এমপির বাসার সামনে ছাত্রলীগে সংঘর্ষে আহত ১০

0 ৬৫
jebunnesa-e1403554047508
শপথ নিচ্ছেন হিরণের স্ত্রী জেবুন্নেছা

বরিশাল: বরিশাল নগরীতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে দশ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। বুধবার রাত সোয়া ৮টায় বরিশাল সদর আসনের সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজের বাসার সামনে এ সংঘর্ষ হয়।

এক পর্যায়ে সংঘর্ষ ব্যাপক আকার ধারণ করলে এমপি জেবুন্নেছা আফরোজের হস্তক্ষেপে শান্ত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাতে এমপির বাসার সামনে হিরন পয়েন্টে বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়- এমপি জেবুন্নেছা আফরোজের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে সন্ধ্যায় তার বাসায় যায় বিএম কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মঈন তুষারসহ ১০-১৫ নেতাকর্মী। একই সময় সেখানে উপস্থিত হয় বরিশাল মহানগর সভাপতি মো. জসিম উদ্দিনসহ ১০-১২ নেতাকর্মী।

এ সময় বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগের নতুন কমিটি গঠন নিয়ে মঈন তুষার এবং জসিম উদ্দিনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায় বিএম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মঈন তুষার মহানগর সভাপতি জসিম উদ্দিনের ওপর চড়াও হয়। এতে জসিম সমর্থিত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠলে উভয় গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ সৃষ্টি হয়।

সংঘর্ষে জসিম উদ্দিন, মঈন তুষার, নাহিদ সেরনিয়াবাত এবং পাসপোর্ট সোহাগসহ উভয় গ্রুপের দশ নেতাকর্মী আহত হয়। এ সময় ভাঙচুর করা হয় এক ছাত্রলীগকর্মীর মোটরসাইকেল।

তবে সংঘর্ষের ঘটনায় জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। এঘটনায় আহতরা বরিশাল নগরীর বিভিন্ন চিকিৎসালয় থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে।

এদিকে, সংঘর্ষের ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতাদের পক্ষ থেকে পরস্পর বিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে।

বিএম কলেজ ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি মঈন তুষার অভিযোগ করে বাংলামেইলকে বলেন, ‘জসিম উদ্দিন এইট পাশ হয়েও দীর্ঘ দিন মহনগর ছাত্রলীগ সভাপতির গুরুত্বপূর্ণ পদটি দখল করে রেখেছে।
মঈন তুষার আরো বলেন, গত ২৫ আগস্ট ছাত্রলীগের বরিশাল বিভাগীয় সমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতারা মহানগর ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের তাগিদ দেন। এ কমিটিতে ফের সভাপতি পদের জন্য এমপির কাছে সুপারিশ চাইতে এসে শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজের (শেবামেক) সভাপতি পিন্স মজুমদারকে লাঞ্ছিত করলে কলেজ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জসিমকে পেটায়।

এদিকে, মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে মহানগর ছাত্রীগের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বাংলামেইলকে বলেন, ছাত্রলীগ নেতা মঈন তুষার বিএম কলেজের অধ্যক্ষ শংকর দত্তকে পিটিয়ে সারাদেশে সমালোচনার ঝড় তুলেছেন। এখন ছাত্রত্ব শেষে সে মহানগর ছাত্রলীগের কমিটিতে অন্তর্ভূক্ত হতে চাইছেন। এ কারণে সে কর্মীদের নিয়ে এমপির বাসায় সুপারিশ চাইতে এলে মহানগর নেতাকর্মীরা তাদের পেটায়।

বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি মডেল থানার সহকারী পুলিশ (এসি) কমিশনার মাহমুদ হাসান বাংলামেইলকে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে র‌্যাব-পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। তবে এঘটনায় জড়িত কাউকে আটক করা যায়নি।

এসি মাহমুদ বলেন, ‘সংঘর্ষের ঘটনায় কেউ থানায় লিখিত অভিযোগও দেয়নি। তবে লিখিত অভিযোগ পেলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

Comments
Loading...