স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা

0 ৬৩

কুমিল্লার বরুড়ায় বিরোধপূর্ণ সম্পত্তির মীমাংসা করতে গেলে জহিরুল ইসলাম (৩৫) নামে এক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা।

বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার শিলমুড়ী উত্তর ইউনিয়নের জীবনপুর গ্রামের হাসেম মার্কেটে এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহত জহিরুল ইসলাম বরুড়া পৌর এলাকার জিনসার গ্রামের আবদুল মালেকের ছেলে। তিনি পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার জীবনপুর গ্রামে সম্পত্তি সংক্রান্ত একটি বিরোধ মেটাতে যান স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা জহিরুল ইসলামসহ কয়েকজন। সেখানে স্থানীয় শিব্বির বনাম আবাদ গ্রুপের মাঝে সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ চলছিল। জহিরুলসহ সঙ্গীয়রা সেখানে গেলে একটি পক্ষ তাদের টার্গেট করে সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনা করে।

এ সময় কয়েকজন সন্ত্রাসী বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে এসে তাদের এলোপাতাড়ি পেটাতে এবং কোপাতে থাকে। এতে জহিরুল ইসলামের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হয়। এ সময় স্থানীয়রা জহিরুল ইসলাম ও রানা নামে আরেকজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জহিরুলকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ভাই জোবায়ের হোসেন বলেন, আমার ভাই কোনো পক্ষ নেননি। ঘটনার সুরাহা করার জন্যই স্থানীয়দের অনুরোধে তিনি সেখানে গিয়েছিলেন। কিন্তু কী কারণে আমার ভাইকে টার্গেট করে হত্যা করা হলো আমরা জানি না। আমি হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

এদিকে নিহত ওই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুটি গ্রুপই নিজেদের গ্রুপের সদস্য বলে দাবি করে।

এ বিষয়ে বরুড়া থানার ওসি ইকবাল বাহার মজুমদার বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছি। ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে লাশ পাঠানো হয়েছে।

প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধ মেটাতে গিয়ে তিনি সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়ে নিহত হয়েছেন। তবে এটি কোনো রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড নয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আমরা তদন্তসাপেক্ষে এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব এবং হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতার করব।
উৎসঃ   jugantor

Comments
Loading...