২২০ দিনে সূচক বেড়েছে ২২১ পয়েন্ট

0

image_66036ঢাকা: নতুন সূচক যাত্রা করার ২২০ দিনে প্রধান স্টক এক্সচেঞ্জ ডিএসই ব্রড ইন্ডেক্স (ডিএসইএক্স) সূচক বেড়েছে ২২১ পয়েন্ট। আর ডিএস ৩০ সূচক বেড়েছে ৩৭ পয়েন্ট। নতুন দুই সূচকে মোট পয়েন্ট বেড়েছে ২৫৮।. এ বছর ২৭ জানুয়ারি থেকে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ এ সূচক ২টি চালু করে। আন্তর্জাতিক পদ্ধতি অনুযায়ী সূচক দু’টি প্রস্তুত করেছে এসঅ্যান্ডপি (স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড পুওর) ডো জোন্স। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

হিসাব করে দেখা গছে, গত ১০ মাসে ২১৫ কার্যদিবস পার করে লেনদেন করে শেয়ার ব্যবসায়ীরা। লেনদেন কার্যদিবস না থাকায় (শুক্র ও শনি) বন্ধ থাকে ৪৮ দিন। নতুন সূচক চালুর মাস জানুয়ারিতে ৫ দিন ও চলতি মাসের ৫ দিনসহ ২২০ দিন কার্যদিবস চলে। এ হিসাবে ডিএসইএক্স সূচক বেড়েছে ২২১ দশমিক ৪৮৫৯৭ পয়েন্ট।  প্রতিদিন গড়ে পয়েন্ট বাড়ে শূন্য দশিমিক ৯৯ পয়েন্টের কিছু বেশি হারে। অন্যদিকে ডিএস ৩০ সূচক বেড়েছে ৩৭ দশমিক ৬১৯৮ পয়েন্ট। যা প্রতিদিন বেড়েছে শূন্য দশিমিক ১৭ পয়েন্ট হারে।

এ সময়ের মধ্যে মার্কেটে টাকার পরিমাণ বা বাজার মূলধন বেড়ছে ২৮ হাজার ২১০ কোটি ৮০ লাখ ৫৪ হাজার টাকা। যা ২৭ জানুয়ারিতে ছিল ২ লাখ ৩৭ হাজার  ৬৬৬ কোটি ৯৮ লাখ ৪৯ হাজার টাকা। আর ৫ ডিসেম্বর ছিল ২ লাখ ৬৫ হাজার ৮৭৭ কোটি ৭৯ লাখ ৩ হাজার টাকা।

২৭ জানুয়ারিতে লেনদেন হয়েছে ২১১ কোটি ৪ লাখ ১৯ হাজার টাকা। আর ৫ ডিসেম্বর লেনদেন হয়েছে ৪৪১ কোটি ৭০ লাখ ৪১ হাজার টাকা। এসময়ের মধ্যে লেনদেন বড়েছে ২৩০ কোটি ৬৬ লাখ ২২ হাজার টাকা। প্রতিদিনের হিসেবে গড়ে লেনদেন বেড়েছে ১ কোটি ৪ লাখ ৮৪ হাজারের কিছু বেশি টাকা হারে।

২৭ জানুয়ারি বাজারে হাত বদলকারীর শেয়ারের পোট ফলিওর (হাওলা) সংখ্যা ছিল ৬৮ হাজার ১০০টি। ৫ ডিসেম্বরে তা দাঁড়িছে ১ লাখ ১১ হাজার ৭৩৫টি। এ হিসাবে হাওলাকারীর সংখ্যা বেড়েছে ৪৩ হাজার হাজার ৬৩৫টি।

উল্লেখ্য, এ বছর ২৮ জানুয়ারি সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন সূচকের বিষয়ে গণমাধ্যমসহ সব শেয়ার ব্যবসায়ীদের জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন এসঅ্যান্ডপি ডো জোন্সের দক্ষিণ এশিয়ায় ব্যবসা সম্প্রসারণ বিষয়ক পরিচালক কোয়েল ঘোষ, ডিএসইর জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি আহমেদ রশিদ লালী, ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফায়েকুজ্জামান এবং ডিএসইর ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রধান অর্থ কর্মকর্তা শুভ্রকান্তি চৌধুরী।

এসঅ্যান্ডপি ডো জোনসের ইক্যুইটি ইনডেক্স প্রোডাক্ট ম্যানেজমেন্টের প্রধান অলকা ব্যানার্জী ওইদিন জানান, ডিএসইএক্স সূচক গণনার ক্ষেত্রে ডিএসইর সাধারণ মূল্যসূচকের ২০০৮ সালের ১৭ জানুয়ারির অবস্থানকে ভিত্তি ধরা হয়েছে। এদিন ডিএসইর সাধারণ মূল্যসূচক ছিল ২৯৫১ দশমিক ৯১ পয়েন্ট। এরপর থেকে ৫ বছরে কোম্পানিগুলোর বিভিন্ন তথ্য বিশ্লেষণ করে ডিএসইএক্স সূচক ৪ হাজার ৫৫ দশমিক ৯০ পয়েন্টে এসে দাঁড়িয়েছে। একই সঙ্গে ২০০১ সালের ১ জানুয়ারি ডিএসই-২০ সূচকের ১০০০ পয়েন্টকে ভিত্তি ধরে ডিএস ৩০ সূচক চালু করা হয়েছে। লেনদেন শুরুতে এ সূচকটি ১ হাজার ৪৬০ দশমিক ৩০ পয়েন্ট দিয়ে যাত্রা শুরু করে। আর ডিএসইএক্স সূচক শুরু করে ৪ হাজার ৫৫ দশমিক ৯০ পয়েন্ট থেকে।

Comments
Loading...