পুলিশ পাহারায় ক্যাম্পাস ছাড়লেন রাবি উপাচার্য

0 ৬৫

মেয়াদ পূর্ণ করে শেষ দিন পুলিশ পাহারায় ক্যাম্পাস ছাড়লেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি সপরিবারে ক্যাম্পাস ছাড়েন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসভবন থেকে বের হয়ে উপাচার্য সাংবাদিকদের বলেন, দায়িত্ব পালনকালে আমি সবসময় আপনাদের সহযোগিতা পেয়েছি। সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আমার জন্য দোয়া করবেন।

উপাচার্য নগরীর চৌদ্দপাই এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয় হাউজিং সোসাইটির (বিহাস) নিজ বাড়িতে উঠেছেন বলে জানা গেছে।

উপাচার্য তাঁর নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে জবাবে বলেন, ‘আমি কখনোই নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত হইনি, এখনও শঙ্কিত নই।’

এর আগে, আজ সকাল থেকে উপাচার্য এম আব্দুস সোবহান বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পদে ১৪১ জনকে অ্যাডহকে নিয়োগ দিয়েছেন বলে গুঞ্জন উঠে। এমন খবর পেয়ে দুপুরে চাকরি প্রত্যাশী মহানগর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ক্যাম্পাসে অবস্থান নেন। তাদের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ধরনের নিয়োগের ওপর সরকারের নিষেধাজ্ঞা আছে। উপাচার্য অ্যাডহকে নিয়োগ দিচ্ছেন এমন সংবাদের ভিত্তিতে তারা তা প্রতিহত করতে ক্যাম্পাসে আসেন।

একপর্যায়ে মহানগর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তাদের ওপর হামলা চালায়। এ সময় রাবি ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী এগিয়ে এলে তাদের উপরও হামলা চালানো হয়। রাবি ছাত্রলীগ সংগঠিত হয়ে ধাওয়া করলে মহানগর ছাত্রলীগের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয়। পরে পুলিশ লাঠিচার্জ করলে মহানগর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ক্যাম্পাস থেকে পালিয়ে যান।

২০১৭ সালের ৭ মে রাবির উপাচার্য হিসেবে দ্বিতীয়বার নিয়োগ পান ফলিত পদার্থবিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান। সেই নিয়োগের চার বছর শেষ হয় বৃহস্পতিবার। এর আগে ২০০৯ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০১৩ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তিনি উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

উপাচার্য পদে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে দুর্নীতির নানা অভিযোগে অধ্যাপক সোবহানকে বারবার বিতর্কের মুখে পড়তে হয়েছে। শিক্ষক নিয়োগ নীতিমালার পরিবর্তন করে নিজ মেয়ে ও জামাতাকে নিয়োগ, রাষ্ট্রপতিকে অসত্য তথ্য দিয়ে অবসরগ্রহণ, বিভিন্ন নিয়োগে স্বজনপ্রীতি ও দুর্নীতিসহ বিস্তর অভিযোগ নিয়ে বিদায় নিলেন তিনি।

Comments
Loading...