রাজধানীর ইস্কাটনে যুবকের পা গুঁড়িয়ে চলে যাওয়া গাড়িটি তথ্য কমিশনারের

0 ৯৮

রাজধানীর ইস্কাটন গার্ডেন সড়কে পাজেরো গাড়ির ধাক্কায় রাস্তায় ছিটকে পড়েন মোটরসাইকেলের চালক আহসান মাহমুদ (৩০)। এতে তাঁর বা পায়ের হাড় চার টুকরা হয়ে যায়। পায়ের কয়েকটি জায়গায় হাড় গুঁড়া হয়ে গেছে। চাকরির খোঁজে যে আহসান ছোটাছুটি করছিলেন, তিনি এখন হাসপাতালের বিছানায়।

আহসান মাহমুদ এই দুর্ঘটনার শিকার হয়েছিলেন গত ৩ ডিসেম্বর। এই ঘটনায় গাড়ির নম্বর উল্লেখ করে ১২ ডিসেম্বর তাঁর বড় ভাই ছাইয়েদুল ইসলাম রমনা থানায় মামলা করেন। কিন্তু এক মাসেও গাড়িটি কার, কে চালাচ্ছিলেন, তা বের করতে পারেনি পুলিশ।

তবে গণমাধ্যমের পক্ষ থেকে খবর নিয়ে জানা গেছে, আহসান মাহমুদকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি তথ্য কমিশনের নামে নিবন্ধিত। ব্যবহার করেন তথ্য কমিশনার আবদুল মালেক। দুর্ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি ক্ষুব্ধ হন। গণমাধ্যমের এ বিষয়ে তাঁকে প্রশ্ন করার এখতিয়ার নেই বলেও উল্লেখ করেন।

আহসান মাহমুদ তেজগাঁও কলেজ থেকে ২০১৯ সালে দর্শনে স্নাতকোত্তর পাস করেন। ছয় ভাইবোনের মধ্যে তিনি সবার ছোট। আহসান অনেক দিন ধরে চাকরির খোঁজ করছিলেন বলে জানিয়েছে তাঁর পরিবার।

রমনা থানায় করা মামলায় মো. ছাইয়েদুল ইসলাম উল্লেখ করেন, ৩ ডিসেম্বর দুপুর ১২টা ৩৫ মিনিটে তাঁর ছোট ভাই আহসান মাহমুদ মোটরসাইকেলে করে পরীবাগ থেকে ইস্কাটন গার্ডেন সড়ক দিয়ে যাচ্ছিলেন। সচিব কোয়ার্টারের নতুন ভবনের সামনে পৌঁছামাত্র ঢাকা মেট্রো ঘ ১৮-৩৩৯১ নম্বরের একটি গাড়ি নিয়ন্ত্রণহীনভাবে দ্রুত গতিতে চালিয়ে তাঁর ছোট ভাইয়ের মোটরসাইকেলটিকে জোরে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। তখন দুই পথচারী তাঁকে উদ্ধার করে শেরেবাংলা নগরের জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (নিটোর) নিয়ে যান, যেটি পঙ্গু হাসপাতাল নামে পরিচিতি।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে আহসান মাহমুদ বলেন, রাস্তাটি তখন ফাঁকা ছিল। গাড়িটি হঠাৎ একটি ভবনের ফটক থেকে বেরিয়ে বেপরোয়াভাবে বাঁয়ে বাঁক নেয়। গাড়িটি রাস্তার এতটাই জায়গা নিয়েছিল যে তিনি মোটরসাইকেল সরানোরও কোনো সুযোগ পাননি। গাড়িটি তাঁকে ধাক্কা দিয়ে কয়েক সেকেন্ড দাঁড়ায়। এরপর দ্রুত বেগে চলে যায়। যতটুকু সময় গাড়িটি থেমে ছিল, সে সময়ে তিনি এবং উপস্থিত লোকজন গাড়ির নম্বরটি দেখতে পান।

এই ঘটনায় রমনা থানায় করা মামলার তদন্ত করছেন উপপরিদর্শক (এসআই) নাসির উদ্দিন। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, যে গাড়িটি আহসান মাহমুদকে ধাক্কা দিয়েছিল, সেটি তথ্য কমিশনের নামে রেজিস্ট্রেশন করা। গাড়িটি কার এবং কে চালাচ্ছিলেন, সেটি জানার জন্য কমিশনে চিঠি পাঠানো হয়েছে। উত্তর এলে বিষয়টি জানা যাবে।

শীর্ষনিউজ

Comments
Loading...