মুসলিম নারীকে নিলামে বিক্রির ঘটনায় মূলহোতার আত্মহত্যাচেষ্টা

0 ২৭

ভারতে বুল্লি বাই নামে একটি অ্যাপের মাধ্যমে শতাধিক মুসলিম নারীকে ‘নিলামে’ বিক্রির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে অভিযুক্ত প্রধান আসামি নীরাজ বিষ্ণই (২১) আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন।

শনিবার দিল্লি পুলিশের হেফাজতে থাকার সময় দুই দফায় আত্মহত্যার চেষ্টা চালান তিনি।

শনিবার নিজের ক্ষতি করার আগে তিনি আত্মহত্যার হুমকিও দিয়েছিলেন। এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

দিল্লি পুলিশের ইন্টেলিজেন্স ফিউশন অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক অপারেশন (আইএফএসও) স্পেশাল সেলের ডিসিপি কেপিএস মালহোত্রা জানিয়েছেন, মুসলিম নারীদের নিলামে অভিযুক্ত ‘বুল্লি বাই’ অ্যাপের নির্মাতা নীরাজ বিষ্ণই পুলিশি হেফাজতে আত্মহত্যা করার হুমকি দিয়েছে। পরে প্রধান অভিযুক্ত ওই যুবক দুবার নিজের ক্ষতি করার চেষ্টা করে।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, নীরাজ বিষ্ণইয়ের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে এবং দুবার নিজের ক্ষতি করার চেষ্টা করলেও তার কোনো আঘাত লাগেনি। প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান মানসিক অবস্থার কারণেই ওই যুবক আত্মহত্যার হুমকি দিয়ে থাকতে পারেন। অথবা মামলার তদন্ত প্রক্রিয়া বিলম্বিত করতেও তিনি এমনটি করে থাকতে পারেন বলে মনে করছে দিল্লি পুলিশ।

এদিকে নীরাজ বিষ্ণইকে গ্রেফতারের পরই বুল্লি বাই তদন্তে নতুন মোড় নিতে শুরু করেছে। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে একাধিক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে।

স্পেশাল সেলের ডিসিপি মালহোত্রা জানিয়েছেন, অভিযুক্ত বিষ্ণই ‘সুল্লি ডিলস’-এর নির্মাতাদের চেনে বলে স্বীকার করেছে। ওই অ্যাপের মাধ্যমে মহিলাদের ছবি নিলাম করা হতো।

উল্লেখ্য, নীরাজ ভারতের মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপালের একটি ইনস্টিটিউটের দ্বিতীয় বর্ষের ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের শিক্ষার্থী। চলতি সপ্তাহে আসামের জোরহাট জেলা থেকে দিল্লি পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

পুলিশ ইতোমধ্যেই মাইক্রোসফটের মালিকানাধীন সফটওয়্যার-শেয়ারিং প্লাটফর্ম গিটহাবে হোস্ট করা এই অ্যাপটি তৈরি করতে ব্যবহৃত ডিভাইসটি উদ্ধার করেছে। অবশ্য ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসার পর গিটহাব প্রাথমিকভাবে বুল্লি বাই অ্যাপটিকে ব্লক করে দিয়েছিল। পরে অ্যাপটি ডিলিট হয়ে যায়।

Comments
Loading...