কলকাতার হারের জন্য গৌতমই যথেষ্ট!

0 ১১

image_77582.gautam-gambhir_15আইপিএলের সপ্তম আসরের গতকালের খেলায় কলকাতা নাইট রাইডার্সকে (কেকেআর) ২৩ রানে হারিয়েছে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। গতকাল কলকাতার বোলিং সাইড তাদের দায়িত্ব বেশ ভালোভাবেই পালন করেছে সেটা বলা যায় জোর দিয়েই। কারণ, পাঞ্জাবের মূল শক্তিতে পরিণত হওয়া গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ঝড় তোলার আগেই তাকে প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠাতে সক্ষম হয়েছে তারা। ম্যাক্সওয়েলকে ক্লিন বোল্ড করে সাজঘরে পাঠান মর্কেল। ম্যাক্সওয়েলের সংগ্রহ তখন ১২ বলে ১৫ রান।
পাঞ্জাবের বীরেন্দর সেহবাগ ছাড়া কোনো ব্যাটসম্যানই ২০ রানের কোটা পেরোতে পারেননি। সেহবাগ করেন ৩০ বলে ৩৭ রান। ডেভিড মিলারের মতো ব্যাটসম্যান আউট হন মাত্র ১০ বলে ১৪ রান করে। কলকাতার পক্ষে বোলিংয়ে মুন্সিয়ানা দেখান পীযূষ চাওলা। চার ওভারে মাত্র ১৯ রান দিয়ে তিনি তুলে নেন তিনটি মূল্যবান উইকেট। বোলিংয়ে কাল কলকাতা ছিল দারুণ।
১৩২ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র এক রান করে আউট হয়ে ফের দলকে চাপের মুখে ফেলেন কেকেআর অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর। পাঁচ বলে তিনি করেন ওই এক রান। কেকেআরের মূল ব্যাটিং শক্তি জ্যাক ক্যালিসও বালাজির বলে মাত্র ৯ রান করে সাজঘরে যান। নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান মনীষ পান্ডে ফেরেন ১০ বলে আট রান করে। কলকাতার পক্ষে যে কাজটি করেছেন পিযূষ পাঞ্জাবের পক্ষে সেই কাজটি করেন সন্দীপ শর্মা। যার ওভারে ২১ রান দিয়ে তুলে নেন মূল্যবান তিনটি উইকেট। খেলার শুরু দিকে গম্ভীরের আউট হওয়ার চাপ যে তার দল সব সময় সামলাতে পারবে না সেটা হতকাল প্রমাণ হয়ে গেল। এখন কি গৌতম তিন বা চার নম্বরে নামার কথা ভাববেন? নাকি পরের খেলায়ই তার ফর্ম ফিরে পাবেন ভেবে একইভাবে ওপেনিংয়ে নামবেন এবং দ্রুত আউট হয়ে দলকে অব্যাহত চাপের মুখেই রাখবেন? তার খেলায় ধারাভাষ্যকাররা পর্যন্ত বিরক্ত হয়ে উঠেছেন।
রমিজ রাজা তো গতকাল বলেই ফেললেন, “এভাবে ব্যর্থ হলে চাপ অনেক বেড়ে যায়। এবার গম্ভীরকেই ঠিক করতে হবে খেলা চালিয়ে যাবে, না টিমের দ্বাদশ ক্রিকেটার হিসেবে নিজেকে রাখবে। তবে একটা কথা বলে রাখি টি-টোয়েন্টিতে কিন্তু ফর্ম একবার হারিয়ে গেলে ফিরে পেতে অনেক সময় নেয়।” গম্ভীরকে ভারতীয় মিডিয়ার হয়ে অনেক ক্রীড়া সাংবাদিক অনেক টিপস দিয়েছেন দলের জন্য পরবর্তী করণীয় ঠিক করতে। সেসব ভুলেও মাথায় নেননি তিনি। প্রতিটি ম্যাচের পরেই অজুহাত খুঁজে নতুন নতুন ব্যাখ্যা দিয়েছেন তিনি। গতকাল ম্যাচ শেষে যেমন গম্ভীর বলেছেন, “রান তাড়া করে ম্যাচটা জেতা উচিত ছিল আমাদের। বিশেষ করে মাঠে যে রকম শিশির পড়েছিল। তাতে আমাদের রানটা তুলে দেওয়া উচিত ছিল। সূর্য যথেষ্ট প্রতিভাবান ব্যাটসম্যান। ও আরও বেশি সুযোগ পাবে। ব্যাটিং অর্ডারেও ভাল জায়গায় নামবে। আমাদের বোলাররা দুর্দান্ত বল করেছিল।”

Comments
Loading...