যেভাবে অধ্যাপকের গোপানাঙ্গ ছিঁড়ে নিয়ে গেলে যুবলীগনেতা ! (ভিডিও সহ)

0 ১৭

proffesor copyবাড়ী নির্মাণের চাঁদা না দেয়ায় পটুয়াখালীর শহরতলী বহালগাছিয়া এলাকায় এক অধ্যাপককে বেদম মারপিট করে গোপনাঙ্গ ছিঁড়ে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। তিনি এখন পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।  এদিকে, মামলা হলেও ঘটনার তিন দিনেও আসামীরা গ্রেফতার না হয়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়িয়ে উল্টো প্রাননাশের হুমকী দিচ্ছে বাদী ও তার পরিবারকে।

করিম মৃধা ডিগ্রী কলেজের কৃষি শিক্ষা বিভাগের অধ্যাপক মোঃ ইউসুফ আলম জানান, এলাকায় জায়গা কিনে বাড়ী নির্মাণের শুরু থেকেই চিহ্নিত সন্ত্রসী মামুন চাঁদার দাবীতে সহযোগীদের নিয়ে তাকে ও তার পরিবারকে প্রতিনিয়ত নানা ভাবে ভয়ভীতি ও হুমকি দিতে থাকে। মেয়েকে মোবাইল ফোনে উত্যক্ত করায় ঢাকায় রেখে লেখাপড়া করাতে হচ্ছে। এ অবস্থায় গত ১০ মে সকালে সন্ত্রাসী মামুন ও জামাল বাড়ীতে ঢুকে চাঁদার দাবীতে তাকে বেদম মারপিট করে তার গোপনাঙ্গ টেনে হেচড়ে ছিড়ে অজ্ঞান অবস্থায় ফেলে যায়। পরে বাড়ীর নির্মাণ শ্রমিক ও প্রতিবেশীরা এসে তাকে হাসপাতালে পাঠায়।

ঘটনার দিন থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে সন্ত্রাসী মামুন সদর থানা যুবলীগ নেতা হওয়ায় মামলা নেয়নি পুলিশ। পরে অনেক দেন দরবার করে পরদিন রোববার রাতে মামলা দায়ের করতে পারলেও ঘটনার তিনদিনেও আসামীদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। অথচ আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়িয়ে উল্টো মামলা তুলে নেযার জন্য প্রাননাশের হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন অধ্যাপক ইউসুফ।

এ অবস্থায় চরম আতংকের মধ্যে তাদের দিন কাটছে বলে জানান অধ্যাপক ইউসুফ আলম ও তার স্ত্রী। অপর দিকে ডাক্তার জানিয়েছেন অধ্যাপক ইউসুফ আলমকে সুস্থ্য ও সাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে উন্নত চিকিৎসা করাতে হবে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সাব ইন্সপেক্টর মাহাবুব জানান, আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

Comments
Loading...