২৮ লাখ মামলা বিচারাধীন: আইনমন্ত্রী

0 ২০

image_72388_0ঢাকা: আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক জানিয়েছেন, দেশে বর্তমানে ২৮ লাখ মামলা বিচারাধীন রয়েছে। এই মামলা নিষ্পত্তি করতে কমপক্ষে আরো পাঁচ হাজার বিচারক নিয়োগ দেয়া প্রয়োজন। সরকার ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে সব ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ‘সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস নির্মূলে সরকার ও নাগরিক সমাজের ভূমিকা’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান  অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা বলেন। একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি ও  ফোরাম ফর সেকুলার বাংলাদেশ অ্যান্ড ট্রায়াল অব ওয়ার ক্রিমিনালস অব ১৯৭১ আয়োজিত ওই আলোচনা সভায়  সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক বোরহান উদ্দিন খান জাহাঙ্গীর।

আলোচনায় মূল ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবির। সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী প্রমোদ মানকিন, আইন কমিশনের চেয়ারম্যান এ বি এম খায়রুল হক, হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের  সাধারণ সম্পাদক  রানা দাশগুপ্ত, মানবাধিকার নেত্রী আরমা দত্ত আলোচনায় অংশ নেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, “জনগণের অধিকার ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় সরকার সব পদক্ষেপ নিচ্ছে।  সম্প্রতি জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ও  পরে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর যেসব সন্ত্রাস হয়েছে, সেগুলোর বিচারে বিশেষ ক্ষমতা আইনের মাধ্যমে প্রয়োগ করা হতে পারে।  এ আইনের সেকশন ২-এ এসব অপরাধের বিচারের বিধান আছে।”

মন্ত্রী বলেন, “অপরাধীদের যদি  শাস্তি না দেয়া হয়, তবে এসব অপরাধ বন্ধ হবে না।”

আইনমন্ত্রী বলেন, “সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হলে সবাই মিলে জামায়াত ও বিএনপিকে সামাজিকভাবে বয়কট করতে হবে। তারা এ দেশকে ব্যর্থ ও সন্ত্রাসী রাষ্ট্রে পরিণত করতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা লালনকারী শেখ হাসিনার সরকারের বিরুদ্ধে লড়ছে। কারণ এ সরকার থাকলে তাদের ইচ্ছা পূরণ হবে না। বিএনপি-জামায়াতকে সামাজিকভাবে বয়কট করলে সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের মতো অপরাধ দূর হবে।”

আইন কমিশনের চেয়ারম্যান এ বি এম খায়রুল হক বলেন, “এই দেশে যত দিন  ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা না হবে, তত দিন সন্ত্রাস বন্ধ হবে  না।”

Comments
Loading...