কেন পুরুষ কোনো নারীকে পছন্দ করে আবার কেনই বা মুখ ফিরিয়ে নেয়?

0 ১০২

narডেস্ক : নারী হিসেবে আপনি চিন্তা করতে পারেন, কেন পুরুষ কেন কোনো নারীকে পছন্দ করে আবার কেনই বা তার দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়? কেমন নারীর মাঝে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে পুরুষ? নিজেকে পরিবর্তিত করে কোনো পুরুষের স্বপ্নের নায়িকা হয়ে ওঠার পথটাই বা কী? আপনি যদি একজন নারী হন, আর এসব বিষয় নিয়ে চিন্তা করেন তাহলে দ্রুত আত্মস্থ করে নিন এ ১০টি পয়েন্ট।

১. সামাজিক জীবনসহ একজন নারী
পুরুষ কখনোই এমন নারী চায়না, যে কি না অতিরিক্ত আবেগপ্রবণ। সামাজিক, বন্ধু-বান্ধব আছে ও নিজে কাজকর্ম করতে পারে এমন মেয়েরাই এক্ষেত্রে আদর্শ।
২. প্রথম পদক্ষেপ নয়
রোমান্টিক বিষয়ে প্রথমে কী পুরুষ নারীকে কোনো প্রস্তাব দেবে নাকি নারী পুরুষকে দেবে? এক্ষেত্রে পুরুষদেরই প্রাধান্য। প্রথম প্রস্তাব দেয়া নারীকে পুরুষরা পছন্দ করে না। একজন নারী হিসেবে তাকে প্রস্তাব দেয়ার সুযোগ করে দেয়াই ভালো।
৩. আকাশে-বাতাসে ভালোবাসা
তাকে দেখার পর কী আপনার হৃৎস্পন্দন বেড়ে যায়? তার গলার স্বর শুনে কী আপনার তাকে দেখতে ইচ্ছে করে? কেউ কেউ এ ধরনের অভিজ্ঞতা লাভ করলেও অন্যরা আবার একটু ভিন্নভাবে ভালোবাসার অনুভব বুঝতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে কারো পাশে থাকলে স্বাচ্ছন্দ্য ও নিরাপদ বোধ করা। এর মাধ্যমে নিজেই নিজের ভালোবাসার মাত্রা বুঝতে পারবেন।
৪. আপনার আগ্রহ প্রকাশ করুন
অনেকেই বলেন, ছোটখাট কাজে কষ্ট করো না। তবে নতুন সম্পর্কের ক্ষেত্রে এটা নিৎসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ। ছোটখাট বিষয়ের মাধ্যমেই তাকে বোঝাতে হবে যে, আপনি কেয়ার করেন।
৫. কোনোভাবেই অগোছালো নয়
সম্পর্কের শুরুতে অগোছালো বিষয়ের অবতারণা পুরুষকে ভয় পাইয়ে দিতে পারে। এ কারণে প্রথমেই সেক্সি কোনো বিষয়ের অবতারণা করা যাবে না, প্রশ্রয়ও দেওয়া যাবে না। সম্পর্কের প্রথমে ছেলেরা পছন্দ করে হালকা ও তোষামোদি কথাবার্তা।
৬. অপেক্ষা করতে হবে
সম্পর্কের পর দ্রুত শারীরিক ঘনিষ্ঠতায় যাওয়া যাবে না। যৌনতার ফলে আপনার সুন্দর সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যেতে পারে। যৌনতা ছাড়া দুজনের আরও অনেক কিছু করার আছে।
৭. বাস্তবজ্ঞান বর্জিত নয়
পুরুষ সবসময় এমন নারী চায়, যাকে সে সম্মান করতে পারে। কোনোকিছু পাওয়া যাবেনা জানলে সেপথে পুরুষ নাও আসতে পারে। অবশ্য এর থেকে ভিন্ন পুরুষও আছে। তাদের কাছে না ঘেঁষাই ভালো।
৮. উপযুক্ত সঙ্গী
বন্ধু ও গুরুত্বপূর্ণ মানুষদের সামনে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করতে পারে, এমন সঙ্গীকেই উপযুক্ত মনে করে পুরুষ। এ ধরনের বিষয়ে তাকে নিয়ে হাসাহাসি করা নয় বরং তার উপযুক্ত সঙ্গী হওয়াই পুরুষের পছন্দ।
৯. অতিরিক্ত ফোন, এসএমএস
আপনি যদি আপনার প্রিয়জনকে সারাক্ষণ অসংখ্য ফোন, এসএমএস ও মেইল দিয়ে ব্যস্ত রাখেন, তাহলে ধরে নিন সে শীঘ্রই আপনার হাত থেকে পালানোর পথ খুঁজবে। তাকে জ্বালাতন করবেন না, বিশেষ করে ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করলে। এ ধরনের সবকিছু স্বাভাবিকভাবেই আসবে।
১০. ভালো আকর্ষণ করে ভালোকে
সে যদি ভালো আচরণের ভদ্রলোক হয় তাহলে আপনি ১০০ নাম্বার পেলেন। ডেটিং এক্সপার্টরা বলছেন, ভালো আচরণের মাধ্যমে মানুষ চেনা যায়। শুধু নিশ্চিত করতে হবে, তা নির্ভরযোগ্য ও বিশ্বাসযোগ্য কি না।

Comments
Loading...