বাংলাদেশ দল বদলে যাচ্ছে : পাপন

0 ২০

paponঘরের মাঠে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের ব্যর্থতায় ক্রিকেটারদের পারফরমেন্স নিয়ে রীতিমতো হতাশ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তাই, বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার আগেই আজ শনিবার মিরপুরে জরুরী বোর্ড সভা ডাকেন বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপি। সভায় ২০১৫ সালের অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় আইসিসি বিশ্বকাপের আগেই জাতীয় দলের বড় পরিবর্তন ছাড়াও অনেক বিষয়ে নিয়ে আলোচনা হয়।

সকাল ১১ টায় বিসিবিতে বোর্ড সভা শুরু হয়ে প্রায় চার ঘণ্টার সভা শেষে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, আমি আগামী ৮ এপ্রিল আইসিসির সভায় যোগ দিতে ৭ তারিখেই ঢাকা ছাড়বো। তাই কিছু ইস্যু নিয়ে দেরী করা সম্ভব নয় বলেই আজকের এই জরুরি বোর্ড সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এখানে বেশ কিছু বিষয়ে আলোচনা হয়। তার মধ্যে আইসিসি বিশ্বকাপ, ঘরোয়া ক্রিকেট, জাতীয় দলের ব্যর্থতা, টিম ম্যানেজমেন্ট, কোচ ছাড়াও অনেক কিছু নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

বিশ্বকাপ প্রসঙ্গে বিসিবি সভাপতি বলেন, বাংলাদেশে চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল পর্যন্ত সফলভাবে করতে পারায় সকলকেই ধন্যবাদ দিতে হচ্ছে। আইসিসি বাংলাদেশে চলমান বিশ্বকাপ নিয়ে দারুণ খুশি হয়েছে। আইসিসি জানিয়েছে বাংলাদেশের মানুষ বিশ্বের অন্য সব দেশের চেয়ে বেশি ক্রিকেটপ্রেমি। এ ধরণের দৃষ্টান্ত বিশ্বের অন্য কোন দেশেই নেই।

জাতীয় দলের ব্যর্থতা প্রসঙ্গে পাপন বলেন, জাতীয় দলের ব্যর্থতার বিষয়ে আমরা টিম ম্যানেজমেন্টের কাছে রিপোর্ট দিতে বলেছি। রিপোর্ট হাতে পেলেই আমরা বুঝতে পারবো কোথায় কোথায় সমস্যা হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পেলেই টিম ম্যানেজমেন্ট, প্রধান কোচের বিষয়ে এক সপ্তাহের মধ্যেই সিদ্ধান্ত হবে। অর্থাৎ বিসিবির পরবর্তী মিটিংয়ে এ বিষয়গুলোর সিদ্ধান্ত হবে।

এছাড়াও তিনি বলেন, আমি নিজেও খেলা দেখেছি। অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ভারত ও পাকিস্তানের স্পিনাররা যে মাঠে স্পিন বলে দারুণ সফলতা পেয়েছে সেখানে আমাদের স্পিনাররা দারুণভাবে ব্যর্থ হয়েছে। ব্যাটিংয়েও ব্যর্থ হয়েছে তারা। তাই টিমে বেশ কিছু পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা খুব তাড়াতাড়ি দলের বেশ কিছু খেলোয়াড় বদলাবো। এ বিষয়ে ভালো খেলোয়াড়দের মধ্য থেকে আমরা তালিকা তৈরি করতে বলেছি। যারা ভালো খেলোয়াড় তাদের আমরা দলে সুযোগ করে দেব।

কোচ প্রসঙ্গে বিসিবি সভাপতি বলেন, রিপোর্ট হাতে পেলেই কোচের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। তবে টি-টোয়েন্টির জন্য আলাদা কোচ নেয়ার চিন্তা ভাবনাও আমাদের আছে। আমরা টি-টোয়েন্টির জন্য তিন চারজন খেলোয়াড় বাছাই করবো। ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক ড্যারেন স্যামির মতো সাত নাম্বারে ব্যাট করতে নেমে দলকে জিতিয়ে দেবে, এমন কিছু খেলোয়াড়ই আমাদের প্রয়োজন।

২০১৫ সালের বিশ্বকাপ ও সামনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজেই দলের পরিবর্তন সাধিত হবে কি না জানতে চাইলে পাপন বলেন, ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের আগেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে আমরা দলের বেশ কিছু পরিবর্তন আনবো। ২০১৫ বিশ্বকাপ নিয়ে আমরা এখনই পরিকল্পনা করবো। তবে আগামী মিটিংয়েই আমরা চার বছরের ক্রিকেট পরিকল্পনা হাতে নেব।

ক্রিকেটারদের সুযোগ সুবিধা নিয়ে পাপন বলেন, বিশ্বের অনেক দেশের চেয়ে আমরা খেলোয়াড়দের বেশি সুযোগ-সুবিধা দিয়ে থাকি। তাই দেশের কথা চিন্তা করেই মাঠে পারফর্ম করা উচিত তাদের। দেশের কথা চিন্তা করেই খেলা উচিত ক্রিকেটারদের। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে জাতীয় দলের পারফরমেন্স নিয়ে বিসিবি সভাপতি বলেন, আমরা বিশ্বাস করি এখনও আমরা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট কি তা বুঝে উঠতে পারিনি। এখনও সিদ্ধান্ত নিতে পারি না টি-টোয়েন্টিতে কখন কাকে বল দিতে হবে। কিভাবে ব্যাটিং করতে হবে। তাই টি-টোয়েন্টি নিয়ে আমাদের আরও কাজ করতে হবে।

চলতি বছরে ভারত সফর প্রসঙ্গে পাপন বলেন, আপনা জানেন, মৌখিকভাবে এ বছর জুন মাসে ভারত ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফরে আসার কথা ছিল। তাই এ বিষয়ে আগামী ৮ এপ্রিল থেকে দুবাইয়ে শুরু হওয়া আইসিসি মিটিং অনুষ্ঠিত হবে। সেখানেই ভারত সফর নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে। আগামী ৮,৯, ও ১০ এপ্রিল দুবাইয়ের আইসিসি মিটিং শেষের একদিন পরেই লন্ডনে আইসিসির আরও একটি মিটিং হবে। সবশেষে দেশের ঘরোয়া ক্রিকেট প্রসঙ্গে পাপন বলেন, আগামী ১২ তারিখ থেকে জাতীয় লিগ শুরু হচ্ছে। এছাড়াও এ বিষয়ে আরও বড় পরিসরে আলোচনা হবে।

Comments
Loading...