বাংলাদেশে পাচার হচ্ছে ভারতীয় কনডম! কারণ কি ?

0

image_49930_0ভারত থেকে সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস পাচার হওয়ার কথা এতদিন জানা ছিল। তবে সেই তালিকায় এবার ঢুকে পড়েছে কনডমও। সম্প্রতি পেট্রাপোল সীমান্তে রুটিন চেক করতে গিয়ে শুল্ক দপ্তরের কর্মীরা দেখতে পান লরিভর্তি কনডম যাচ্ছে বাংলাদেশে। কিন্তু কাগজপত্রে তার কোনো উল্লেখ নেই। বাজেয়াপ্ত করা হয় লরিটিকে। সেই সঙ্গে গ্রেপ্তার করা হয় তিনজনকে। তাদের জেরা করেই জানা গেছে, ইতিমধ্যেই ১৪টি লরিতে করে কনডম পাচার হয়েছে বাংলাদেশে।

কনডমগুলি বিনামূল্যে মানুষের মধ্যে বিলি করার জন্য বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের কাছে সরবরাহ করার উদ্দেশ্যে পশ্চিমবঙ্গে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সেগুলিই বেআইনিভাবে বাংলাদেশে পাঠানো হচ্ছিল। কিন্তু বাংলাদেশে কনডম পাচারের রহস্য কি সেটাই ভেবে পাচ্ছেন না তদন্তকারীরা। ধৃতরাও জানাতে পারেনি কেন সেগুলি বাংলাদেশে পাঠানো হচ্ছিল।

জানা গেছে, এইডস প্রতিরোধে যে সরকারি কর্মসূচি রয়েছে তারই অংশ হিসেবে দিল্লির স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান পরিবার সেবার নামে কনডোমগুলি সরবরাহের জন্য পশ্চিমবঙ্গে আনা হয়েছিল। সেগুলিই লরিতে করে পাচার হয়েছে এবং হচ্ছিল।
তবে শুল্ক দপ্তরের সহকারী কমিশনার (প্রিভেন্টিভ) শৈলেন্দ্র সিং জানিয়েছেন, দিল্লির স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের কর্তারা বাজেয়াপ্ত করা কনডমের কার্টনগুলি তাদের নয় বলে জানিয়েছে।
শুল্ক দপ্তর সুত্রে জানা গেছে, যে লরিটি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে তার মধ্যে প্রায় দেড় কোটি রুপির দুটি ব্র্যান্ডের কনডোম ছিল। এগুলি বিক্রির জন্য নয় বলে ছাপ দেওয়া রয়েছে।

Comments
Loading...