তিন জেলায় সড়কে ঝরল আট প্রাণ

0 ১৪

গোপালগঞ্জ, শরীয়তপুর ও পঞ্চগড়ে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় আটজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন কমপক্ষে ২১ জন। বৃহস্পতিবার বিকালের বিভিন্ন সময় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও ১০ জন আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার গোপীনাথপুর বিণা উপকেন্দ্রের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

হতাহতদের গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

গোপালগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গোলাম ফারুক জানান, গোপালগঞ্জ থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া ইমাদ পরিবহনের একটি বাস বিণা উপকেন্দ্রের সামনে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মাইক্রোবাসের চালকসহ তিনজন ঘটনাস্থলেই নিহত ও বাসের ১০ যাত্রী আহত হয়।

এদিকে শরীয়তপুর-চাঁদপুর মহাড়কের ভেদরগঞ্জ উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নে একটি লোহার পাইপবোঝাই ট্রাক উল্টে ৩ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হন আরও ৯ জন।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় নারায়ণপুর ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, সাদ্দাম (২২), হালিম (২২), সাজ্জাদুল (২৪)। নিহতরা সবাই জামালপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। এছাড়া খোকন (১৭), জহিরুল (২২), নাজমুল (১৭), হায়দারসহ মোট ৯ জন আহত হয়।

এছাড়া পঞ্চগড় সদর উপজেলার ব্যারিস্টার বাজার এলাকায় ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে তেঁতুলিয়া-পঞ্চগড় মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন-সদরের নতুন বস্তির কাঁচামাল ব্যবসায়ী নুরুজ্জামান খান (৪০) ও ধাক্কামারার মাহাবুবুর রহমান জনি (২৩)।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাতে মোটরসাইকেলে করে তেঁতুলিয়ার ভজনপুরে যাচ্ছিলেন নুরুজ্জামান ও জনি। পথে ব্যারিস্টার বাজার এলাকায় এলে একটি ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়।

সদর থানার ওসি রবিউল ইসলাম যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন।

Comments
Loading...