খুন, দখল, জালিয়াতির মচ্ছব

0

vote_jaliyati1-311x186চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের পঞ্চম ধাপে দেশের বিভিন্ন জায়গায় সংঘর্ষ, কেন্দ্র দখল, জালভোট প্রদান, জোর-জবরদস্তি করে সমর্থন আদায়ের চেষ্টা, বিরোধী দলের ওপর নির্যাতনসহ নানা অনিয়মের ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় অন্তত একজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অনেকে। এছাড়া ভোটগ্রহণ স্থগিত এবং ব্যাপক হারে নির্বাচন বর্জনের ঘটনা ঘটেছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এমন নির্বাচন সাধারণ ভোটারদের মধ্যে আস্থার সংকট সৃষ্টি করেছে। গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে কলুষিত করেছে।

লক্ষ্মীপুরে যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা : লক্ষ্মীপুর সদরের দিঘলী ইউনিয়নের দুর্গাপুর গ্রামে কবির হোসেন (৩০) নামে যুবলীগের এক নেতাকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তিনি দিঘলী ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। সোমবার ভোর রাত সাড়ে তিনটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, ভোররাত সাড়ে তিনটার দিকে ভোটকেন্দ্র থেকে বাড়ি ফেরার পথে তিনজন গুলিবিদ্ধ হন। ঘটনাস্থলে মারা যান কবির। কে বা কারা গুলি করেছে, তা নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ। তবে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী এ কে এম সালাহউদ্দিন টিপুর দাবি, পোস্টার নিয়ে যাওয়ার সময় প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা কবিরকে গুলি করে হত্যা করেছে।

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কেন্দ্র দখলের মহোৎসবকরেছে ক্ষমতাসীন সরকার দলীয় প্রার্থীর সমর্থকরা। এছাড়া বিচ্ছিন্ন সংঘর্ষ, মহিলা ভোটারদের মারধর ব্যাপক জালভোটের ঘটনাও ঘটেছে। এর মধ্যে দুটি কেন্দ্রেভোট গ্রহণ স্থাগিত করতে বাধ্য হয় প্রিজাইডিং কর্মকর্তা।। কয়েকটি কেন্দ্রেদুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে পুলিশ কনেসটেবল ৫০ জন আহত হয়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, চর আবাবিল রচিমউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় ওহায়দারগঞ্জ তাহেরিয়া আরএম ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসা কেন্দ্র কেন্দ্রীয়যুবলীগের সদস্য মোহাম্মদ আলী খোকনের নেতৃত্বে দখল করে রাখা হয়েছে। তিনি ভোটকেন্দ্রে আসা পুরুষ ও নারী ভোটারদের বাধা দেন। এখানে সকাল ১১টায় দুইপ্রার্থীর সমর্থকদের মাঝে সংঘর্ষে ৯ জন আহত হয়।

ফেনীর ছাগলনাইয়ে ভোট ডাকাতি : পঞ্চম ধাপের উপজেলা নির্বাচনে ফেনীর ছাগলনাইয়ার অধিকাংশ কেন্দ্রে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী মেসবাহুল হায়দার চৌধুরীর পক্ষে ভোট ডাকাতির অভিযোগ এনেছেন ১৯ দলের প্রার্থী নুর আহমেদ মজুমদার। নুর আহমেদ মজুমদার অভিযোগ করেন, “পার্শ্ববর্তী উপজেলা থেকে ভাড়াটেসন্ত্রাসী এনে প্রশাসনের সহায়তায় ভোটকেন্দ্র দখল, জাল ভোট, আগের রাতে ব্যালটে সিলমারা এবং এজেন্টদের বের করে দেয়াসহ সব ধরনের কর্মকাণ্ড চালায়ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, “ভোটাররা ভোট দিতে না পেরে গম্ভীর হয়ে কেন্দ্রথেকে বেরিয়ে যাচ্ছে। ভোট শুরু হয়েছে সকাল আটটায় তার আগেই অধিকাংশ কেন্দ্রেরব্যালটে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থির পক্ষে আনারস মার্কায় সিলমারা হয়েগেছে।”

পাঠান নগর কেন্দ্র থেকে এরকম সিলমারা ১৮১৩টি সিলমারা ব্যালট পাওয়া গেছে।ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার আহমদ হোসেন এর সত্যতাও স্বীকার করেছেন। তবেকিভাবে সিলমারা হয়েছে তা তিনি বলতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন।”

ঘাটাইলে গুলিবিদ্ধ ৭ : ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলানির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারীদের একাংশের সমর্থকরা। কেন্দ্র দখলেরপ্রতিবাদে আন্দোলনকারীদের সরিয়ে দিতে পুলিশ গুলি ছুঁড়েছে। এতে পাঁচজনগুলিবিদ্ধ হয়েছেন। সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আহত ব্যক্তিরা হলেন দেউলাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপিরনেতা কবির তালুকদার (৫৫), সিদ্দিক (৩৫), ঠাণ্ডু (৫০), আশরাফুল (৩৫) ও কবীর (৪০)। এদের মধ্যে কবির তালুকদারকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ওঅন্যদের ঘাটাইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ব্যাপক কারচুপির অভিযোগে সকালেই ভোট বর্জন করেন বিএনপি, জামায়াত ও জাতীয় পার্টির সাত প্রার্থী। পরে এ নির্বাচন স্থগিত করে পুনরায় নির্বাচনের দাবিতে ঘাটাইল উপজেলা পরিষদ ঘেরাও করেন ভোট বর্জনকারীদের সমর্থকরা। এসময় পুলিশ তাদের সরিয়ে দিতে লাঠিচার্জ করে।

এদিকে বিক্ষোভকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছোঁড়েন। একপর্যায়ে পুলিশও ২৫ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ১২ রাউন্ড টিয়ার শেল ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় তারা আহত হয়।

নোয়াখালিতে ব্যালটবাক্স ছিনতাই, গুলিবিদ্ধ ২ : নোয়াখালীর সুবর্নচর উপজেলায় ব্যালট বক্স ছিনতাইকালে পুলিশের গুলিতে দুই জন আহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধরা হলেন- কামাল ও জাবেদ।

সহকারি রিটানিং অফিসার মেহেদী হাসান জানান, সোমবার বেলা ১২টার দিকে উপজেলার পশ্চিম চরজব্বর গোলাম মাওলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। আহতদেরকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

তিন জেলায় ১০টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত : আওয়ামীলীগ-সমর্থিত প্রার্থীর লোকজন ব্যালট ছিনতাই করে বাক্স ভর্তি করার অভিযোগেবরগুনার আমতলী উপজেলার ছয়টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। কেন্দ্রগুলো হচ্ছে গুলিশাখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, উত্তর-পূর্ব কলাগাছিয়াসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কলাগাছিয়া জনতা কে এইচ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, আঙ্গুলকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, খেকুয়ানি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ওঘটখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। জাল ভোট দেওয়া ও ব্যালট পেপারছিনতাইয়ের ঘটনায় রাঙামাটি সদর উপজেলার সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ভোটকেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়।

সংঘর্ষের কারণে লক্ষ্মীপুরসদর উপজেলার তিনটি কেন্দ্র, দত্তপাড়া ইউনিয়নের পশ্চিম করইতলা সরকারিপ্রাথমিক বিদ্যালয়, দীঘলি ইউনিয়নের পশ্চিম জামিরতলী সরকারি প্রাথমিকবিদ্যালয় ও হাজিরপাড়া ইউনিয়নের উত্তর চন্দ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে।

বিভিন্ন জেলায় ৫৮ প্রার্থীর ভোট বর্জন : ক্ষমতাসীন দল-সমর্থিতপ্রার্থীদের কর্মী-সমর্থকদের ভোটকেন্দ্র দখল করে নানা অনিয়মের প্রতিবাদেময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে বিএনপি-সমর্থিতএকজন, চুয়াডাঙ্গা সদর ও আলমডাঙ্গায় ১১ জন,জামালপুরের মাদারগঞ্জে বিএনপি-সমর্থিত একজন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী, টাঙ্গাইলের ঘাটাইল ও সদরে বিএনপি, জাতীয় পার্টি (জাপা), স্বতন্ত্রপ্রার্থীসহ ১১ জন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় বিএনপি ও জাপা-সমর্থিত প্রার্থীসহচারজন, পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় সাতজন, বরগুনার পাথরঘাটা, আমতলী ও বামনাউপজেলায় ২০, কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রামে একজন এবং নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারেদুজন প্রার্থী নির্বাচন বর্জন করেছেন।

জালভোট, নির্বাচন বর্জন, ক্ষমতাসীনদের কেন্দ্র দখল এবং সংঘর্ষের মধ্য দিয়েশেষ হয় চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের পঞ্চম দফায় ৭৩টি উপজেলা পরিষদেরনির্বাচন।

সূত্রঃ পরিবর্তন

Comments
Loading...