স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে থাকার পর অনশন, অতঃপর…

0

ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে থাকার পর বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন শুরু করেন এক তরুণী। টানা তিন দিন প্রেমিকের বাড়িতে অনশন করেন ওই তরুণী। অবশেষে প্রেমিকের সঙ্গে তার বিয়ে সম্পন্ন হয়।

বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা দেনমোহরে মো. হুমায়ুন মোল্লার (২৯) সঙ্গে তানিয়া খানমের বিয়ে সম্পন্ন হয়। বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার ওই তরুণী মঙ্গলবার বোয়ালমারী এসে অনশন শুরু করেন।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার চতুল ইউনিয়নের শুকদেবনগর গ্রামের জবেদ মোল্লার ছেলে মো. হুমায়ুন মোল্লা (২৯) ঢাকার একটি পোশাক কারখানায় কাজ করেন। একই কারখানায় কাজ করেন বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার বড়করপাকর গ্রামের তানিয়া। একই কর্মক্ষেত্রে কাজ করার সুবাদে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং তারা গত আড়াই বছর ধরে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে একসঙ্গে থাকতেন।

একপর্যায়ে কোনো কিছু না বলে প্রেমিক হুমায়ুন সেখান থেকে পালিয়ে যান। পরে কোনো উপায় না পেয়ে ওই তরুণী ২১ সেপ্টেম্বর হুমায়ুনের বোয়ালমারীর গ্রামের বাড়িতে এসে বিয়ের দাবিতে অনশন শুরু করেন।

স্থানীয় চতুল ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (মেম্বার) অলিয়ার রহমান খান বলেন, মঙ্গলবার মেয়েটি হুমায়ুনের বাড়িতে এসে উঠে। তাদের মধ্যে প্রেম ও শারীরিক সম্পর্ক ছিল বলে শুনেছি।

চতুল ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্ট্রার কারামত আলী খান সাংবাদিকদের বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা দেনমোহরে মো. হুমায়ুন মোল্লা ও তানিয়া খানমের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। এ সময় ছেলের পরিবার ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তির উপস্থিত ছিলেন। বিয়ের পর হুমায়ুনের বাড়িতেই অবস্থান করছেন নবদম্পতি।

উৎসঃ   jugantor
Comments
Loading...