ডিজিটালের তালে অপরাধী ধরতে পুলিশের ডিজিটাল কৌশল

0

CMP-300x195চট্টগ্রাম: অপরাধী ধরতে নিজস্ব ফেসবুক পাতায় ছবি ছাপিয়ে প্রচার করছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)। এছাড়া ভিডিও শেয়ারিংয়ের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইউটিউবে নাশকতার ফুটেজ পোস্ট করেও অপরাধীদের খোঁজ চাওয়া হচ্ছে।
অপরাধীদের ব্যাপারে তথ্য জানাতে https://www.facebook.com/cmp.ctg?ref=hl ঠিকানায় একটি অফিসিয়ার পাতা খুলেছে সিএমপি।

‘প্রিয় নগরবাসী, গত ৩০-১১-২০১৩ ইং তারিখ নগরীর একেখান মোড় এলাকায় এই ছেলেটি পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এই ছেলেটির ব্যাপারে যদি কোন তথ্য থাকে তাহলে সিএমপি পুলিশকে জানানোর জন্য সবিনয় অনুরোধ করা হল।’ এসব কথা লিখে নগরবাসীর সহায়তা চাওয়া হচ্ছে। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম থেকে প্রাপ্ত ভিডিও ফুটেজ ইউটিউবে শেয়ার করা হচ্ছে। নাশকতাকারীদের ধরতে সহায়তা দিলে পরিচয়ও গোপন রাখার নিশ্চয়তাও দিচ্ছে পুলিশ।

এভাবে বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচিতে নাশকতা সৃষ্টিকারীদের ধরতে এ ডিজিটাল কৌশল নিয়েছে সিএমপি। এছাড়া আরেকটি কৌশল ডিএমপি প্রয়োগ করে কিছুটা সফল হওয়ার পর গত ২ ডিসেম্বর থেকে সিএমপিও চালু করেছে: সিএমপির ১৬টি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের (ওসি) নিয়মিত ছবি পাঠানো হচ্ছে। সেই ছবি দেখে দুর্বৃত্তদের ধরছে থানা পুলিশ।

গত ৩০ নভেম্বর দুপুরে নগরীর এ কে খান মোড়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি বর্ষণ করে দুবৃত্তরা। এসময় দুই পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে কাউকে আটক করতে না পারলেও ওই দিনই ফুটেজ দেখে ঘটনায় অংশ নেয়া একজনকে আটক করে পুলিশ। এভাবে ফুটেজ দেখে তাদের চিহ্নিত করার পাশাপাশি জনগণকে পুলিশের এই অভিযানে সম্পৃক্ত করতে ফেসবুক প্রচারণার আশ্রয় নিয়েছে সিএমপি।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম থেকে পাওয়া ফুটেজ ছাড়াও সিএমপির নিজস্ব ক্যামেরাম্যানের মাধ্যমে নাশকতার ছবি সংগ্রহ করা হচ্ছে। এরপর নাশকতার পর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে আটকের পর আসল নাশকতকারীদের সনাক্ত করতে এসব মাধ্যম খুব কার্যকর ভূমিকা রাখছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার বাবুল আক্তার বলেন, ‘নাশকতাকারীরা তাদের আন্দোলনে মোবাইলের এসএমএস, ফেসবুক ও ব্লগ ব্যবহার করছে। তারা প্রযুক্তি ব্যবহার করে এসব নাশকতা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু তারা বরাবরই থেকে যাচ্ছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। তাই সিএমপির পক্ষ থেকে নাশকতাকারীদের ধরতে ডিজিটাল এ পদ্ধতি বেছে নেয়া হয়েছে। এভাবে অনেককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সনাক্ত হওয়া অনেক নাশকতাকারীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

এ গোয়েন্দা কর্মকর্তা আরো বলেন, ‘যারা তথ্য ও ছবি দিয়ে পুলিশকে সাহায্য করবে তাদের তথ্য গোপন রাখা হবে। এছাড়া ফেসবুকে যারা ম্যাসেজ দেবেন তাদের এই ম্যাসেজগুলো কেউ দেখতে পারবে না। শুধু আমরাই দেখবো।’ এনিয়ে সিএমপিতে একটি মিডিয়া সেল কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

Comments
Loading...