‘বিএনপি-জামায়াত সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী’র বক্তব্য অসত্য’

0 ৪১

jamatপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ ২৮ অক্টোবর একটি অনুষ্ঠানে “দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতে বিদেশিদের ওপর বিএনপি-জামায়াত জোট হামলা চালিয়েছে” মর্মে দেয়া বক্তব্যকে ভিত্তিহীন ও অসত্য বলে দাবি করেছে জামায়াতে ইসলামী। প্রধানমন্ত্রীর এ বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দলটির ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা: শফিকুর রহমান আজ গণমাধ্যমে এক বিবৃতি দিয়েছেন।

বিবৃতিতে ডা: শফিকুর রহমান বলেন, “গোটা জাতি যখন আশা করছে যে, বিদেশিদের হত্যা ও তাজিয়া মিছিলে বোমা নিক্ষেপসহ সকল সন্ত্রাসী ঘটনার মোকাবেলা করার জন্য প্রধানমন্ত্রী বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের ডাক দেবেন ঠিক সেই মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রীর এ ধরনের অসত্য মন্তব্য দেশবাসীকে দারুণভাবে হতাশ করেছে। এধরণের বক্তব্যের ফলে চিহ্নিত খুনি, সন্ত্রাসীরা পার পেয়ে যাওয়ার রাস্তা খুলে যাবে।

ডা: শফিকুর রহমান বলেন, আমরা স্পষ্ট ভাষায় জানাতে চাই যে, জামায়াতে ইসলামী হত্যা ও সন্ত্রাসের রাজনীতিকে ঘৃণা করে। কাজেই কোন হত্যা ও সন্ত্রাসের ঘটনার সঙ্গে জামায়াতে ইসলামীর কোন সম্পর্ক থাকার প্রশ্নই ওঠে না। বিদেশিদের ওপর হামলা, তাজিয়া মিছিলে বোমা নিক্ষেপ এবং পুলিশের এএসআই ইব্রাহিম মোল্লাকে হত্যাসহ সকল সন্ত্রাসী ঘটনাসমূহের নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে খুনি ও দোষীদের চিহ্নিত করে কঠোর শাস্তি প্রদান করার জন্য জামায়াতের পক্ষ থেকে আমরা দাবি জানিয়েছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত তদন্ত কাজ শেষ হয়নি এবং খুনিরাও চিহ্নিত হয়নি।

প্রত্যেকটি ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে তদন্ত শুরু হওয়া তো দূরের কথা, তদন্ত শুরু হওয়ার আগেই বিরোধীদল বিশেষ করে বিএনপি, জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরকে দায়ী করে সরকারের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ এবং প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন ব্যক্তিবর্গ অনবরত বক্তব্য দিয়েই চলেছেন। এ সমস্ত বক্তব্য রাজনৈতিক প্রতিহিংসা, প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার অপচেষ্টা এবং রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের উদ্দেশ্য ছাড়া আর কিছুই নয়। আমরা এ ধরনের অপচেষ্টার আবারও তীব্র নিন্দা জানাই।

ডা: শফিকুর রহমান আরও বলেন, আমরা আমাদের দলের পক্ষ থেকে প্রতিটি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের পরপরই স্পষ্ট ভাষায় নিন্দা জানিয়ে নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদেরকে আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি প্রদানের আহ্বান জানিয়ে আসছি। পাশাপাশি সরকার কোন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের উদ্যোগ নিলে আমরা আমাদের দলের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতার অঙ্গীকারও করেছি। অতি দুঃখের বিষয় সরকার আমাদের কোন আন্তরিক বক্তব্য ও প্রয়াসকে আমলে না নিয়ে জোর করে আমাদের ঘাড়ে সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে এ সমস্ত অপকর্মের দায় চাপানোর অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। আমরা স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, তাদের এ ধরনের অপপ্রয়াস অতীতে যেমন ব্যর্থ হয়েছে, এখনও নিঃসন্দেহে তেমনি ব্যর্থ হবে। আমরা সরকারকে এ ধরনের নোংরা রাজনৈতিক খেলা থেকে বিরত থাকার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

ডা: শফিকুর রহমান বলেন, জনগণের কাছে এটা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে যে, সরকার এ সব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের খুঁজে বের করার পরিবর্তে জামায়াতে ইসলামী এবং ইসলামী ছাত্রশিবিরকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়। আমরা বিশ্বাস করি দেশের ১৬ কোটি মানুষ তা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ ও উপলব্ধি করছেন। জনগণের ঐক্যবদ্ধ শক্তির মুখে সকল ষড়যন্ত্রই বানচাল হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ।”

Comments
Loading...