৮১ উপজেলায় ভোট গ্রহণ শুরু

0

pic-21_61674তৃতীয় দফায় উপজেলা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরু। আজ চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় দফায় ৮১ উপজেলায় ভোট হয়েছে। সকাল সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভোট নেয়া হবে।

এক কোটি ৩১ লাখ ৮৫ হাজার ১৩ জন ভোটার তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন আজ।

ভোট গ্রহণ উপলক্ষে নির্বাচনী উপজেলাগুলোতে সেনা ও নৌবাহিনী, বিজিবির পাশাপাশি র‌্যাব ও পুলিশের বিপুলসংখ্যক সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। নির্বাচন ঘিরে প্রার্থী ও ভোটারদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনার পাশাপাশি সহিংসতার শঙ্কাও রয়েছে। গত দুই উপজেলা নির্বাচনের মতোই এ নির্বাচনে একই নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের দায়িত্বে অবহেলা বা গাফিলতির তথ্য পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইসি।

নির্বাচনী ৮১ উপজেলায় চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এক হাজার ১১৯ জন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৪১৯ জন, ভাইস চেয়ারম্যান ৪২৩ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২৭৭ জন রয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের বেশির ভাগই আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থিত। এছাড়াও জাতীয় পার্টি, জামায়াতে ইসলামীসহ অন্যান্য দল ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ৮১ উপজেলার মধ্যে আওয়ামী লীগের একক চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছে ৩১ উপজেলায় ও বিএনপির একক চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছে ৪১ উপজেলায়। ৫০ উপজেলায় আওয়ামী লীগের ও ৪০ উপজেলায় বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছে। স্থানীয় সরকার নির্বাচন হলেও উপজেলা নির্বাচনে রাজনৈতিক পরিচয় মুখ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।

যেসব উপজেলায় ভোট গ্রহণ চলছে:

ঠাকুরগাঁও:
(১)হরিপুর    চেয়ারম্যান পদে লগড়াইয়ে যারা রয়েছেন তারা হলো, হরিপুর উপজেলা আ’লীগের নেতা মোঃ জামাল উদ্দিন (আনারস), আ’লীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ জিয়াউল হাসান মুকুল (মোটর সাইকেল), একেএম শামীম ফেরদৌস টগর (জাতীয় পাটি), বিএনপির প্রার্থী সাবেক অধ্যক্ষ মোঃ নুরুল ইসলাম (কাপপিরিচ)।

দিনাজপুর:    

(২)দিনাজপুর সদর: আওয়ামী লীগের ফরিদুর ইসলাম আনারস, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নাজনুর রহমান শাহ চৌধুরী মুকুর ঘোড়া, জাতীয় পার্টির আহমেদ শফি রুবেল টেলিফোন, বিএনপি নেতা মোকারম হোসেন দোয়াত কলম, জামায়াতের মজিবর রহমান মোটরসাইকেল, জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আখতারুজ্জমান জুয়েল কাপ প্রিচ প্রতীকে।
(৩)নবাবগঞ্জ: নবাবগঞ্জ উপজেলায় বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ তরিকুল ইসলাম পেয়েছেন (ঘোড়া), (বিএনপি), আ’লীগের প্রার্থী মোঃ আতাউর রহমান পেয়েছেন (আনারস) আ’লীগের অপর প্রার্থী আব্দুল মতিন পেয়েছেন (মোটরসাইকেল), আওয়ামী ছাত্রলীগের প্রার্থী নিজামুল হাসান শিশির পেয়েছেন (টেলিফোন), জামায়াতের প্রার্থী মাওঃ নূরে আলম সিদ্দিকী পেয়েছেন (হেলিকপ্টার), আলহাজ্ব আব্দুল লতিফ (দোয়াত-কলম)।

নীলফামারী:  

(৪)নীলফামারী সদর: চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ, জামায়াত ও খেলাফত মজলিশের একক প্রার্থী থাকলেও বিএনপি ও জাতীয় পাটির দুই জন করে প্রার্থী রয়েছেন। সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সাতজন। এরা হলেন, সদর উপজেলা আঃলীগের সাধারন সম্পাদক আবুজার রহমান(আনারস), জেলা বিএনপির সদস্য সচিব শামসুজ্জামান জামান(কাপপিরিচ), সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ফরহ্নাুল হক (দোয়াত কলম), জাতীয়পাটির জেলা আহবায়ক ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান  জয়নাল আবেদীন(মটরসাইকেল), জেলা জাতীয়পাটির সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ,কে,এম সাজ্জাদ পারভেজ(ঘোড়া), খেলাফত মজলিশের জেলার সাধারন সম্পাদক মাহবুব আলী শাহ ফকির(হেলিকপ্টার) ও সদর উপজেলা জামায়াতের আমির প্রভাষক খায়রুল আনাম(টেলিফোন)।

লালমনিরহাট: 
(৫)আদিতমারী : চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান সিরাজুল হক (আ’লীগ) কাপ পিরিচ, ইমরুল কায়েস ফারুক (আ’লীগ) মোটর সাইকেল, মাসুম বিল্ল্যাহ (ইসলামী শাসনতন্ত্র) আনারস, আইয়ুব আলী (বিএনপি) ঘোড়া, আলাউল ইসলাম ফাতেমী পাভেল (জামায়াত) দোয়াত কলম প্রতিক পেয়েছেন।

কুড়িগ্রাম:    
(৬)কুড়িগ্রাম সদর: আওয়ামীলীগ সমর্থিত ও বর্তমান চেয়ারম্যান পনির উদ্দিন আহমেদ(কাপ পিরিচ), বিএনপি সমর্থিত সাইদুর রহমান (ব্যাটারী), জাতীয় পার্টি সমর্থিত চৌধুরী সফিকুল ইসলাম (আনারস), জামায়াত সমর্থিত অ্যাডভোকেট ইয়াছিন আলী (দোয়াত কলম), ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন সমর্থিত মোখছেদুর রহমান (মোটর সাইকেল), আওয়ামীলীগের বহিস্কৃত নেতা আবদার হোসেন বুলু (হেলিকপ্টার), বিএনপির বহিস্কৃত প্রার্থী আব্দুর রহিম শামীম (টেলিফোন) ও জাপার বিদ্রোহী প্রার্থী নুরন্নবী সরকার (ঘোড়া)।
(৭)রৌমারী: চেয়ারম্যান প্রার্থী ১২ জন। আওয়ামী লীগ সমর্থিত শহিদুল ইসলাম শালু হাতি, বিএনপি সমর্থিত শাহেদ হোসেন খোকা একতারা, জামায়াতের মোস্তাফিজার রহমান ডিলার টেলিফোন, চর মোনাইয়ের নুর হোসেন কাপ পিরিচ, বাসদের আবুল বাশার মঞ্জুর ঘোড়া ও আব্দুর রাজ্জাককে ফেজটুপি প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শেখ আব্দুল্লাহ আনারস ও মজিবর রহমান বঙ্গবাসী মোটর সাইকেল, বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী শামসুল হক দোয়াত কলম, রেজোয়ানুল হক পাখি চিংড়ি মাছ, মোছা: খাদিজা জামান হেলিকপটার ও ঈমান আলী ইমন ব্যাটারী মার্কা পান।
(৮)চিলমারী: বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শওকত আলী সরকার বীরবিক্রম হেলিক্পটার, উপজেলা বিএনপির প্রাক্তন সভাপতি মোঃ জয়নুল আবেদীন টেলিফোন, অষ্টমীরচর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সোহরাব হোসেন দোয়াত কলম, উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোঃ আব্দুল বারী সরকার ব্যাটারী, জাতীয় পার্টির নেতা সহকারী অধ্যাপক মোঃ রুকুনুজ্জামান আনারস, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মোঃ নুরুজ্জামান আজাদ মোটর সাইকেল, উপজেলা জামায়াতের সভাপতি সহকারী অধ্যাপক মোঃ রাশীদুল আলম বাদল চিংড়ি মাছ, প্রাক্তন ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল জলিল সরকার ঘোড়া, প্রাক্তন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ আল ফারুক কাপপিরিচ প্রতীক পেয়েছেন।

গাইবান্ধা: 

(৯)গাইবান্ধা সদর: চেয়ারম্যান পদে ১১ জনের মধ্যে বাসদের আহসানুল হাবীব সাঈদ মোটরসাইকেল, সিপিবির মিহির ঘোষ ব্যাটারি, জাতীয় পার্টির(এ) আব্দুর রশিদ সরকার আনারস, জামায়াতের আব্দুল করিম দোয়াত-কলম, জাতীয় পার্টির(এ) বিদ্রোহী প্রার্থী আরাফাত আকতার নীলা হাতি, বিএনপির মিজানুর রহমান মিজান হেলিকপ্টার, বিএনপির বিদ্রোহী মাহবুবর রহমান টুলু কাপ-পিরিচ, স্বতন্ত্র মোমিন উল হাসান জুটন টেলিফোন, বিএনপির বিদ্রোহী শেখ সামাদ আজাদ চিংড়ি মাছ, আওয়ামী লীগের শাহ সারোয়ার কবির ঘোড়া, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী কৃষক লীগের জেলা সভাপতি হাসান মাহমুদ সিদ্দিক একতারা প্রতীক বরাদ্দ পান।
(১০)সাদুল্লাপুর: আওয়ামী লীগের শাহরিয়ার খান বিপ্লব ও এমএ ওয়াহেদ মিয়া এবং বিএনপির সাইদুর রহমান মুন্সী ও শফিকুল ইসলাম রফিক।

জয়পুরহাট:     

(১১)আক্কেলপুর: চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত একক প্রার্থী গোলাম মাহফুজ চৌধুরী (ঘোড়া প্রতীক), বিএনপি সমর্থিত একক প্রার্থী কামরুজ্জামান কমল (মোটরসাইকেল প্রতীক) ও ওয়াকার্স পার্টি সমর্থিত মুক্তিযোদ্ধা নুরন্নবী (আনারস প্রতীক)।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ:   

(১২)চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর: আগামী ১৫ মার্চের নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগ একক প্রার্থী হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সামসুল হক, থানা বিএনপির সভাপতি তসিকুল ইসলাম তসি ও জামায়াতের পৌর আমির মুখলেসুর রহমানকে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীতা দেয়।
(১৩)ভোলাহাট: আওয়ামী লীগ সমর্থিত একক প্রার্থী জেলা  আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ মোঃআশরাফুল হক চুনু (কাপ পিরিচ), বিএনপি সমর্থিত বর্তমান চেয়ারম্যান বাবর আলী বিশ্বাস (দোয়াত কলম), বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী প্রভাষক আনোয়ারুল ইসলাম (চিংড়িমাছ), বিএনপি’র বিদ্রোহী প্রার্থী মোজাম্মেল হক চুটু (মোটরসাইকেল), স্বতন্ত্র প্রার্থী আঃ রশিদ( ঘোড়া) ও আঃ মতিন (আনারস)
(১৪)শিবগঞ্জ: চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান ও জামায়াত নেতা মাওলানা কেরামত আলী (কাপ-পিরিচ), আ’লীগ তাদের প্রার্থী করেছে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে সাবেক পাঁকা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক এ্যাড. আতাউর রহমান (ঘোড়া), জাতীয় পার্টি থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে লড়ছেন মাহিদুর রহমান (আনারস)।

নওগাঁ:   
(১৫)মান্দা: মান্দায় সাবেক বিএনপি নেতা ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ডা. ইকরামুল বারী টিপু, বিএনপির মকলেছুর রহমান ও মাহবুব আলম চৌধুরী, আওয়ামী লীগের এসএম ব্রহানী সুলতান মাহমুদ গামা ও শ.ম জসিম উদ্দিন, জামায়াতের মাওলানা আবদুর রশিদ।
(১৬)পোরশা: চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের আনোয়ারুল ইসলাম, বিএনপির তৌফিকুল ইসলাম শাহ ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের কাওছার কামাল চৌধুরী।
(১৭)ধামইরহাট: ধামইরহাটে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের এটিএম বদিউজ্জামান, জামায়াতের মাওলানা মঈন উদ্দিন।

রাজশাহী:    
(১৮)গোদাগাড়ি: “চেয়ারম্যান পদে ভোটের মাঠে থাকা বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী একেএম আতাউর রহমান খান পেয়েছেন ঘোড়া প্রতীক। এছাড়া আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী অধ্যাপক আসাদুজ্জামান পেয়েছেন মোটরসাইকেল প্রতীক। আওয়ামী লীগের আরেক বিদ্রোহী প্রার্থী গোদাগাড়ী পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক পেয়েছেন আনারস প্রতীক। ১৯ দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থী গোদাগাড়ী উপজেলা বিএনপির সভাপতি ইসাহাক আলী বিশ্বাস পেয়েছেন দোয়াত-কলম। বিএনপির একাংশের নেতা ও গোগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হযরত আলী পেয়েছেন কাপ-পিরিচ। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট সালাহ উদ্দীন বিশ্বাস পেয়েছেন ফেজ-টুপি।”
(১৯)চারঘাট: চারঘাটে আওয়ামী লীগের ফকরুল ইসলাম ও বিএনপির আবু সাইদ চাঁদ।
(২০)দুর্গাপুর: দুর্গাপুরে আওয়ামী লীগ সমর্থিত নজরুল ইসলাম ও বিদ্রোহী আবদুল কাদের মণ্ডল, বিএনপি সমর্থিত গোলাম শাকলাইন ও বিদ্রোহী আবদুল ওয়াহেদ মোল্লা চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন।

চুয়াডাঙ্গা:   
(২১)দামুরহুদা: দামুড়হুদায় আওয়ামী লীগের আজাদুল ইসলাম আজাদ, জামায়াতের আজিজুর রহমান, বিএনপির লিয়াকত আলী শাহ, বিএনপির ফজলুর রহমান।

যশোর:   
(২২)মনিরামপুর: আওয়ামী লীগের আমজাদ হোসেন লাভলু ও অধ্য কাজী মাহমুদুল হাসান, বিএনপির মশিয়ার রহমান এবং জামায়াতের গাজী এনামুল হক।

নড়াইল:    
(২৩)লোহাগড়া: লোহাগড়ায় আওয়ামী লীগের সৈয়দ ফয়জুর আমীর ও শেখ মাসুদুজ্জামান এবং বিএনপির জিএম নজরুল ইসলাম।

বাগেরহাট:  
(২৪)বাগেরহাট সদর: সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগের খান মুজিবর রহমান, বিএনপির সৈয়দ নাসির আহম্মেদ মালেক, ইসলামী আন্দোলনের শাহজালাল সিরাজী ও বিকল্পধারার বেগ মাহাতাব উদ্দিন।
(২৫)মোড়েলগঞ্জ: মোরেলগঞ্জে আওয়ামী লীগের শাহ-ই আলম বাচ্চু, বিএনপির আবদুল মজিদ জব্বার, জাতীয় পার্টির সোমনাথ দে।
(২৬)রামপাল: রামপালে আওয়ামী লীগের শেখ আবু সাঈদ, বিএনপির শেখ হাফিজুর রহমান তুহিন, ফকির সাহাদাত হোসেন, জামায়াতের জুলফিকার আলী, জাতীয় পার্টির শেখ আবদুস সবুর ও স্বতন্ত্র মেহেদী হাসান মিন্টু।
(২৭)মোংলা    : মংলায় আওয়ামী লীগের আবু তাহের হাওলাদার, বিএনপির মোল্লা আবদুল জলিল, মো. সাইফুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির তালুকদার আক্তার ফারুক ও সিপিবির নূর আলম।
(২৮)শরণখোলা: শরণখোলায় আওয়ামী লীগের আসাদুজ্জামান মিলন, বিদ্রোহী কামাল উদ্দিন আকন এবং বিএনপির খান মতিয়ার রহমান।

খুলনা:  
(২৯)পাইকগাছা: পাইকগাছায় আওয়ামী লীগের মো. রশীদুজ্জামান, বিএনপির স ম বাবর আলী, জাতীয় পার্টির মোস্তফা কামাল জাহাঙ্গীর, সিপিবির কৃষ্ণপদ মণ্ডল, স্বতন্ত্র শেখ সোহরাওয়ার্দী ও জিএম আবদার রশীদ।

সাতক্ষীরা:   
(৩০)কালিগঞ্জ: কালীগঞ্জে আওয়ামী লীগের শেখ অহেদুজ্জামান, বিএনপির শেখ আবদুস সাত্তার, জাতীয় পার্টির শাহাদাৎ হোসেন ও জামায়াতের মো. আজিজুর রহমান।

ভোলা:    
(৩১)সদর: সদর উপজেলায় চূড়ান্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেনথ আওয়ামী লীগের মোশারফ হোসেন ও বিএনপির মো. ফারুক মিয়া, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মাওলানা মিজানুর রহমান ও স্বতন্ত্র বিল্লাল হোসেন।

বরিশাল:     
(৩২)মুলাদী: চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি বিএনপি সমর্থিত আঃ সাত্তার খান-কাপ পিরিচ, আ.লীগ সমর্থিত তরিকুল হাসান খান মিঠু-আনারস, আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল মালেক মিয়া-মটরসাইকেল, স্বতন্ত্র প্রার্থী আ. মজিদ-ঘোড়া, বেল্লাল হোসেন দোয়াত-কলম।
(৩৩)হিজলা: চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন আ.লীগ সমর্থিত ও বর্তমান চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ টিপু-হেলিকপ্টার, দলের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন দলিলুর রহমান, বেলায়েত হোসেন-টেলিফোন, একেএম আঃ কাউয়ুম খান-আনারস, বিএনপি সমর্থিত দেওয়ান মো. শহিদুল্লাহ-চিংড়ি মাছ, বিদ্রোহী প্রার্থী আ. গফফার তালুকদার-ঘোড়া, আঃ কুদ্দুস বেপারী-দোয়াত কলম, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সৈয়দ মোজাম্মেল হক-মটরসাইকেল ও জামায়াত নেতা মাওলানা মো. হাসেম।
(৩৪)বাবুগঞ্জ: চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টি সমর্থিত বজলুর রহমান মাষ্টার-টেলিফোন, আ.লীগ সমর্থিত সরদার খালেদ হোসেন স্বপন-কাপ পিরিচ, বিএনপি সমর্থিত কামরুল আহসান হিমু খান-দোয়াত কলম, বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী সুলতান আহম্মেদ খান-আনারস, ইসলামী আন্দোলন সমর্থিত প্রার্থী মাওলানা মিজানুর রহমান সিকদার-হেলিকপ্টার।

পিরোজপুর:    
(৩৫)নেছারাবাদ,

জামালপুর: 
(৩৬)দেওয়ানগঞ্জ: দেওয়ানগঞ্জে আওয়ামী লীগের আবুল কালাম আজাদ, বিএনপির মাসুদুর রহমান খোকন, শাহ্ মোহম্মদ মনিরুর রহমান মনির ও স্বতন্ত্র জাহিদুল ইসলাম।

শেরপুর:  
(৩৭)শ্রীবর্দী: শ্রীবরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আশরাফ হোসেন খোকা (আনারস), শ্রীবরদী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম দুলাল (কাপপিরিচ), শেরপুর জেলা জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি নুরুজ্জামান বাদল (ঘোড়া), শ্রীবরদী পৌর জাতীয় শ্রমিক পার্টির সদস্য সচিব শফিকুল ইসলাম লিটন (চিংড়ি মাছ), উপজেলা বিএনপির সদস্য ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সুরুজ্জামান (মটর সাইকেল), শেরপুর জেলা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম ফর্সা (হেলিকপ্টার), নির্দলীয় প্রার্থী আব্দুল মজিদ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আকরামুজ্জামান (টেলিফোন) ও  শ্রীবরদী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত আব্দুল ওয়াদুদের ছেলে সারোয়ার পারভেজ আলম খোকন (দোয়াত কলম) প্রতীক পেয়েছেন।

ময়মনসিংহ:   

(৩৮)ফুলবাড়ীয়া: আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান (বিএনপি নেতা) অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেন বাদশা (মোটর সাইকেল), আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ আব্দুল মালেক সরকার (ঘোড়া), বিএনপি‘ ইঞ্জি. শামছ উদ্দিন সমর্থিত এড. আজিজুর রহমান (চিংড়ি মাছ), বিএনপি’র মোঃ কবির হোসেন (টেলিফোন), জেলা বিএনপি সমর্থিত মোঃ আব্দুল আজিজ (উড়োজাহাজ), আওয়ামীলীগের ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ন সম্পাদক আসাদুজ্জামান খোকন (কাপ পিরিচ), স্বতন্ত্র প্রার্থী এস এম সাইফুজ্জামান (দোয়াত কলম), মোফাজ্জল হোসেন (আনারস) প্রতীক নিয়ে মাঠে ব্যাপক গণ সংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন।
(৩৯)গৌরীপুর: গৌরীপুরে আওয়ামী লীগ সমর্থিত আলী আহাম্মদ খান পাঠান সেলভী ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শরীফ হাসান অনু, বিএনপি সমর্থিত আহাম্মদ তায়েবুর রহমান হিরন ও বিএনপি বিদ্রোহী মকবুল হোসেন ও শামছুল হক শামছু।
(৪০)মুক্তাগাছা: মুক্তাগাছায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের বিল্লাল হোসেন সরকার, বিএনপির এএসএম জাকারিয়া হারুন ও স্বতন্ত্র ইছাহাক আলী সরকার।
(৪১)ফুলপুর: উপজেলা চেয়ারম্যান (অস্থায়ী) ও পৌর আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক মো. আতাউল করিম রাসেল (ঘোড়া), আওয়ামী লীগ নেতা ও গ্রামাউস নির্বাহী পরিচালক মো. আব্দুল খালেক (আনারস), আওয়ামীলীগ নেতা মো. জহিরুল ইসলাম (মোটর সাইকেল), বঙ্গবন্ধু সৈনিকলীগ কেন্দ্রীয় নেতা শাহ্ আকরাম হোসেন (হেলিকপ্টার), বিএনপির প্রার্থী জেলা কৃষক দল সভাপতি সাবেক এমপি মো. আবুল বাসার আকন্দ (দোয়াত-কলম), বিএনপি নেতা ও উপজেলা চেয়ারম্যান মরহুম আব্দুল মতিনের স্ত্রী আখিনুর রহমান রিনা (কাপ-পিরিচ)।
(৪২)ধোবাউড়া:

নেত্রকোনা:   

(৪৩)নেত্রকোনা সদর: সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মজিবুর রহমান খানকে একক প্রার্থী হিসেবে (আনারস) সমর্থন দিয়েছেন জেলা বিএনপি ও দলের অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম কামরুল হাসান শাহীনকে (দোয়াত কলম) জেলা আওয়ামীলীগের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা সমর্থন দিলেও বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন জেলা আওয়ামী যুবলীগের সাবেক আহবায়ক অধ্যাপক ওমর ফারুক (কাপ-পিরিচ)।
(৪৪)মোহনগঞ্জ: চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীরা হলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ শহীদ ইকবাল, সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লতিফুর রহমান রতন এবং উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি আখম শফিকুল হক।

কিশোরগঞ্জ:   
(৪৫)কিশোরগঞ্জ সদর: আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হয়েছেন সৈয়দ আশফাকুল ইসলাম টিটু। এর বাইরে প্রার্থী হয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আনোয়ার কামাল, বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান শেখ সেলিম কবীর এবং মাইজখাপন ইউপি চেয়ারম্যান মফিজউদ্দিন। অন্যদিকে বিএনপি থেকে তৃণমূলের সিদ্ধান্তে প্রার্থী হয়েছেন জেলা যুবদল আহ্বায়ক শরীফুল ইসলাম। তাকে চ্যালেঞ্জ করে প্রার্থী হয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য ও গবেষণা সেলের সদস্য সচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ সেলু, বর্তমান চেয়ারম্যান জেলা ন্যাপ সাধারণ সম্পাদক ডা. আবদুল হাই, জাতীয় পার্টির জেলা শাখার আহ্বায়ক ইসমাইল হোসেন বাবুল এবং বাসদের মাসুদ আহমেদ।
(৪৬)কুলিয়ারচর: কুলিয়ারচর উপজেলাতে বিএনপি সমর্থিত একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র নূরুল মিল্লাত। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী নূরুল মিল্লাত ‘দোয়াত-কলম’ প্রতীক নিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রচারণাযুদ্ধে নেমেছেন। চেয়ারম্যান পদে তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে রয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সৈয়দ হাসান সারোয়ার মহসিন (আনারস)।
(৪৭)হোসেনপুর: হোসেনপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বিএনপি সমর্থিত একক প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক জহিরুল ইসলাম মবিন। তিনি ‘দোয়াত-কলম’ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। চেয়ারম্যান পদে তার প্রতিদ্বন্দ্বীরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আয়ুব আলী (আনারস), উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ মাহবুবুল হক (কাপ-পিরিচ) এবং সিপিবি সমর্থিত প্রার্থী সোহরাব উদ্দিন মোড়ল (মোটরসাইকেল)।

গাজীপুর:     
(৪৮)শ্রীপুর: শ্রীপুর উপজেলায় প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ, তৃণমূলের ভোটে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী তেলিহাটি ইউপি চেয়ারম্যান আ. জলিল ও প্রবীণ বিএনপি নেতা আবদুল মোতালেব। – এখানে আওয়ামী লীগের দুই চেয়ারময়ান প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষে একজন নিহত হবার পর নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে।

ফরিদপুর:    
(৪৯)ফরিদপুরের সদর: আওয়ামী লীগের সমর্থন দাবি করে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনের অনুজ খন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবর আনারস ও সাবেক জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বিশিষ্ট শ্রমিক নেতা হাসিবুল হাসানের সহধর্মিণী ঝর্না হাসান কাপপিরিচ, বিএনপির সাবেক মন্ত্রী চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফের সমর্থনে বিএনপিদলীয় প্রার্থী দাবি করে মাহাবুবুল হাসান পিঙ্কু টেলিফোন এবং ১৯-দলীয় সমর্থন দাবি করে জেলা জামায়াত নেতা আবদুত তাওয়াব লড়ছেন মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে।
(৫০)আলফাডাংগা: আওয়ামী লীগের সমর্থন দেয়া হয়েছে জালালউদ্দিনকে।
(৫১)সদরপুর: আ’লীগের সদরপুর উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক কাজী শফিকুর রহমান (কাপ পিরিচ), সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম এ্যাডভোকেট মোশাররফ হোসেন ও সাবেক সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য বেগম সালেহা বেগমের কনিষ্ঠ পুত্র এ্যাডভোকেট এইচ,এম শাহেদীদ গামাল (লিপু) দোয়াত কলম ও বিএনপির একক প্রাথী আলহাজ্ব আফজাল হোসালর (কাজী কুদ্দুছ) মোটর সাইকেল প্রতীক নিয়ে মাঠ চষে বেড়াচ্ছে।
(৫২)চরভদ্রাসন: দোয়াত-কলম প্রতীকধারী বিএনপি চেয়ারম্যান প্রার্থী এজিএম বাদল আমিন ও বিএনপি আনারস প্রতীকে ইলিয়াস বেগ, অ’লীগ প্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ কাউসার, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশাররফ হোসেন মুশা
(৫৩)ভাংগা    : চেয়ারম্যান পদে বিএনপি সমর্থিত ১৯ দলের প্রার্থী আলহাজ্জ খন্দকার ইকবাল হোসেন সেলিম। আওয়ামীলীগ ও ১৪ দলের সমর্থিত প্রার্থী মোঃ জাকির হোসেন। বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টি (সিপিবি) সমর্থিত প্রার্থী বাবু সুধীন সরকার মঙ্গল। স্বতন্ত্র প্রার্থী সাহাদাৎ হোসেন, এ্যাড্‌ভোকেট আওলাদ হোসেন।
(৫৪)মধুখালী: চেয়ারম্যান পদে আ’লীগের প্রার্থী মফিজুর রহমান মঞ্জু (দোয়াত-কলম), বিএনপির প্রার্থী আজিজুর রহমান মোল্লা (আনারস), এরশাদ সমর্থিত জাপা প্রার্থী আলি আহম্মাদ (মোটরসাইকেল) এবং জামায়াতের প্রার্থী মো. আলিমুজ্জামান (কাপপিরিচ)।

গোপালগঞ্জ:   

(৫৫)টুংগীপাড়া: টুঙ্গিপাড়ায় আওয়ামী লীগের সোলায়মান বিশ্বাস, গাজী গোলাম মোস্তফা ও রওশন আরা বেগম।

শরীয়তপুর:    

(৫৬)শরীয়তপুর সদর: সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগের আবুল হাশেম তপাদার, বিএনপির মাহবুব মোর্শেদ টিপু ও ইসলামী আন্দোলনের মাওলানা ইউনুছ মুন্সী।
(৫৭)নড়িয়া: নড়িয়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ। বিএনপি তথা ১৯ দলের কোন চেয়ারম্যান প্রার্থী নেই। এখানে চেয়ারম্যান পদে জেলা আওয়ামী লীগের অর্থবিষয়ক সম্পাদক একেএম ইসমাইল হকের (মোটরসাইকেল মার্কা) সঙ্গে আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির প্রচার সম্পাদক আলহাজ মো. আনোয়ার হুসাইন খান (আনারস) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সুনামগঞ্জ:   
(৫৮)জামালগঞ্জ: চেয়ারম্যন পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী রেজাউল করিম শামিম (দোয়াত-কলম), বিএনপির প্রার্থী শামসুল আলম (জুনু মিয়া) (আনারস) ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ইউসুফ আল আজাদ (ঘোড়া) প্রতীক বেছে নিয়েছেন।

সিলেট:    

(৫৯)ফেঞ্চুগঞ্জ: ফেঞ্চুগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের আবদুল বাসিদ টুটুল, বিদ্রোহী নুরুল ইসলাম ও ফয়সল আজাদ খান, ১৯ দলের পে জামায়াতের সাইফুল্লাহ আল হোসাইন, বিএনপির বিদ্রোহী ওহিদুজ্জামান সুফি চৌধুরী, অ্যাডভোকেট সুলতানা রাজিয়া ডলি ও মো. আফতাব আলী, জাতীয় পার্টির তোফায়েল আহমদ তফাদার, প্রবাসী কমিউনিটি নেতা মনির আলী লড়াই করছেন। আদালতের নির্দেশে নির্বাচন স্থগিত।
(৬০)দুঃ সুরমা: আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবু জাহিদ, বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক ছাত্রনেতা আলী আহমদ, দক্ষিণ সুরমার বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান জামায়াতের লোকমান আহমদ

মৌলভীবাজার:    

(৬১)বড়লেখা: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় আওয়ামী লীগের রফিকুল ইসলাম সুন্দর, বিএনপির আবদুল হাফিজ, জাতীয় পার্টির আবদুল আহাদ, জামায়াতের এমদাদুল ইসলাম চেয়ারম্যান পদে লড়াই করছেন।

টাঙ্গাইল:  

(৬২)ধনবাড়ী: ধনবাড়ীতে আওয়ামী লীগের অধ্যাপক মীর ফারুক আহমাদ ফরিদ, শফিকুল ইসলাম শফি, আবদুল ওয়াদুদ তালুকদার সবুজ, বিএনপির হাবিবুল্লাহ ফকির ও অধ্যাপক রেজাউল হক।
(৬৩)দেলদুয়ার: দেলদুয়ারে আওয়ামী লীগের আবুল কালাম মঈন সিদ্দিকী, হামিম কায়েস বিপ্লব, বিএনপির এস এম ফেরদৌস আলম, আবদুর রাজ্জাক ও জাসদের মতিয়ার রহমান মতি।

কুমিল্লা:     
(৬৪)নাংগলকোট: চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র সামছুউদ্দিন কালু (আনারস), আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও ঢালুয়া ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান ভূঁইয়া বাছির (দোয়াত কলম) এবং ১৯ দলীয় জোটের প্রার্থী বিশিষ্ট শিল্পপতি নজির আহমেদ ভূঁইয়া (মোটর সাইকেল) প্রতীক বরাদ্দ পেয়েছেন।
(৬৫)হোমনা: উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে বিএনপি সমর্থিত উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক, হোমনা সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রধান শিক্ষক এডভোকেট আজিজুর রহমান মোল্লা (মোটর সাইকেল), আ’লীগ সমর্থিত রেহানা বেগম (দোয়াত কলম), আ’লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী রোস্তম আলম স্বপন (কাপ পিরিচ) ও আরেক আ’লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. শহীদ উল্লাহ (ঘোড়া), স্বতন্ত্র প্রার্থী সদ্য সাবেক চেয়ারম্যান  জহিরুল হক (আনারস)
(৬৬)বুড়িচং: উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাজ্জাদ হোসেন (আনারস), সহ-সভাপতি আখলাক হাযদার (দোয়াত কলম), উপজেলা বিএনপির সভাপতি হাজী মোঃ মিজানুর রহমান (টেলিফোন) প্রতীক।
(৬৭)চৌদ্দগ্রাম: চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস সোবহান ভূইয়া হাসান, বিএনপির কামরুল হুদা ও বিএনপির বিদ্রোহী শহিদুল ইসলাম।
(৬৮)ব্রাহ্মণপাড়া: আওয়ামী লীগের বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজি জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ক্যাপ্টেন (মেরিন) জিয়াউল হাসান মাহমুদ, আওয়ামী লীগের অপর বিদ্রোহী শিল্পপতি মোহাম্মদ আবু তাহের, আওয়ামী লীগের আরেক বিদ্রোহী ব্রাহ্মণপাড়া সদর ইউপি চেয়ারম্যান হাজি জসিম উদ্দিন, বিএনপির সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সামছুল আলম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আমেরিকা প্রবাসী আবুল কালাম মজুমদার।
(৬৯)তিতাস: চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন সরকার, স্বতন্ত্র নাছির আলম, নুরুন নাহার পারভীন, আনোয়ার হোসেন ও চরমোনাই পীরের সমর্থক আবদুল হান্নান।

চাঁদপুর:  
(৭০)কচুয়া: চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মো: ইসহাক সিকদার (আনারস), শাজাহান শিশির (কাপ পিরিছ), হুমায়ুন কবির (দোয়াত কলম), ছৈয়দ আ: জব্বার বাহার (মোটর সাইকেল), বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মিজানুর রহমান পাঠান (চিংড়ি মাছ), শাহজালাল প্রধান (টেলিফোন), মকবুল হোসেন (ঘোড়া)
(৭১)হাজীগঞ্জ: আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যাপক আবদুর রশিদ মজুমদার ও গাজী মো. মাঈনুদ্দিন এবং বিএনপির মাওলানা নজরুল ইসলাম ও ড. আলমগীর কবির পাটওয়ারী।

নোয়াখালী:   

(৭২)সেনবাগ: সেনবাগ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থীরা হচ্ছেনথ লায়ন এসএম জাহাঙ্গীর আলম মানিক (আওয়ামী লীগ), আ ন ম গোলাম মোস্তফা ভিপি (আওয়ামী লীগ), আবুল কালাম আজাদ (বিএনপি), কাজী মফিজুর রহমান (বিএনপি), আবদুল্লাহ আল মামুন (বিএনপি)।

লক্ষ্মীপুর:     

(৭৩)কমলনগর: চেয়ারম্যান পদে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান নাগরিক কমিটির ব্যানারে আবুল বারাকাত দুলাল পেয়েছেন কাপপিরিচ, আওয়ামী লীগের নুরুল আমিন রাজু চিংড়ি মাছ, আওয়ামী লীগ সমর্থন বঞ্চিত ইউপি চেয়ারম্যান আশ্রাফউদ্দিন রাজন রাজু দোয়াত কলম, বিএনপি সমর্থিত জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ও সাবেক সভাপতি সৈয়দ মো. শামছুল আলম ঘোড়া, বিএনপির দলীয় সমর্থন বঞ্চিত ইউপি চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন খোকন টেলিফোন, জেএসডি-র অধ্যক্ষ আব্দুল মোতালেব মোটরসাইকেল ও প্রফেসর নুরুল ইসলাম আনারস প্রতীক পেয়েছেন।

চট্টগ্রাম:     

(৭৪)চন্দনাইশ: চন্দনাইশ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী আছেন আওয়ামী লীগের আবুল কাশেম, বিএনপির এম এ হাসেম রাজু। এ ছাড়াও রয়েছেন এলডিপির আবদুল জাব্বার।
(৭৫)সীতাকুন্ড: সীতাকুণ্ডে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের এসএম আল মামুন, নুরুল মোস্তফা কামাল, বিএনপির দিদারুল ইসলাম মাহমুদ ও কাজী সালাহ উদ্দিন। জামায়াতের অ্যাডভোকেট মোস্তফা নুর এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন আবুল কালাম আজাদ, মহিউদ্দিন আহম্মদ মঞ্জু ও মহিউদ্দিন মারুফ।

রাঙ্গামাটি: 
(৭৬)বরকল: বরকল উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী আছেন আওয়ামী লীগের সন্তোষ কুমার চাকমা, জেএসএস (সন্তু লারমা) কাউখালী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী আছেন আওয়ামী লীগের এমএন চৌ, বিএনপির অমরেন্দ্র রোয়াজ ও স্বতন্ত্র অর্জুন মল্লিক।
(৭৭)বাঘাইছড়ি : বাঘাইছড়িতে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী আছেন ইউপিডিএফের বিশ্বজিৎ চাকমা, জেএসএস (সন্তু লারমা) বড়রিচি চাকমা, জেএসএস (এমএন লারমা) সুদর্শন চাকমা।
(৭৮)কাউখালি: কাউখালী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী আছেন আওয়ামী লীগের এমএন চৌ, বিএনপির অমরেন্দ্র রোয়াজ ও স্বতন্ত্র অর্জুন মল্লিক।

মানিকগঞ্জ:  

(৭৯)ঘিওর: ঘিওর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীরা হলেন বর্তমান চেয়ারম্যান আফজাল হোসেন খান জকি (জাসদ), হাবিবুর রহমান (আওয়ামী লীগ), খন্দকার লিয়াকত হোসেন (বিএনপি), বেনজীর আহমেদ (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), রেজাউল করিম উজ্জ্বল (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), ফিরোজ আলম বাবু (বিএনপি বিদ্রোহী), ফরহাদ খান (বিএনপি বিদ্রোহী), আবদুল আলিম খান (বিএনপি বিদ্রোহী), সিরাজুল ইসলাম (বিএনপি বিদ্রোহী), আবদুল হাশেম বিশ্বাস (বিএনপি বিদ্রোহী), কাজী মো. ওয়াজেদ আলী (বিএনপি বিদ্রোহী), শাহ আহম্মদ আলী ভূইয়া (বিএনপি বিদ্রোহী), আবদুল মান্নান (স্বতন্ত্র) রেজাউল করিম (স্বতন্ত্র)।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: 
(৮০)নবীনগর: নবীনগর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোহাম্মদ সাইফুর রহমান সোহেল, বিদ্রোহী প্রার্থী মোহাম্মদ জিয়াউল হক সরকার, মোহাম্মদ মনিরম্নজ্জামান; বিএনপির ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম, বিদ্রোহী মো. মলাই মিয়া।; ইসলামী ঐক্যজোটের মেহেদী হাসান, স্বতন্ত্র কবির আহম্মেদ, মো. হুমায়ন কবির, অ্যাডভোকেট এনামুল হক খায়ের (বেণু)।

ফেনী:  
(৮১)দাগনভূঁইয়া: আওয়ামী লীগ সমর্থিত দিদারুল কবির রতন (ঘোড়া), ১৯ দলীয় সমর্থিত প্রার্থী উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও দাগনভূঞা পৌরসভার সাবেক মেয়র আকবর হোসেন (টেলিফোন), আওয়ামী লীগ নেতা এম. আবদুল হাই মিলন (আনারস), রামনগর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবুল হাশেম বাহাদুর (কাপ পিরিচ), উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক মাতুভূঞা ইউপির চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান বদির (মোটর সাইকেল), জাপা (এ)সমর্থিত প্রার্থী আবদুল ওয়াদুদ (দোয়াত-কলম) প্রতীক পেয়েছেন।

বান্দরবান:  
(৮২)বান্দরবান সদর:বান্দরবান সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বিএনপি সমর্থিত আব্দুল কুদ্দুছ (মোটরসাইকেল), বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম (দোয়াত কলম), আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ক্যসা প্রু মারমা (ঘোড়া), জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) সমর্থিত উইন মং জলি (আনারস)।
(৮৩)আলী কদম: আলীকদম উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত আবুল কালাম (দোয়াত কলম), আওয়ামী লীগ সমর্থিত জামাল উদ্দিন (কাপপিরিচ), বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী ফরিদ আহম্মদ (মোটরসাইকেল), আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী চাহ্লা মং মারমা (আনারস) এবং মিংখিং মারমা (ঘোড়া)।
তাজাখবর-১৮-ফক

Comments
Loading...