‘বাংলাদেশের উন্নয়ন হলে সেটা ভারতেরই উন্নয়ন’ : সন্দ্বীপ চক্রবর্তী।

0

sandip.thumbnailগোপালগঞ্জ: বাংলাদেশের উন্নয়ন হলে সেটা ভারতেরই উন্নয়ন বলে দাবি করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় ডেপুটি হাইকমিশনার সন্দ্বীপ চক্রবর্তী। তিনি বলেছেন, ‘বাংলাদেশ একটি শক্তিশালী রাষ্ট্র হোক ভারতের স্বার্থেই এটা ভারত চায়। আমরা মনে করি, বাংলাদেশে কোনো উন্নয়ন হলে সেটা আমাদের নিজেদের হয়। আর সেজন্য ভারত সব সময় বাংলাদেশের সাথে রয়েছে’।

বৃহস্পতিবার দুপুরে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় ভাঙ্গারহাট কাজী মন্টু কলেজে নবনির্মিত প্রজ্ঞা মহিলা হোস্টেলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ-ভারতের সম্পর্ক রক্তের সম্পর্ক, মুক্তিযুদ্ধের সম্পর্ক। আমরা যা-ই করি, এটা কোনো দিন ভুলতে পারবো না। আমাদের মধ্যে এতো বন্ধন যে পৃথিবীর অন্য কোনো  দুই দেশের এমন সম্পর্ক নেই।

ডেপুটি হাই কমিশনার বলেন, যে দেশে নারী শিক্ষা পিছিয়ে আছে সে দেশ পিছিয়ে যায়। তাই বাংলাদেশের নারী শিক্ষার দিকে আরও মনোযোগী হতে হবে। নারীরা শিক্ষিত হলে জাতি শিক্ষিত হবে, জাতির উন্নয়ন হবে। নারী শিক্ষাসহ সকল শিক্ষার উন্নয়নের জন্য ভারত সরকার বাংলাদেশকে সহযোগিতা করছে। আগামীতে বাংলাদেশিদের জন্য ভারতে লেখাপড়া, স্কলারশিপসহ শিক্ষা সংক্রান্ত অন্যান্য সুযোগ সুবিধা বাড়ানো হবে।

তিনি তার অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, দীর্ঘ দিনের ইচ্ছা ছিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মাজার জিয়ারত করার। সেই ইচ্ছা এই হোস্টেল উদ্বোধন করতে এসে আমার পূরণ হয়েছে।

কোটালীপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান বিমল কৃষ্ণ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ভারতীয় দুতাবাসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা আর ম্যাসাকিউ, তরনী কান্তি অধিকারী, অধ্যক্ষ গৌরাঙ্গ লাল অধিকারী, মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুল হক, নিত্যানন্দ বিশ্বাস প্রমুখ।

ভারতীয় অর্থায়নে এ হোস্টেল দুটি নির্মাণে ১ কোটি ৬২ লাখ ৪৯ হাজার টাকা ব্যয় হয়েছে। এখানে মোট ৭২ জন শিক্ষার্থী থাকতে পারবে।

Comments
Loading...