বিয়ের আগে শারীরিক সম্পর্ক নয়

0 ১০

images (1)ভালোবাসার জন্য মানুষ কত কিছুই না করে। একেবারে রোম্যান্টিক নয় এমন মানুষও হয়ে ওঠে রোম্যান্টিক। আবার কেউ কেউ ভালোবাসার ঝোকে করে বসেন বড় বড় ভুল। একটা সম্পয় হয়তো মনে হয় সেটাই ভালোবাসার প্রকাশ। কিন্তু পরে বুঝতে পারেন যে বিশাল একটি ভুল ছাড়া আর কিছুই নয়। ফলে পস্তাতে হয় জীবনের একটি পর্যায়ে গিয়ে। জেনে নিন ১০টি কাজ সম্পর্কে যেগুলো ভালোবাসার জন্য করলেও পরবর্তিতে অবশ্যই পস্তাতে হবে আপনাকে।

১) ভালোবাসার খাতিরে কখনই বিয়ের আগে শারীরিক সম্পর্কে জড়ানো উচিত নয়। কারণ এধরণের সম্পর্কে জড়িয়ে গেলে আপনি নিজেকে মানসিক ভাবে নিজেকে ক্ষমা করতে পারবেন না। সেই সঙ্গে নানান অনাকাঙ্খিত সমস্যার কারণে সামাজিকভাবে হেয় হতে পারেন আপনি।

২) ভালোবাসার মানুষটির জন্য নিজেকে বদলে ফেলা একেবারেই উচিত নয়। কারণ আপনার প্রিয় মানুষটি যদি সত্যিই আপনাকে ভালোবেসে থাকেন তাহলে আপনি যেমন, সেভাবেই গ্রহণ করে নেবে আপনাকে। যেই সম্পর্কে আপনার নিজেকে বদলে ফেলতে হবে সেই সম্পর্কে মানসিকভাবে সুখী হতে পারবেন না আপনি।

৩) ভালোবাসার সম্পর্কের জন্য নিজের শখ কিংবা গুণ বিসর্জন দেবেন না। আপনাকে যেই ব্যক্তি আসলেই ভালোবাসে সে আপনার কষ্টে অর্জিত গুণের কদর করবেই।

৪) ভালোবাসার মানুষটিকে বিশ্বাস করবেন এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু অতিরিক্ত বিশ্বাস করে পারিবারিক সব তথ্য জানিয়ে দেয়া একেবারেই উচিত নয়।

৫) প্রেমিক/প্রেমিকাকে সময় দিতে গিয়ে কিংবা তাদের কথায় প্ররোচিত হয়ে কিছুতেই বন্ধুদের সাথে সম্পর্ক ত্যাগ করা উচিত নয়। কারণ আপনার আনন্দে ও দুঃখে তারাই পাশে ছিলো এবং থাকবে। তাই আপনার জীবনে তাদের অবদান ভুলে যাওয়া উচিত নয়।

৬) অনেকেই প্রেমিক/প্রেমিকার পক্ষ নিয়ে পরিবারের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে সম্পর্ক নষ্ট করে। ভালোবাসার সম্পর্কের জন্য পরিবারের সাথে বিরোধীতা করে সম্পর্ক নষ্ট করা একেবারেই উচিত নয়। আপনার পরিবারকে আপনার যুক্তিগুলো বুঝিয়ে বলুন। প্রয়োজনে তাদের মতামতও ভালোভাবে যাচাই করে নিন।

৭) প্রেমের পেছনে ছুটে নিজের সমস্ত সঞ্চিত অর্থ শেষ করা একেবারেই উচিত নয়। আপনার ভালোবাসার জন্য আপনার নিজের নিরাপত্তার খাতিরে সঞ্চিত অর্থ কখনই খরচ করবেন না। কারণ বিপদের সময় আর্থিক সাহায্য পাওয়া যায়না কারো কাছ থেকেই। তাই এই ব্যাপারে নিজেরই সচেতন হওয়া উচিত।

৮) প্রেমে কষ্ট পেয়ে কিংবা ভালোবাসার মানুষটির মনোযোগ পাওয়ার জন্য অনেকেই নিজেকে কষ্ট দেয় কিংবা আঘাত করে। অনেক সময় ভালোবাসার জন্য আত্মঘাতীও হয়ে ওঠে মানুষ যা একেবারেই উচিত নয়।

৯) প্রেমিক/প্রেমিকার নামে শরীরে ট্যাটু করানোর কথা ভাবছেন? করাতে পারেন, তবে অবশ্যই স্থায়ী ট্যাটু নয়। কারণ প্রেমিক প্রেমিকার নামে স্থায়ী ট্যাটু করানোর পড়ে সম্পর্কে চির ধরলে সেটা নিয়ে আপনিই বিপাকে পরবেন।

১০) ভালোবাসার খাতিরে প্রেমিক/প্রেমিকার খারাপ অভ্যাস নিজের মাঝে গ্রহণ করা উচিত না। প্রেমিক/প্রেমিকা হয়তো নেশা করে কিংবা তার আছে অন্য কোনো খারাপ অভ্যাস। আপনাকে মানসিক ভাবে দূর্বল করে কিংবা ভালোবাসার দোহাই দিয়ে যদি সে আপনার মাঝেও সেই অভ্যাস সৃষ্টি করতে চায় তাহলে এধরণের সম্পর্ক থেকে দূরে থাকাই ভালো।

Comments
Loading...