দৌড়ে রেস্তোরাঁয় ঢুকেও বাঁচতে পারলেন না মুকুল

0 ১৫

Ashulia Police Injured pic-4বুধবার সকালে পাঁচ পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করছিলেন আশুলিয়ার বাড়ইপাড়া মহাসড়ক চেকপোস্টে। অন্যান্য দিনের মতোই তল্লাশির জন্য মোটরসাইকেল থামিয়ে এগিয়ে গিয়েছিলেন মুকুল ও নুর আলম। মোটরসাইকেলে আরোহী ছিল দুই যুবক। কাছাকাছি যেতেই তারা এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত শুরু করল দুজনকে। আহত হয়ে প্রাণ বাঁচাতে দৌড়ে মহাসড়ক ছেড়ে পাশের একটি রেস্তোরাঁয় আশ্রয় নেন মুকুল ও নুর আলম। কিন্তু দুর্বৃত্তরা ক্ষান্ত দিল না। রেস্তোরাঁয় ঢুকেও মুকুল আর নুর আলমকে কোপায় তারা।

বুধবার সকালে আশুলিয়ার বাড়ইপাড়া পুলিশ চেকপোস্টে হামলার ঘটনার বর্ণনা এভাবেই দিলেন পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা। রাজধানীর গাবতলীতে ছুরিকাঘাতে এক পুলিশ সদস্যকে হত্যার পর বুধবার আশুলিয়ার কালিয়াকৈর-নবীনগর সড়কে চেকপোস্টের দায়িত্বরত শিল্প পুলিশের দুই সদস্যকে ছুরিকাঘাত করে দুর্বৃত্তরা। এতে কনস্টেবল মুকুল নিহত ও অপর কনস্টেবল নূর আলম গুরুতর আহত হন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আশুলিয়া থানাধীন শিল্প পুলিশের একটি দল নন্দন পার্কের সামনের চেকপোস্টে দায়িত্ব পালন করছিলেন। এ সময় একটি মোটরসাইকেলে করে দুই যুবক কালিয়াকৈরের দিক থেকে নবীনগরের দিকে যাচ্ছিল। সকাল আটটার দিকে চেকপোস্টে পৌঁছলে পুলিশ সদস্যরা মোটরসাইকেলটি থামান।

তারা আরও জানান, হামলার পর কয়েকটি ফাঁকা গুলি ছুড়ে যুবকেরা ঘটনাস্থল থেকে সটকে পড়ে। স্থানীয়রা গুরুতর আহত দুই পুলিশ সদস্যকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে যায়। সেখান থেকে আশুলিয়া থানা-পুলিশের অ্যাম্বুলেন্সে করে তাদের সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মুকুল।

খবর পেয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল ও হাসপাতাল পরিদর্শন করেন।

হামলার বিষয়ে ঘটনাস্থলে থাকা পাঁচ পুলিশ সদস্যদের বাকি তিনজনের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে পুলিশ কর্মকর্তারা অনুমতি দেননি।

এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক নিউরো অর্থপেডিক বিশেষজ্ঞ ড. রফিকুল ইসলাম জানান, আহত নূর আলমের অবস্থাও গুরুতর।

হামলার বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচার ও শাস্তিকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য একটি জঙ্গিচক্র এ ধরনের অপতৎপরতা চালাচ্ছে। এ ছাড়াও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ভাবমূর্তি ও আতঙ্ক সৃষ্টির জন্যও এ ধরনের ঘটনা ঘটাচ্ছে। তবে এ ঘটনার সঙ্গে যারাই জড়িত থাকুক না কেন দ্রুত তাদেরকে শনাক্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে, ঢাকা রেঞ্জের অতিরিক্ত আইজিপি জাভেদ পাটোয়ারী ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে বলেন, ঢাকার গাবতলী ও আশুলিয়ার বাড়ইপাড়া এলাকার দুটি ঘটনাই একইভাবে ঘটিয়েছে জঙ্গিরা।

এ ব্যাপারে ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশরাফুল আজিম বলেন, হত্যাকারীরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে এ হামলা করেছে।দ্রুত তাদের শনাক্ত করে গ্রেফতার করা হবে।

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন

Comments
Loading...