বিরোধী মতকে কোনঠাসা করতে গ্রেপ্তার খেলায় মেতেছে সরকার

0 ৭০

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) সাবেক সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক ও ঢাবি শাখা ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি আখতার হোসেনের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছেন ডাকসু সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর। তিনি বলেছেন, লকডাউনের অজুহাতে সরকার আলেম-ওলামা, মাদ্রাসাছাত্র ও বিরোধীদের দমন-পীড়নে ও গ্রেপ্তার খেলায় মেতে উঠেছে। এ সময় আখতারকে মুক্ত করতে আইনি লড়াইয়ের কথা জানান তিনি।

আজ বুধবার রাতে দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে নুর বলেন, বর্তমান সরকার এক দলীয় শাসনব্যবস্থা কায়েম করতে সারাদেশে এভাবে গুম-খুনের রাজত্ব কায়েম করেছে। আজ শুধু ছাত্র অধিকারের আখতার না, সরাদেশে এভাবে আমাদের শত শত নেতা কর্মীকে হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে। মামলার-হামলার ভয় দেখিয়ে কণ্ঠরোধের চেষ্টা হচ্ছে। যে বা যারাই এ সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলছে, তাকেই মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে বন্দি করে রাখছে।

নুর বলেন, মূলত ডাকসু ভিপির নেতৃত্বে সারাদেশের ছাত্র সমাজ সংগঠিত হচ্ছে এটা তারা কোনভাবে মেনে নিতে পারছে না। ছাত্র সমাজ এখন নীতি-নৈতিকতাকে দেখে। কারা তাদের কথা বলছে, তারা তাদেরকেই সমর্থন দিচ্ছে। ছাত্র সমাজকে এখন আর বোকাভাবার সুযোগ নেই।

আখতারের মুক্তি দাবি করে নুর বলেন, এ সরকারের কাছে আমাদের কোন চাওয়া-পাওয়া নেই। এ আওয়ামী সরকার জনগণের আশা-আকাঙ্খা পূরণে ব্যর্থ হয়েছে। তারা এখন লকডাউনের অজুহাতে আলেম-ওলামা মাদ্রাসাছাত্র ও বিরোধীদের দমনে মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার লেখায় মেতে উঠেছে। ডাকসু সমাজসেবা সম্পাদক ও জনপ্রিয় ছাত্র নেতা আখতারসহ মিথ্যা মামলায় আটক সবাইকে মুক্তি দিতে হবে। আমরা দেশবাসী ঐক্যবদ্ধ করার চেষ্টা করছি, এখন ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন ছাড়া দ্বিতীয় আর কেন পথ নেই।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের সামনে থেকে আখতারকে তুলে নেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেন সংগঠনটির নেতারা। পরে রাতে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম বলেন, সম্প্রতি রাজধানীর মতিঝিলে ছাত্র অধিকার পরিষদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এদিকে, রাজধানীর মতিঝিলে ছাত্র অধিকার পরিষদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের করা এক মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সমাজসেবা সম্পাদক ও ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাবি শাখার সভাপতি আখতার হোসেনের দু’দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ বুধবার তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় আসামি ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগে শাহবাগ থানায় করা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ঢাকা মহানগর হাকিম মামুনুর রশীদের আদালতে দু’দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উৎসঃ   দা ডেইলি ক্যাম্পাস
Comments
Loading...