বাংলাদেশের টিভি চ্যানেল ভারতে চলা উচিত- অরিজিত সিং

0 ২২

Orjit_singঢাকা: ‘বাংলাদেশকে নিজের দেশের মতোই মনে হয়। এখানে এসেছি কয়েক ঘণ্টা হয়েছে। তবে কোন পার্থক্য করতে পারছি না। তবে হ্যাঁ, এ দেশের মানুষ একটু বেশি অতিথিপরায়ণ। এ বিষয়টি আমার সব থেকে ভাল লেগেছে। আর বাংলাদেশের রাজশাহীতে কিন্তু আমার একজন দিদা থাকেন। এটা হয়তো অনেকেই জানেন না। সব মিলিয়ে  অল্প সময় হলেও বাংলাদেশ সফরটা বেশ উপভোগ করছি’- মানবজমিনের সঙ্গে আলাপকালে এ কথাগুলো বলছিলেন ভারতের চলতি সময়ের জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী অরিজিত সিং।

বলিউড ও কলকাতায় ছবিতে গান গেয়ে শুধু ভারতেই নয়, বাংলাদেশের শ্রোতাদের কাছেও ব্যাপক জনপ্রিয় এখন অরিজিত। গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টায় তিনি ঢাকায় আসেন। বিমানবন্দর থেকে তিনি সরাসরি চলে যান ওয়েস্টিন হোটেলে। এটি অরিজিতের প্রথম বাংলাদেশ সফর। মূলত গতকাল রেডিসন হোটেলের বলরুমে আয়োজিত একক কনসার্টে অংশ নিতেই তার এ সফর।

সাভারের রানা প্লাজা দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যার্থে এ কনসার্টটির আয়োজন করে সিগন্যাল ইভেন্টস। কনসার্টের পিআর-এর (মিডিয়া) দায়িত্বে ছিল ক্রিয়েটিভ বাংলাদেশ। এ কনসার্ট থেকে আয়কৃত অর্থ রানা প্লাজা দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যার্থে দেয়া হবে।

এদিকে কনসার্টের আগে গতকাল বিকাল সাড়ে চারটার দিকে রেডিসন হোটেলের লবিতে তিনি কথা বলেন সাংবাদিকদের সঙ্গে। তার আগে মানবজমিনের সঙ্গে একান্ত একটি সংক্ষিপ্ত সাক্ষাৎকার দিয়েছেন অরিজিত।

বাংলাদেশে এসে কেমন লাগছে? ঘুরে বেড়াবার ইচ্ছে আছে কি? এমন প্রশ্নের জবাবে বেশ আগ্রহভরা কণ্ঠে অরিজিত বলেন, বাংলাদেশে এসে মনে হচ্ছে আমি আমার দেশেই আছি। তবে আজকেই এসেছি এবং সন্ধ্যায় কনসার্ট রয়েছে, তাই ঘুরে বেড়ানোর তেমন সুযোগ নেই। তবে কনসার্টের আগে খানিক সময় নিয়ে আমি কেনাকাটা করতে চাই। ব্যাস, এতটুকুই। পরে আসলে অবশ্যই এ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাওয়ার ইচ্ছে আমার রয়েছে। আর দেখুন বাংলাদেশ বলে নিজের ভাষায় এখানে আপনার সঙ্গে কথা বলতে পারছি। এটা কিন্তু অন্য দেশ হলে সম্ভব ছিল না। তাই আমার খুব আপন আপন একটা ব্যাপার কিন্তু বাংলাদেশে রয়েছে।

গত বছর বলিউড এ ‘আশিকি-২’ ছবির ‘তুম হি হো’ এবং কলকাতার ‘বোঝে না সে বোঝে না’ ছবির শীর্ষ সংগীতসহ একাধিক গান দিয়ে আকাশচুম্বি সফলতা পাওয়া অরিজিত মাঝে মধ্যেই বাংলাদেশের গান শোনেন, তেমনটাই বেরিয়ে আসলো তার মুখ থেকে।

এ বিষয়ে অরিজিত বলেন, বাংলাদেশের শিল্পীদের গান শোনা হয়। তপুর গান আমার অনেক ভাল লাগে। তাছাড়া আইয়ুব বাচ্চু, জেমস-এর গানও শোনা হয়। বাংলাদেশে গান করার ইচ্ছে আছে কিনা জানতে চাইলে অরিজিত সিং বলেন, বাংলাদেশের একতার মিউজিকের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তবে পাকাপাকি হয়নি। কথা এগুলে হয়তো এখানে কাজ করা হতে পারে। আর চলচ্চিত্রে ভাল প্রস্তাব পেলে অবশ্য কাজ করবো।

ক’দিন আগেই আপনি বিয়ে করেছেন, সংসার কেমন চলছে? উত্তরে মুচকি হেসে অরিজিত বলেন, বিয়ে করার পর জীবন খানিক পাল্টে গেছে। তবে সেটা পজিটিভ। সংসার ভালই চলে যাচ্ছে। বাংলাদেশ নিয়ে কথা বলতে বলতে অরিজিত সিং জানান, তার দিদার বাড়ি বাংলাদেশের রাজশাহীতে। তাই বাংলাদেশ সম্পর্কে বেশ ভাল ধারণাই রয়েছে তার।

বাংলাদেশের টিভি চ্যানেল ভারতে চলতে দেয়া হচ্ছে না। তাছাড়া বাংলাদেশের শিল্পীদেরও ভারতে আয়োজিত কনসার্টে খুব একটা ডাকা হয় না, যেমনটা ভারতের শিল্পীদের ডাকা হয় এ দেশে। বিষয়টি নিয়ে আপনার মতামত কি? অরিজিত বলেন, এটা ঠিক না। বাংলাদেশের চ্যানেল অবশ্যই ভারতে চলা উচিত। বিশেষ করে কলকাতায়। আর বাংলাদেশের টিভি চ্যানেল ভারতে না চলার বিয়ষটি নিয়ে আমি আগেও শুনেছি। কিন্তু চ্যানেল চলার পথে অন্তরায় কোথায় সেটা নিজেও খুঁজে পাইনি। তবে আমি অশাবাদী যে সামনে বাংলাদেশের টিভি চ্যানেল নিয়মিতভাবে ভারতে চলবে।

আর বাংলাদেশের কিছু শিল্পী কিন্তু নিয়মিতই কাজ ও কনসার্ট করছে ভারতে, হয়তো সংখ্যায় কম। তবে আশা করি সেই সংখ্যাটাও বাড়বে।

এদিকে সাভারের রানা প্লাজা ধ্বশে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যার্থে আয়োজিত অনুষ্ঠানে গান গাওয়া প্রসঙ্গে অরিজিত বলেন, সাভারের ট্র্যাজেডির কথা আমি শুনেছি। মর্মান্তিক একটি ঘটনা এটি। সে কারণে এ কনসার্টে অংশ নিতে আমি আরও বেশি আগ্রহ বোধ করেছি। কনসার্টে আমি আজ হিন্দীর পাশাপাশি বাংলা গানও গাইবো।

কেনাকাটা ও খানিক প্র্যাকটিসের পর গতকাল সন্ধ্যা ৭টার দিকে রেডিসন হোটেলের বলরুমের মঞ্চে উঠেন অরিজিত। প্রায় ১২০০ দর্শকের সামনে তিনি প্রায় আড়াই ঘণ্টাব্যাপী বাংলা ও হিন্দি গান পরিবেশন করেন। কনসার্ট শেষ করে গতকাল রাতের ফ্লাইটেই ঢাকা ছাড়েন অরিজিত।

Comments
Loading...