দুই জন ছাত্রীকে গর্ভপাত ও ছাত্রীদের সঙ্গে যৌন কেলেঙ্কারি: শিক্ষক বহিষ্কৃত

0

sikkok.thumbnailঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি: পরীক্ষার আগেই প্রশ্নপত্র দেয়ার নাম করে ছাত্রীদের সঙ্গে যৌন সম্পর্কের দায়ে বহিষ্কার হলেন কলেজশিক্ষক আদিল মিয়া।

সোমবার কলেজ পরিচালনা কমিটির সভায় তাকে বহিষ্কার করা হয়। তিনি ঈশ্বরগঞ্জের উচাখিলা উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক।

তার বিরুদ্ধে ছাত্রীদের অশ্লীল অডিও রেকর্ড বাজারে ছেড়ে অভিভাবকদের ব্ল্যাকমেইল করারও অভিযোগ রয়েছে।

এলাকাবাসী, কলেজ ও শিক্ষার্থী সূত্রে জানা গেছে, ওই কলেজে খণ্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে ইংরেজি বিষয়ের জন্য তিন বছর আগে নিয়োগ পান রাজীবপুর ইউনিয়নের মমরেজপুর গ্রামের আব্দুল হাইয়ের ছেলে আদিল মিয়া।

কলেজের পাশাপাশি তিনি স্থানীয় ডিজিটাল কোচিং সেন্টারেও শিক্ষকতা করতেন। কিন্তু কলেজে যোগদানের পর থেকেই তিনি ছাত্রীদের বিশেষ ক্লাস ও প্রাইভেট পড়ানোর নামে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন। ছাত্রীদের শুধু বিশেষ ক্লাস নয়, পরীক্ষার আগেই প্রশ্নপত্র দেয়ার নাম করে অনৈতিক সম্পর্ক গড়তে বাধ্য করেন তিনি।

ছাত্রীদের সঙ্গে অনৈতিক কাজের সময় তার অডিও রেকর্ড করে ফাঁদে ফেলে এসব কাজ চালিয়ে যান। কিন্তু ছাত্রীদের সঙ্গে তার এসব অনৈতিক কর্মকাণ্ডের রেকর্ড স্থানীয় বাজারে ছড়িয়ে পড়ায় সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীরা কলেজে আসা বন্ধ করে দেয়। অনেক শিক্ষার্থী আত্মহত্যাও করতে যান। আত্মসম্মানের ভয়ে নির্যাতিত কোনো শিক্ষার্থী লিখিত কোনো অভিযোগ দায়ের করেন নি।

কিন্তু ছাত্রীদের সঙ্গে শিক্ষকের অশ্লীল ভাষার অডিও রেকর্ড ছড়িয়ে পড়ায় তোলপাড় শুরু হয়।

কলেজ শিক্ষকের এসব অনৈতিক কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা ও তাকে কলেজ থেকে বহিষ্কারের দাবিতে গত ১৬ ডিসেম্বর স্থানীয় এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীরা উচাখিলা বাজারে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। এরপর কলেজ কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে।

অভিযুক্ত শিক্ষককে কলেজে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করে বাজারে পাওয়া অডিও রেকর্ড নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটির রিপোর্ট নিয়ে সোমবার জরুরি সভা আহ্বান করা হয়।

কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান বদরুল আলম প্রদীপের সভাপতিত্বে সভায় সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে ওই শিক্ষককে বহিষ্কার করা হয়।

কলেজের অভিভাবক প্রতিনিধি ও স্থানীয় ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘ছাত্রীদের সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের কমপক্ষে সাতটি রেকর্ড বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। এদের মধ্যে দুই জন ছাত্রীকে গর্ভপাত করিয়েছে লম্পট শিক্ষক আদিল’।

তবে, অভিযুক্ত প্রভাষক আদিল মিয়া বলেন,‘আমার বিরুদ্ধে এটি গভীর ষড়যন্ত্র, একটি মহল ঈর্ষান্বিত হয়ে এ কাজ করেছ’।

উচাখিলা উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আব্দুল হালিম বলেন, ‘তার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এলাকাবাসী ও কমিটির সিদ্ধান্তে তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে’।

Comments
Loading...