টি-২০ বিশ্বকাপ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান নিয়ে তুমুল বিতর্ক,দেশিও লিজেন্ডরা অপমানিত

0 ২২

PM_1_13.03.2014_Kallol

খেলা ডেস্ক :টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ উদ্বোধন অনুষ্ঠান চলছে এখন। এই অনুষ্ঠানের টিকিট থেকে শুরু করে বাংলাদেশি শিল্পীদের গান গাওয়ার সময় নিয়ে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা চলছে। বাংলাদেশের ব্যান্ড দল এলআরবি মঞ্চে উঠে গান পরিবেশন শেষ হওয়ার পর দর্শকদের করতালি নিয়ে মন্তব্য করেন আইয়ুব বাচ্চু। তা দিয়েই সূত্রপাত আলোচনা-সমালোচনার।

বাচ্চু বলেন, “আপনারা যারা বাংলা গান শুনছেন, তাদের অনেক ধন্যবাদ। আপনাদের হাত না চলুক, চোখ আর কান তো খোলা আছে? এতেই চলবে, হাততালি এখন খরচ করে লাভ নেই। এটা পরের জন্য রেখে দিন, চোখ কান খোলা আছে, এটাই যথেষ্ট। আপনারা ধৈর্য ধরে বাংলা গান শুনছেন, তার জন্য অনেক ধন্যবাদ।”

টিকিটের চড়া মূল্য ও বাংলাদেশি শিল্পীদের মূল্যায়ন না করায় ফেসবুকে সমালোচনা চলছে।

মিডিয়া ব্যক্তিত্ব আব্দু নূর তুষার লিখেছেন- ‘হিন্দিগানের কনসার্টে আমাদের বাংলা ভাষা সাইড লাইনে বসে আছে! আহা! এর মধ্যে এক স্থুলান্গিনী গায়িকা স্বল্পবসনে জিয়ারে জিয়ারে বলে চিত্কার করে গান গাইল! এর সাথে এক পন্ডিত, উদিত ও অন্যান্যরা রহমান ভাই এর মাঝখানে আসা যাওয়া করছেন। মার্চ মাসে ভালই “চেতনা” পেলাম!’

সঙ্গীত শিল্পী আলিফ আলাউদ্দিন লিখেছেন- ‘নিজেদের সম্মান করলে, অন্যেরাও তাদের সম্মান করে। আমরা নিজেদের সম্মান করতে শিখিনি, তাই অন্যের কাছ থেকে সম্মান আশা করাটাও ভুল। শেম অন বিসিবি ফর ট্রিটিং আওয়ার আরটিস্টস লাইক দিস।

বাই দ্যা ওয়ে, ৭৫০০০ টাকা দিয়ে টিকেট কিনে কেমন লাগছে? একদম “হোলি” লাগছে নিজেকে তাই না?”

লেখক ও সাংবাদিক মঈনুল আহসান সাবের লিখেছেন- ‘এ আর রহমানের গান শোনার জন্য অনেকে পঁচাত্তর হাজার টাকা গুণছেন, এ নিয়ে দেখছি বিশাল তোলপাড় শুরু হয়েছে। ভাইরে, এ তো গান শোনা। যারা এই খরচটা করছেন, তাদের অনেকেই এক রাতে আরও অনেককিছুতে এর চেয়ে বহুগুণ বেশি খরচ করেন। তা ছাড়া আমাদের দেশের বিত্তবান মানুষের কাছে এটা এমনিতেও এমন কোনো টাকা না।’

”বোধ বলে একটা শব্দ আছে যেটা কিছু কিছু অর্গানাইজার ভূলে যান… দুর্ভাগ্য আমাদের দেশের শিল্পী কুলের..” লিখেছেন সঙ্গীত শিল্পী বাপ্পা মজুমদার।

গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার লিখেছেন- ‘ধরে নিলাম এ আর রহমান, একন(AKON) সহ যারা এসেছেন তারা অনেক নামি-দামি শিল্পী। তারা এদেশে এসেছেন আমাদের উচিত তাদের সম্মানিত করা যাতে আমাদের সম্বন্ধে তারা ইতিবাচক ধারণা পোষণ করেন। এতে কি কেউ আপত্তি করছে? একজন মেহমানকে সম্মান জানাতে হলে কি নিজের ছেলে-মেয়েকে অপমান করতে হবে? মেহমানকে চেয়ারে বসতে দিয়ে কি নিজের সন্তানকে ফ্লোরে বসতে দিতে হবে? কেনো, একাধিক চেয়ার হলে সমস্যা কোথায়? ২টা এসি গ্রিনরুম হলে সমস্যা কোথায়? একই সাউন্ড সিস্টেমে আমাদের লিজেন্ডরা গাইলে সমস্যা কোথায়?

বুঝলাম, আন্তর্জাতিক আয়োজন অন্য ভাষার লোকেরাও অংশগ্রহণ করবে। এটা কি বিশ্বকাপ উদ্বোধনীর প্রথম আয়োজন? অন্য দেশ গুলোর আয়োজন কি আমরা দেখিনি? আমরা কি দেখিনি তারা নিজেদের ভাষা, সংস্কৃতিকে কিভাবে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয় এধরণের আয়োজনে? তাহলে আমরা দিলে কি মহাভারত অন্যায় হয়ে যেতো?

আসলে এই মুহুর্তে আমি খুব কনফিউশনে আছি এই অনুষ্ঠানের আয়োজক কারা। দেখলাম অনুষ্ঠানের নাম দেয়া হয়েছে ‘BCB Celebration Concert’। কেউ যদি নিশ্চিত করতেন, এই BCB মানে কি ‘Bangladesh Cricket Board’ নাকি ‘Bharotio Cricket Board’!!?’

অন্তর রায় নামের একজন প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করেছেন- ‘আইয়ূব বাচ্চু ভাইয়ের গানের সময় হাততালি পড়ত, যদি আজকের এই কনসার্টের টিকিটের মূল্য হতো সর্বোচ্চ ২ হাজার টাকা, আর সর্বনিন্ম ২০০ টাকা। ২০ হাজার, ৭৫ হাজার টাকার টিকেটে হাততালি আশা করাটাই ভুল। কারন তারা দেশের জনসংখ্যার কত পার্সেন্ট? ২%। এরা তালি দিলেও কিছু না বস, না দিলেও কিছু না। আপনি আছেন অন্তরে, হৃদয়ে।’

মহামান্য কহেন নামের একজন বলেছেন- ‘ফেলানীর দেশে এ আর রহমান এসেছেন। বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট তাই এ ব্যাপারে তেমন কিছু বলার নাই। এশিয়ার জিম মরিসন বলে যাকে স্বীকৃতি খোদ ভারতীয়রা দিয়েছে সেই জেমস কই? আইয়ুব বাচ্চু ভারতের মাটিতে জন্মালে বিশ্বের অন্যতম সেরা গিটারিস্ট বলে এই আমরাই নাচতাম। এ আর রহমানের দাম বেশি, কারণ তিনি ভিনদেশী। তার দেশের মার্কেট বড় বলেই তিনি কিংবদন্তী। মার্কেট ছোট আর আমাদের মধ্যকার হীনমন্যতার জন্য আইয়ুব বাচ্চুর দাম কম। জেমস বলে কেউ থাকেন না। ছলছল চোখে আইয়ুব বাচ্চু বললেন-

“আপনারা যারা বাংলা গান শুনছেন তাদের অনেক ধন্যবাদ। আপনাদের হাত না চলুক, চোখ আর কান তো খোলা আছে?…”

এতটা বেজন্মা কেন আমরা? নিজের জাতি, পরিচয়, ভাষা সংস্কৃতি পদদলিত করে বিজাতিয় যে কোন কিছুতেই আমাদের ভীষণ রুচি। ভাগ্যিস, বাবা দেশী বিদেশী বেছে নেবার সুযোগ প্রকৃতি দেয় নাই। থাকলে অনেকেই এ দেশ ওদেশে বাপ খোঁজা শুরু করে দিত।।’

শুভ্র সিনহা রায় লিখেছেন-  ‘বাংলাদেশের টি-২০ বিশ্বকাপের উদ্ধোধন অনুষ্ঠান দেখে মনে হচ্ছে ভারতের আইফা এওয়ার্ডের অনুষ্ঠান।’

Comments
Loading...