সাকা চৌধুরীর অব্যাহতির আবেদন খারিজ, অভিযোগের শুনানি ১০ নভেম্বর

0 ২৩

saka

ঢট্টগ্রাম: পৃথক দুটি গাড়ি পোড়ানোর মামলায় বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর অব্যাহতির আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। বিচারক আগামী ১০ নভেম্বর অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন ধার্য্য করেছেন।

বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক এ আদেশ দেন।

জেলা পিপি অ্যাডভোকেট আবুল হাসেম বাংলামেইলকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে সকাল ১০টা ২০ মিনিটে সাকা চৌধুরীকে চট্টগ্রাম কারাগার থেকে আদালতে আনা হয়। এদিন আদালতে আসামি পক্ষের ফৌজদারি কার্যবিধির ২৪১ ধারায় মামলা থেকে অব্যাহতির আবেদন এবং অভিযোগপত্রে রাষ্ট্রপক্ষের নারাজি আবেদনের ওপর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। শুনানি শেষে বিচারক সালাউদ্দিন কাদেরের আবেদন খারিজ করে দেন। রাষ্ট্রপক্ষের নারাজি আবেদনের শুনানি হলেও আদেশ দেয়া হয়নি। আগামী ১০ নভেম্বর অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন ধার্য্য করেছেন আদালত।

গতকাল মঙ্গলবার কড়া নিরাপত্তায় সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে চট্টগ্রাম কারগারে আনা হয়।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালের ৭ নভেম্বর ঢাকার পল্টনে বেগম খালেদা জিয়াকে জনসভার অনুমতি না দেয়ার প্রতিবাদে এবং সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে গ্রেপ্তারের গুজব তুলে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ডের বাঁশবাড়িয়া এবং সলিমপুর এলাকায় পৃথক দুটি স্পটে গাড়ি ভাঙচুর ও গাড়িতে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটে। এ দুটি ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা করে পুলিশ।

ওই মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া দুজন আদালতে ১৬৪ ধারায় দেয়া জবানবন্দিতে জানান, সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর নির্দেশে তারা গাড়ি ভাঙচুর ও আগুন দিয়েছিলেন। এরপর দুটি মামলাতেই সাকা চৌধুরীকে প্রধান আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। এর মধ্যে বাঁশবাড়িয়ার ঘটনার মামলায় ১১ জন এবং সলিমপুরের মামলায় সাতজনকে আসামি করা হয়।

এর আগে গত ১৫ জুন অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে আদালতে হাজির করা হলেও আসামিপক্ষ সময়ের আবেদন করায় ওইদন শুনানির তারিখ পিছিয়ে ৩ সেপ্টেম্বর ধার্য্য করা হয়।

উল্লেখ্য, সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী মানবতাবিরোধী অপরাধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত। বর্তমানে তিনি কাশিমপুর কারাগারে বন্দি রয়েছেন।

Comments
Loading...