ইয়েমেনে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের কার্যালয়ে হামলায় নিহত ১৪

0

ইয়ামেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় বন্দর নগরী এডেনে আত্মঘাতী গাড়িবোমা ও বন্দুক হামলায় ১৪ জন নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া ৪০ জনের মতো আহত হন। শনিবার দেশটির সন্ত্রাসবিরোধী ইউনিটের প্রধান কার্যালয়ের ফটকে হামলায় বেসামরিক ও সামরিক লোকজন হতাহত হয়েছেন।

এডেনের জমহুরিয়া হাসপাতালের কর্মকর্তারা নিহতের সঠিক সংখ্যা বলতে পারেননি। তবে তারা জানিয়েছেন, হতাহতদের হাসপাতালে নিয়ে আসা হচ্ছে। তাদের অধিকাংশই সামরিক বাহিনীর লোক।-খবর আলজাজিরা ও হার্ডিয়ান অনলাইন।

নিজস্ব ওয়েবসাইট আমাকের মাধ্যমে আইএস এ হামলার দায় স্বীকার করেছে।

ইয়ামেনের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত হাদি সরকার এডেন নিয়ন্ত্রণ করছে। দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় বিচ্ছিন্নতাবাদী ও প্রেসিডেন্ট আবদ-রাব্বু মানুসার আল হাদি সরকারের মধ্যে গত মাসে বন্দুকযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর এই প্রথমবারের মতো কোনো বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটল।

স্থানীয়রা বলেন, তারা ব্যাপক বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পেয়েছেন। বিস্ফোরণের স্থান থেকে ধূসর ধোঁয়ার কুণ্ডলী উঠতে দেখা গেছে। হতাহতদের নিয়ে যেতে অ্যাম্বুলেন্স আসতেও দেখা যায়।

২০১৪ সাল থেকে হাদি সরকার ও ইরানসমর্থিত হুতি বিদ্রোহীদের যুদ্ধ চলছে। দেশটির রাজধানী সানা এখন হুতিদের দখলে।

হুতিরা এডেনের দিকে অগ্রসর হলে ২০১৫ সালের মার্চ থেকে সৌদি আরব ও তার মিত্ররা দেশটির হুতি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে বিমান হামলা শুরু করে। এ যুদ্ধে দেশটি এখন দুর্ভিক্ষের প্রান্তে গিয়ে পৌঁছেছে।

নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মকর্তারা বলেন, কার্যালয়ের প্রবেশ মুখে আত্মঘাতীরা বিস্ফোরকভর্তি দুটি গাড়ি উড়িয়ে দেয়। এ সময় দুই বন্দুকধারী ভেতরে প্রবেশের চেষ্টা চালায়। নিরাপত্তা প্রহরীরা তাদের সবাইকে হত্যা করেছে।

এডেনের পুলিশ তাদের ফেসবুক পেজে দেয়া বিবৃতিতে জানায়, তারা বড় ধরনের হামলা রুখে দিয়েছে। সন্ত্রাসবিরোধী ইউনিটের কার্যালয়ের ফটকে ঢোকার আগেই হামলাকারীদের খতম করা হয়েছে।

নিরাপত্তা ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, অন্তত তিন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য, এক নারী ও দুই শিশু নিহত হয়েছে। আহতদের অধিকাংশই বেসামরিক নাগরিক।

Comments
Loading...