ময়মনসিংহে ধর্মীয় সভা থেকে ডেকে নিয়ে তরুণীকে গণধর্ষণ

0 ৩৮

Rapeময়মনসিংহ প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের সরিষা ইউনিয়নের এনায়েতনগর গ্রামে বাড়ির পাশে ইসলামি সভা শুনতে এলে এক তরুণীকে দুই বখাটে যুবক মুখ ওড়না দিয়ে বেধে নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় শুক্রবার দুই জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছে তরুণীর মা। আজ শনিবার ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ধর্ষিতাকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।পুলিশ ও ধর্ষিতার পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার (১৩ ডিসেম্বর) ওই গ্রামের এনায়েত নগর হাফিজিয়া মাদ্রাসায় ধর্মীয় সভা ও ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। সেই ওয়াজ মাহফিল শুনতে নারী পুরুষ অনেকে সমবেত হন। ওয়াজ মাহফিল শুনতে এনায়েতনগর গ্রামের ১৪ বছর বয়সী তরুণীও আসেন। কিন্তু সন্ধ্যার পরেই সরিষা গ্রামের ইন্নছ আলীর ছেলে গোলাপ মিয়া (৩২) ও ইয়াকুব আলীর ছেলে শামিম মিয়া (৩৫) তরুণীকে কৌশলে ডেকে নিয়ে যায়। পরে তারা তরুণীর ওড়না দিয়ে মুখ বেঁধে ওয়াজ মাহফিল থেকে কিছু দূরে ফসলি জমিতে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। বিষয়টি তরুণী পরিবারের কাছে জানালে দরিদ্র পরিবারকে হুমকি দিতে শুরু করে ধর্ষকরা। গ্রাম্য সালিশে বিষয়টি ধামা চাপা দেওয়ার চেষ্টা করলে খবর পেয়ে পুলিশ বৃহস্পতিবার রাতে ধর্ষিতা তরুণীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে তদন্ত শেষে শুক্রবার ওই ধর্ষকের বিরুদ্ধে তরুণীর মা একটি মামলা দায়ের করেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান বলেন, ‘ওয়াজ মাহফিল থেকে ডেকে নিয়ে তরুণী ধর্ষণের ঘটনায় আরো অনেকে জড়িত। ভয়ভীতি দেখিয়ে নাম প্রকাশ করতে ধর্ষিতার পরিবারকে বারণ করেছে। ধর্মীয় সভা থেকে তরুণী গণধর্ষণ হওয়ায় এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।’

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুল ইসলাম জানান, ধর্ষণের বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে খবর পেয়ে তরুণীকে উদ্ধার করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় দু’জনকে আসামী করে মামলা করেছে তরুণীর মা। আসামীরা পলাতক রয়েছে তবে তাদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।

Comments
Loading...