৪ স্ত্রী রাখার আহবান সৌদি কুমারীদের

0 ১২

soudi-arabia_Kumari-300x216 অনেকেই হয়তো অবাক হতে পারেন। একজন পুরুষ ৪ জন স্ত্রী রাখবে! কারণ নারী সবসময় তার একজন স্বামী থাকুক এমনটিই চান। কিন্তু প্রাপ্ত বয়সে বিয়ে না হলে ওই সময়টায় বড়ই একাকীত্ব বোধ করেন নারীরা। এরই প্রেক্ষিতে চিরকুমারিত্ব রোধে প্রত্যেক পুরুষকে ৪ জন স্ত্রী রাখার আহবান জানিয়েছেন সৌদি আরবের ছাত্রীরা।
সম্প্রতি দেশটির দাহরাম অঞ্চলের একদল কলেজ ছাত্রী টুইটারে এ আহবান জানিয়েছেন। এ লক্ষে তারা টুইটারে প্রচার অভিযান জোরদার করেছেন। তারা ইসলাম ধর্মের বিধান অনুযায়ী ধনী ও শারীরিকভাবে সক্ষম সৌদি পুরুষদের প্রতি এ আহবান জানান।
ওই ছাত্রীরা জানান, সৌদি আরবে চিরকুমারিত্ব দিন দিন বাড়ছে। ২০১২ সালে এ সংখ্যা ১০ লাখে উন্নীত হয়েছে। এ কারণে তারা এ আহ্বান জানান। অনেকেই এই প্রচার অভিযানের প্রশংসা করেছেন।
অন্যদিকে সৌদি বিবাহিত নারীরা এর বিরোধিতা করেছেন। সৌদি পুরুষরা জানিয়েছে, কেউ যদি তার প্রথম এবং দ্বিতীয় স্ত্রীর সাথে ন্যায়বিচারপূর্ণ আচরণ করতে পারেন কেবল তখনই দ্বিতীয় স্ত্রী গ্রহণ সম্ভব। তারা জানান, দ্বিতীয় বিয়েতে সংসারেও অশান্তি দেখা দিতে পারে।
সৌদি নারী সামিয়া আল দানদাশি এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, প্রত্যেক সৌদি পুরুষ যদি ৪ জন করে স্ত্রী রাখে এবং তারা যদি গড়ে ৮ জন সন্তান জন্ম দেন তাহলে সৌদিতে চিরকুমারিত্ব রোধ হবে এবং দেশের জনসংখ্যাও বাড়বে।
উল্লেখ্য, বিয়ের জন্য সৌদি পুরুষদের বিপুল পরিমাণ অর্থ সম্পদ নারীকে দেওয়ার প্রথা রয়েছে। এ কারণে দেশটিতে মেয়েদের অবিবাহিত থাকার প্রধান কারণ। ২০১১ সালে দেশটির অর্থনীতি ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের এক জরিপে জানা যায়, ওই বছর দেশটিতে ৩০ বছর বয়সী নারীর সংখ্যা প্রায় ১৬ লাখ।

 

এম এস

Comments
Loading...