আসিফের মাথায় লেগে মাথা ফেটে যায়। এ সময় আসিফের বড় ভাই রিন্টুও পায়ে আঘাত পান।

এরপর ওই টিউবওয়েলের হাতল রিন্টু জসিম উদ্দিনকে ছুড়ে মারলে তার গায়ে লেগে তিনিও আহত হন। আহত তিনজনই বর্তমানে বামনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

এ বিষয়ে বামনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বশিরুল আলম বলেন, উভয় পক্ষ চিকিৎসাধীন আছে। ডৌয়াতলা বাজারের বর্তমান পরিস্থিতি শান্ত আছে। তবে এখন পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ পাইনি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

nayadiganta

Comments
Loading...