ভারতের রাজনীতিক, সাংবাদিক, এমনকি মন্ত্রীদের ফোনে আড়িপাতা হয়েছে, দায়ী মোদি সরকার?

0 ৬২
বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাজনীতিক, সাংবাদিক, আইনজীবী, মানবাধিকারকর্মী সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের স্মার্টফোনে ইসরাইলের তৈরি হ্যাকিং সফটওয়্যার ‘পেগাসাস’ ব্যবহার করে আড়িপাতার ঘটনা ফাঁস হয়েছে। ইসরাইলের এনএসও সংস্থার তৈরি ওই পেগাসাস স্পাইওয়্যারকে কাজে লাগিয়ে ভারতের নরেন্দ্র মোদি সরকারের দুই মন্ত্রী, বিরোধী নেতা-নেত্রী, সাংবিধানিক পদে কর্তব্যরত ব্যক্তি, একাধিক সাংবাদিক ও ব্যবসায়ী সহ প্রায় ৩০০ জন ভারতীয়র মোবাইল ফোনে আড়ি পাতা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আসন্ন অধিবেশনের আগে একে কেন্দ্র করে ঝড় উঠেছে দেশটির রাজনীতিতে। ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ ঘিরে সোমবার সংসদে শাসক দল আর বিরোধী দলের মধ্যে ঝড় উঠতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এমন মন্তব্য করে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে- ইসরাইলি সংস্থা এনএসও যেসব দেশকে পেগাসাস বেঁচেছিল, তাদের তথ্যভাণ্ডার থেকেই প্রায় ৫০ হাজার ফোন নম্বর ফাঁস হয়ে যায়। তার মধ্যে ভারতের ৩০০-র বেশি নম্বর রয়েছে। ফোন নম্বরগুলোর ফরেন্সিক পরীক্ষায় ৩৭টি ফোনে পেগাসাস স্পাইওয়্যার থাকার স্পষ্ট প্রমাণ মিলেছে। যার মধ্যে ১০টি ভারতের।

তাহলে আড়ি পাতার নির্দেশ কে দিয়েছিল? ভারতের বিরোধী দলগুলোর অভিযোগের তীর মোদি সরকারের দিকে। কারণ ইসরাইলি সংস্থা এনএসও আগেই জানিয়েছিল, বিভিন্ন দেশের সরকারকেই শুধু পেগাসাস স্পাইওয়্যার বিক্রি করা হয়েছিল।

বিভিন্ন দেশের নিরাপত্তা ও গোয়েন্দা সংস্থাই এই স্পাইওয়্যার কাজে লাগিয়ে ফোনে আড়ি পেতে থাকে। কিন্তু এক্ষেত্রে সরকারের অনুমতি বাধ্যতামূলক। তাহলে কি মোদি সরকারই নিজের মন্ত্রীদের ফোন আড়ি পাতার আওতায় আনার নির্দেশ দিয়েছিল? এই প্রশ্ন তুলছে বিরোধিরা।

যদিও আড়িপাতার অভিযোগ নস্যাৎ করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রের তরফে বলা হয়েছে, ‘আড়ি পাতা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ ভিত্তিহীন। আগেও হোয়াটসঅ্যাপ এদেশে পেগাসাস স্পাইওয়্যারকে কাজে লাগিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছিল। তবে তার সারবক্তব্য ছিল না, সুপ্রিম কোর্ট হোয়াটসঅ্যাপ সহ মামলার সব পক্ষ অভিযোগ খারিজ করেছে। এই সংবাদ প্রতিবেদনটিও ভারতীয় গণতন্ত্র এবং তার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে কলুষিত করার চেষ্টা এবং সম্পূর্ণ অতিরঞ্জিত তথ্যের উপর ভিত্তি করে ঘোলা পানিতে মাছ ধরার চেষ্টা বলে মনে হয়।’

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৯ সালে ভারতীয় সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মীদের লক্ষ্য করে পেগাসাস স্পাইওয়্যার ব্যবহার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছিল ফেসবুক মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপ। দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসে সেই প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছিল।

mzamin
Comments
Loading...