স্যার অনেক দুষ্টু ছিলেন : মাহি

0 ১০

mahiaসবার জীবনেই প্রথম ঘটনা থাকে। তবে তারকাদের প্রথম ঘটনাগুলো জানার আগ্রহ মানুষের থাকে আরো বেশি। আজ আমরা জানব, চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির জীবনের উল্লেখযোগ্য কিছু প্রথম ঘটনা।

প্রথম স্কুল

উত্তরা হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজ।

প্রথম শিক্ষক

মাসুদ স্যার। আমি ওয়ান থেকে ক্লাস ফাইভ পর্যন্ত তাঁর কাছে পড়েছি। স্যার অনেক দুষ্টু ছিলেন। আমার খালামণিদের সঙ্গে টাংকি মারার চেষ্টা করতেন। আমি সেটা বুঝতাম।

স্যার বাসায় পড়াতে এলে আমি ইনিয়ে-বিনিয়ে খালামণিদের প্রসঙ্গ তুলতাম। তখন স্যার সেই গল্পে ডুবে থাকতেন। সেই ফাঁকে স্যার ভুলেই যেতেন আমি যে হোমওয়ার্ক করিনি। আমি এভাবে পড়াশোনায় রোজ ফাঁকি দিতাম। আসলে পড়তে গেলে আমার ঘুম আসত। এখনো আসে। তবে স্যার অনেক ভালো পড়াতেন।

প্রথম পরা শাড়ি

সবুজ রঙের একটা শাড়ি পরেছিলাম। তখন আমি স্কুলে পড়তাম। আমরা প্রায় সব বন্ধু মিলে শাড়ি পরে খেলতাম। এটাকে আপনি বলতে পারেন, পুতুলখেলা। আমরা শাড়ি পরে সবাই অভিনয় করে খেলতাম। হাঁড়ি-পাতিল আর পুতুল নিয়ে খেলতে খুব ভালো লাগত।

প্রথম পারিশ্রমিক

২০ হাজার টাকা। ‘ভালোবাসার রং’ ছবির সাইনিং মানি ছিল এটা। টাকাটা পেয়ে আমি প্রথমে চিন্তা করেছিলাম মিষ্টি কিনব। কিন্তু টাকাটা বাসা পর্যন্ত নিয়ে আসতে আসতে কীভাবে যেন শেষ হয়ে গিয়েছিল। সম্ভবত এটা-ওটা কিনতেই শেষ! কিন্তু মিষ্টি আর কেনা হয়নি। পরে বাসায় ফিরে আম্মুর কাছ থেকে টাকা নিয়ে মিষ্টি কিনেছিলাম।

প্রথম প্রেম

আমি যখন নার্সারিতে পড়তাম, তখন থেকে আমাদের পাড়ার একটি ছেলে আমাকে পছন্দ করত। ছেলেটা দেখতে অনেক কালো ছিল। আমি তাকে দেখে অনেক ভয় পেতাম। তার পর টানা নয় বছর সেই ছেলে শুধু আমার পেছনে পেছনে ঘুরেছে। তাঁর মধ্যে হিরোগিরি একটা ভাব ছিল। আমার সঙ্গে অন্য কোনো ছেলের মেশা সে পছন্দ করত না। কেউ আমার সঙ্গে কথা বললে তাকে মারধর করত। একসময় হঠাৎ খেয়াল করি, সেই ছেলেটা তাঁর বাবা-মাসহ আমাদের পাড়া ছেড়ে চলে গেছে। তখন সম্ভবত আমি ক্লাস নাইনে পড়ি। ছেলেটা চলে যাওয়ার পর আমি তাঁকে একটু একটু ফিল করেছিলাম। হয়তো এটাই আমার প্রথম ক্রাশ ছিল। ছেলেটার নাম এখন আমার মনে নেই।

প্রেক্ষাগৃহে দেখা প্রথম চলচ্চিত্র

প্রেক্ষাগৃহে আমি দেখেছি আমারই অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র ‘ভালোবাসার রং’।

প্রথম পড়া বই

মীনা কার্টুনের বই প্রথমে পড়েছি।

প্রথম দেওয়া সাক্ষাৎকার

আরটিভির একটা লাইভ অনুষ্ঠানে প্রথম সাক্ষাৎকার দিয়েছিলাম। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেছিলেন পারিহা আপু। আমি খুব উচ্ছ্বসিত ছিলাম। প্রথমে তো শুনে বিশ্বাসই করতে পারিনি যে আমার লাইভ ইন্টারভিউ হবে। ‘ভালোবাসার রং’ ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পর সাক্ষাৎকারটি দিয়েছিলাম।

সূত্রঃ এনটিভি

Comments
Loading...