রুবির ভয়ংকর প্রতারনার ফাঁদ, অল্পের জন্য ইজ্জত রক্ষা!

0 ১৬

rubyনবীগঞ্জঃ বানিয়াচং উপজেলার গুনই গ্রামের জনৈকা যুবতি নবীগঞ্জ শহরের একটি ব্যাংকে টাকা উত্তোলন এসে ভংয়কর প্রতারণার ফাঁদে পাঁ দিয়ে অল্পের জন্য ইজ্জত রক্ষা করতে পেরেছে। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের কালাভরপুর গ্রাম থেকে মক্ষিরানী রুবি বেগমসহ ২ যুবতীকে গ্রেফতার করেছে গোপলার বাজার ফাড়িঁ পুলিশ।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, উপজেলার বাউসা ইউনিয়নের বিলপাড় গ্রামের মক্ষিরানী রুবি বেগম দীর্ঘদিন যাবৎ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের কালাভরপুর আলী নগর গ্রামে নানা বাড়িতে থেকে দেহ ব্যবসা চালিয়ে আসছে। তার এই অনৈতিক কর্মকান্ডে এলাকাবাসী অতিষ্ট হয়ে উঠলেও ভয়ে কেউই প্রতিবাদ করার সাহস পেত না। গত ৭/৮ দিন পূর্বে নবীগঞ্জ শহরে টাকা উত্তোলনের জন্য একটি ব্যাংকে এসে মক্ষিরানী রুবির সাথে পরিচয় হয় বানিয়াচং থানার গুনই গ্রামের জনৈকা যুবতীর। পরিচয়ের দিন মোবাইল নাম্বার আদান প্রদান। এক পর্যায়ে একে অপরের ধর্মের বোন হয়ে যান।

কিন্তু কে জানতো যে এটা রুবির ভয়ংকর প্রতারনার ফাঁদ? গত মঙ্গলবার দুপুরে ধর্ম আত্মীয়তার সুত্রধরে বানিয়াচং থানার গুনই গ্রামের জনৈকা যুবতী মেয়েকে দাওয়াত করে রুবি বেগমের বাড়ি আনে। সন্ধ্যার দিকে অপরিচিত জনৈক এক যুবকের সাথে অনৈতিক কাজ করার জন্য রুবি প্রস্তাব দেয়।

তার এই প্রস্তাব না মানায় জোরপুর্বক দেহ ব্যবসা করার চেষ্টা কালে ওই জনৈকা যুবতী দৌড়ে পালিয়ে পাশের বাড়ি মাহমুদ মিয়ার বাড়িতে আশ্রয় নেয়। সেখানে গিয়ে মক্ষিরানী রুবি বেগম ওই যুবতীকে মারপিট করে। এদের সুচিৎকারে স্থানীয় জনতা জড়ো হলে জনৈকা যুবতি বিস্তারিত খুলে বলে স্থানীয়দের। পরে স্থানীয় লোকজন গোপলার বাজার পুলিশ ফাড়িঁতে খবর দেয়া হলে পুলিশ ঘটনাস্থল পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এনে তাদেরকে থানায় নিয়ে আসেন।

বুধবার সকালে তাদেরকে সংশ্লিষ্ট ধারায় জেল হাজতে প্রেরন করা হওয়ার কথা রয়েছে।

সূত্রঃইউরোবডিনিউজ
Comments
Loading...